BDpress

মেসির পাশে খেলতে দিবালার সমস্যা ‘জার্সি নম্বর’?

ক্রীড়া ডেস্ক

অ+ অ-
মেসির পাশে খেলতে দিবালার সমস্যা ‘জার্সি নম্বর’?
মেসি থাকলে ফুটবল খেলা যে কতটা সহজ, সেটি বারবার মনে করিয়ে দিয়েছেন জাভি-ইনিয়েস্তারা। মাঠের খেলায় তো বারবার তার প্রমাণও মিলেছে। নিন্দুকেরা বলেন, মেসির ছোঁয়াতেই নাকি আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে গোল পান অনেক সাধারণ মানের খেলোয়াড়। অথচ জুভেন্টাসের প্রাণভোমরা পাওলো দিবালার জন্য মেসির পাশে খেলাটা নাকি অনেক কঠিন!

মাত্র ২৩ বছর বয়সেই ফুটবল বিশ্বের নজর কেড়েছেন। কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি তো নেইমারের পর ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় ফুটবলার হিসেবে মনে করেন দিবালাকেই। ইউরোপীয় ফুটবলের সদ্য সমাপ্ত দলবদলে যদিও রাজত্ব করেছেন নেইমার-এমবাপ্পে, কিন্তু জুভেন্টাস যদি বিক্রি করতে রাজি থাকত, তাহলে নিশ্চয়ই দিবালা হতেন ‘হটকেক’। জাতীয় দলেও পরিণত হয়েছেন আগামী দিনের ভরসা হিসেবে, খেলেছেন লিওনেল মেসির পাশে। ডি মারিয়া, হিগুয়েইন, কিংবা অ্যাগুয়েরোর মতোই মেসির পক্ষে-বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতাটা ভালোই হয়েছে দিবালার।

বার্সার আমন্ত্রণ পেলে তিনি কি সেখানে যাবেন? নিজের ‘নাম্বার টেন’ সত্তার কারণেই হয়তো দিবালার জন্য মেসির পাশে খেলাটা একটু কঠিন। সরাসরি কিছু না বললেও দিবালার মন্তব্যে আকার-ইঙ্গিতটা এমনই। তবে তিনি জানিয়েছেন, মেসির সঙ্গে খেলে তিনি অনেক কিছুই শিখেছেন, ‘আমি জাতীয় দলে তাঁর সঙ্গে খেলেছি, এটি আমার জন্য খুবই আনন্দদায়ক অভিজ্ঞতা। সতীর্থ হিসেবে আমি তাঁর কাছ থেকে অনেক কিছুই শিখেছি।’

নিজের ‘নাম্বার টেন’ সত্তাটা নিয়ে যথেষ্ট সচেতন দিবালা, ‘জুভেন্টাসে আমি বেশ ভালো খেলছি, এখানে আমিই নাম্বার টেন।’ ক্লাব ছাড়ার কোনো পরিকল্পনা তিনি করছেন কি না, সে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ‘নাম্বার টেন’ আত্মপরিচয়টা সামনে নিয়ে এসেছেন। বলেছেন, জুভেন্টাসে তিনি ভালোই আছেন।

এটা তো ঠিক, কোনো ফুটবল দলে দুজন ‘নাম্বার টেন’ থাকতে পারেন না। যে কারণে হুয়ান রোমান রিকলমেকে জায়গা ছেড়েছিলেন পাবলো আইমার, অ্যারিয়েল ওর্তেগা। ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মের শেষে একে একে জায়গা ছেড়েছেন রিভালদো, রোনালদিনহো কিংবা কাকা। এঁরা একই দলে খেললেও ‘মিডফিল্ড জেনারেলে’ দায়িত্ব নিয়েছেন একজনই। জুভেন্টাসে দিবালার যে ভূমিকা, বার্সেলোনায় মেসির ভূমিকা সেটিই। আর্জেন্টাইন জাতীয় দলে তাই দিবালাকে থাকতে হয় মেসির ছায়াতেই।

আজ রাতে ন্যু ক্যাম্পে মুখোমুখি হচ্ছে বার্সেলোনা ও জুভেন্টাস। গেল মৌসুমেই দিবালা একরকম একা হাতেই বিদায় করেছিলেন কাতালানদের। চ্যাম্পিয়নস লিগে আবারও মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই প্রতিপক্ষকে সম্মান জানাতে ভুললেন না ‘লা জোয়া’, ‘রক্ষণে বেশ শক্তিশালী হয়েছে বার্সা, এখনো গোল খায়নি...ওদের বাড়তি জায়গা দিলে আমাদের ক্ষতি করতে পারে।’ সুত্র: মার্কা

বিডিপ্রেস/মিঠু

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

মেসির পাশে খেলতে দিবালার সমস্যা ‘জার্সি নম্বর’?


