BDpress

চালের পর ঊর্ধ্বমুখী আটা-ময়দার দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
চালের পর ঊর্ধ্বমুখী আটা-ময়দার দাম
ব্যবসায়ীদের পরিকল্পিত কারসাজিতে অব্যাহত উত্থানে চালের দাম বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। চালের পর এবার বাড়তে শুরু করেছে আটা ও ময়দার দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতিকেজি আটার দাম বেড়েছে ৫ থেকে ৬ টাকা, ময়দার দাম বেড়েছে ৩ থেকে ৪ টাকা। শনিবার রাজধানীর রামপুরা ও হাতিরপুল বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

আগের সপ্তাহে খুচরা বাজারে প্রতিকেজি আটা ২৪ টাকা দরে বিক্রি হলেও শনিবার বাজারে প্রতিকেজি আটা ৩০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। এ ছাড়া গতসপ্তাহে প্রতিকেজি ময়দা ৩২ টাকায় বিক্রি হলেও তা এখন ৩৫ থেকে ৩৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে প্যাকেটজাত আটা ২ কেজি প্রকারভেদে ৬৫ থেকে ৬৬ টাকা এবং ময়দা ৮৫ থেকে ৮৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, চালের ঊর্ধ্বগতির সাথে পাল্লা দিয়ে হঠাৎ করেই আটা-ময়দার দাম বাড়তে শুরু করেছে। পাইকারি বাজার ও কোম্পানিগুলো দাম বাড়ানোর কারণে খুচরা বাজারে দাম বেড়েছে।

সরকারের নিয়মিত তদারকিতে চালের দাম সামান্য কমেছে। দেশি ও আমদানি করা মোটা চাল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগের সপ্তাহে তা ৫০ থেকে ৫২ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। ভালো মানের মিনিকেট চাল ৬০ থেকে ৬৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মিনিকেট (সাধারণ) ৫৮ টাকা, নাজিরশাইল ৬৫ থেকে ৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে গত ২ দিনের বৃষ্টির অজুহাতে শনিবার আবারো বেড়েছে সবজির দাম। প্রতিকেজি পটোল ৬০ টাকা, শিম ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ থেকে ৬০ টাকা, বেগুন ৬০ থেকে ৭০ টাকা, কাকরোল ৬০ টাকা, মরিচ ১২০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, পেঁপে ২০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা এবং ধুন্দল ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া লালশাক প্রতি আঁটি ২৫, ডাঁটাশাক ২৫, কলমিশাক ২০, পুঁইশাক ২০, পাটশাক ১৫, কচুশাক ২০ ও লাউশাক ২৫ টাকা আঁটি দরে বিক্রি হচ্ছে।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

চালের পর ঊর্ধ্বমুখী আটা-ময়দার দাম


চালের পর ঊর্ধ্বমুখী আটা-ময়দার দাম

আগের সপ্তাহে খুচরা বাজারে প্রতিকেজি আটা ২৪ টাকা দরে বিক্রি হলেও শনিবার বাজারে প্রতিকেজি আটা ৩০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। এ ছাড়া গতসপ্তাহে প্রতিকেজি ময়দা ৩২ টাকায় বিক্রি হলেও তা এখন ৩৫ থেকে ৩৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে প্যাকেটজাত আটা ২ কেজি প্রকারভেদে ৬৫ থেকে ৬৬ টাকা এবং ময়দা ৮৫ থেকে ৮৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, চালের ঊর্ধ্বগতির সাথে পাল্লা দিয়ে হঠাৎ করেই আটা-ময়দার দাম বাড়তে শুরু করেছে। পাইকারি বাজার ও কোম্পানিগুলো দাম বাড়ানোর কারণে খুচরা বাজারে দাম বেড়েছে।

সরকারের নিয়মিত তদারকিতে চালের দাম সামান্য কমেছে। দেশি ও আমদানি করা মোটা চাল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগের সপ্তাহে তা ৫০ থেকে ৫২ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। ভালো মানের মিনিকেট চাল ৬০ থেকে ৬৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মিনিকেট (সাধারণ) ৫৮ টাকা, নাজিরশাইল ৬৫ থেকে ৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে গত ২ দিনের বৃষ্টির অজুহাতে শনিবার আবারো বেড়েছে সবজির দাম। প্রতিকেজি পটোল ৬০ টাকা, শিম ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ থেকে ৬০ টাকা, বেগুন ৬০ থেকে ৭০ টাকা, কাকরোল ৬০ টাকা, মরিচ ১২০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, পেঁপে ২০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা এবং ধুন্দল ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া লালশাক প্রতি আঁটি ২৫, ডাঁটাশাক ২৫, কলমিশাক ২০, পুঁইশাক ২০, পাটশাক ১৫, কচুশাক ২০ ও লাউশাক ২৫ টাকা আঁটি দরে বিক্রি হচ্ছে।

বিডিপ্রেস/আরজে

স্পটলাইট