BDpress

কলার ভেলায় ধানের বীজতলা তৈরির উদ্যোগ

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
কলার ভেলায় ধানের বীজতলা তৈরির উদ্যোগ
বন্যা কবলিত এলাকায় সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় প্রস্তুত কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। তারা কলার ভেলায় আমন ধানের ৭০০টি ভাসমান বীজতলা তৈরি করার কর্মসূচি গ্রহণের উদ্যোগ নিয়েছে। এবছরই প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে এটা করা হচ্ছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ গোলাম মারুফ জানান, বর্তমানে বন্যায় ১৪টি জেলায় দণ্ডায়মান ফসলের জমি ডুবে গেছে। এর ফলে কৃষকদের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নেয়ার জন্য এবং আমন মৌসুমে আমন ধানের উৎপাদনের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগাম প্রস্তুতি হিসেবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হর্টিকালচার সেন্টার ও কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটসমূহে প্রয়োজনীয় আমন বীজতলা তৈরি করা হবে। সেই বীজতলার চারা দিয়ে কৃষকদের সহায়তা করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, এবছরই প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে ১৪টি জেলার  ৫৬টি উপজেলায় কলার ভেলায় ৭০০টি ভাসমান আমন বীজতলা তৈরি করার কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় রোপা আমন ধানের পর্যাপ্ত বীজ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের কাছে মজুদ রাখা আছে। এই বীজ বিতরণের ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার কৃষিবান্ধব। কৃষি মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সর্বদা কৃষকের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছে। অতিবৃষ্টি, ঝড়, বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, পাহাড়ি ঢলসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক বৈরি পরিবেশ মোকাবেলায় অব্যাহতভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে।’

বিডিপ্রেস/মিঠু

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

কলার ভেলায় ধানের বীজতলা তৈরির উদ্যোগ


কলার ভেলায় ধানের বীজতলা তৈরির উদ্যোগ

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ গোলাম মারুফ জানান, বর্তমানে বন্যায় ১৪টি জেলায় দণ্ডায়মান ফসলের জমি ডুবে গেছে। এর ফলে কৃষকদের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নেয়ার জন্য এবং আমন মৌসুমে আমন ধানের উৎপাদনের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগাম প্রস্তুতি হিসেবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হর্টিকালচার সেন্টার ও কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটসমূহে প্রয়োজনীয় আমন বীজতলা তৈরি করা হবে। সেই বীজতলার চারা দিয়ে কৃষকদের সহায়তা করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, এবছরই প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে ১৪টি জেলার  ৫৬টি উপজেলায় কলার ভেলায় ৭০০টি ভাসমান আমন বীজতলা তৈরি করার কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় রোপা আমন ধানের পর্যাপ্ত বীজ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের কাছে মজুদ রাখা আছে। এই বীজ বিতরণের ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার কৃষিবান্ধব। কৃষি মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সর্বদা কৃষকের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছে। অতিবৃষ্টি, ঝড়, বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, পাহাড়ি ঢলসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক বৈরি পরিবেশ মোকাবেলায় অব্যাহতভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে।’

বিডিপ্রেস/মিঠু

স্পটলাইট