BDpress

থাইল্যান্ডে মোড়লের বাড়িতে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অ+ অ-
থাইল্যান্ডে মোড়লের বাড়িতে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৮
থাইল্যান্ডের ক্রাবি প্রদেশের দক্ষিণাঞ্চলের একটি গ্রামের মোড়লের বাড়িতে বন্দুধারীর গুলিতে আটজন নিহত হয়েছে। পুলিশ বলছে, সোমবার সেনাবাহিনীর পোশাক পরে বন্দুকধারীরা ওই বাড়িতে তল্লাশি চালানোর নামে প্রবেশ করে এলাপাতাড়ি গুলি চালিয়েছে। এ ঘটনায় আরও তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

ওই এলাকাটি পর্যটকদের কাছে জনপ্রিয়। সেনাবাহিনীর পোশাক পরে বন্দুকধারীরা মোড়লের বাড়িতে প্রবেশ করে। এরপর মোড়লসহ অন্যদের আটক করে রাখে। কয়েক ঘণ্টা পর এলাপাতাড়ি গুলি চালিয়ে মাইক্রোবাসে চড়ে দ্রুত সেখান থেকে পালিয়ে যায় বন্দুকধারীরা।

পুলিশের ধারণা, ব্যক্তিগত কারণেই বন্দুকধারীরা এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। এলাকাবাসী বলছে, মোড়লের বাড়িতে অবৈধ কর্মকাণ্ড চলার অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তের কথা বলে বন্দুকধারীরা সেখানে প্রবেশ করেছিল। 

প্রতি বছর ক্রাবি প্রদেশে সৈকত, ঝরনা আর পাহাড়ের সৌন্দর্য দেখার জন্য বহু মানুষ জড়ো হন। বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, সেখানকার পর্যটনের প্রধান স্থানে ঘটনাটি ঘটেনি। পর্যটন কেন্দ্র থেকে দূরে লোমহর্ষক ওই ঘটনা ঘটেছে। 

থাইল্যান্ডের বহু নাগরিকের নিজস্ব বন্দুক রয়েছে। তবে এভাবে আচমকা গুলি চালিয়ে এতগুলো মানুষের প্রাণহানির ঘটনা দেশটিতে নজিরবিহীন। 

সূত্র : বিবিসি। 

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

থাইল্যান্ডে মোড়লের বাড়িতে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৮


থাইল্যান্ডে মোড়লের বাড়িতে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৮

ওই এলাকাটি পর্যটকদের কাছে জনপ্রিয়। সেনাবাহিনীর পোশাক পরে বন্দুকধারীরা মোড়লের বাড়িতে প্রবেশ করে। এরপর মোড়লসহ অন্যদের আটক করে রাখে। কয়েক ঘণ্টা পর এলাপাতাড়ি গুলি চালিয়ে মাইক্রোবাসে চড়ে দ্রুত সেখান থেকে পালিয়ে যায় বন্দুকধারীরা।

পুলিশের ধারণা, ব্যক্তিগত কারণেই বন্দুকধারীরা এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। এলাকাবাসী বলছে, মোড়লের বাড়িতে অবৈধ কর্মকাণ্ড চলার অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তের কথা বলে বন্দুকধারীরা সেখানে প্রবেশ করেছিল। 

প্রতি বছর ক্রাবি প্রদেশে সৈকত, ঝরনা আর পাহাড়ের সৌন্দর্য দেখার জন্য বহু মানুষ জড়ো হন। বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, সেখানকার পর্যটনের প্রধান স্থানে ঘটনাটি ঘটেনি। পর্যটন কেন্দ্র থেকে দূরে লোমহর্ষক ওই ঘটনা ঘটেছে। 

থাইল্যান্ডের বহু নাগরিকের নিজস্ব বন্দুক রয়েছে। তবে এভাবে আচমকা গুলি চালিয়ে এতগুলো মানুষের প্রাণহানির ঘটনা দেশটিতে নজিরবিহীন। 

সূত্র : বিবিসি। 

বিডিপ্রেস/আরজে

স্পটলাইট