মেসির পাশে খেলতে দিবালার সমস্যা ‘জার্সি নম্বর’?

মাত্র ২৩ বছর বয়সেই ফুটবল বিশ্বের নজর কেড়েছেন। কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি তো নেইমারের পর ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় ফুটবলার হিসেবে মনে করেন দিবালাকেই। ইউরোপীয় ফুটবলের সদ্য সমাপ্ত দলবদলে যদিও রাজত্ব করেছেন নেইমার-এমবাপ্পে, কিন্তু জুভেন্টাস যদি বিক্রি করতে রাজি থাকত, তাহলে নিশ্চয়ই দিবালা হতেন ‘হটকেক’। জাতীয় দলেও পরিণত হয়েছেন আগামী দিনের ভরসা হিসেবে, খেলেছেন লিওনেল মেসির পাশে। ডি মারিয়া, হিগুয়েইন, কিংবা অ্যাগুয়েরোর মতোই মেসির পক্ষে-বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতাটা ভালোই হয়েছে দিবালার।

বার্সার আমন্ত্রণ পেলে তিনি কি সেখানে যাবেন? নিজের ‘নাম্বার টেন’ সত্তার কারণেই হয়তো দিবালার জন্য মেসির পাশে খেলাটা একটু কঠিন। সরাসরি কিছু না বললেও দিবালার মন্তব্যে আকার-ইঙ্গিতটা এমনই। তবে তিনি জানিয়েছেন, মেসির সঙ্গে খেলে তিনি অনেক কিছুই শিখেছেন, ‘আমি জাতীয় দলে তাঁর সঙ্গে খেলেছি, এটি আমার জন্য খুবই আনন্দদায়ক অভিজ্ঞতা। সতীর্থ হিসেবে আমি তাঁর কাছ থেকে অনেক কিছুই শিখেছি।’

নিজের ‘নাম্বার টেন’ সত্তাটা নিয়ে যথেষ্ট সচেতন দিবালা, ‘জুভেন্টাসে আমি বেশ ভালো খেলছি, এখানে আমিই নাম্বার টেন।’ ক্লাব ছাড়ার কোনো পরিকল্পনা তিনি করছেন কি না, সে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ‘নাম্বার টেন’ আত্মপরিচয়টা সামনে নিয়ে এসেছেন। বলেছেন, জুভেন্টাসে তিনি ভালোই আছেন।

এটা তো ঠিক, কোনো ফুটবল দলে দুজন ‘নাম্বার টেন’ থাকতে পারেন না। যে কারণে হুয়ান রোমান রিকলমেকে জায়গা ছেড়েছিলেন পাবলো আইমার, অ্যারিয়েল ওর্তেগা। ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মের শেষে একে একে জায়গা ছেড়েছেন রিভালদো, রোনালদিনহো কিংবা কাকা। এঁরা একই দলে খেললেও ‘মিডফিল্ড জেনারেলে’ দায়িত্ব নিয়েছেন একজনই। জুভেন্টাসে দিবালার যে ভূমিকা, বার্সেলোনায় মেসির ভূমিকা সেটিই। আর্জেন্টাইন জাতীয় দলে তাই দিবালাকে থাকতে হয় মেসির ছায়াতেই।

আজ রাতে ন্যু ক্যাম্পে মুখোমুখি হচ্ছে বার্সেলোনা ও জুভেন্টাস। গেল মৌসুমেই দিবালা একরকম একা হাতেই বিদায় করেছিলেন কাতালানদের। চ্যাম্পিয়নস লিগে আবারও মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই প্রতিপক্ষকে সম্মান জানাতে ভুললেন না ‘লা জোয়া’, ‘রক্ষণে বেশ শক্তিশালী হয়েছে বার্সা, এখনো গোল খায়নি...ওদের বাড়তি জায়গা দিলে আমাদের ক্ষতি করতে পারে।’ সুত্র: মার্কা

বিডিপ্রেস/মিঠু

স্পটলাইট