BDpress

নৌকায় নিয়ে পোশাককর্মীকে দলবেঁধে ধর্ষণ

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
নৌকায় নিয়ে পোশাককর্মীকে দলবেঁধে ধর্ষণ
রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গাজীপুরের এক পোশাককর্মীকে নৌকায় ফেলে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ‘অভিযুক্ত’ চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বাইমাইল এলাকার বিলের মধ্যে নৌকায় ফেলে ওই পোশাককর্মীকে ধর্ষণ করা হয়।

শনিবার রাতে ও রোববার সকালে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন— গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ইটাহাটা এলাকার আব্দুস সামাদের ছেলে আরব আলী (৩২), গোপালগঞ্জের মধুপুর এলাকার আহম্মদ আলী মোল্লার ছেলে মনির হোসেন (৩৪), টাঙ্গাইলের কেশমমাইজার গ্রামের আব্দুল হালীমের ছেলে কাওসার আলী (২০) ও কুড়িগ্রামের ভুড়িঙ্গামারী থানার বড়তেরছড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন (৩০)।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সাখাওয়াৎ হোসেন জানান, ওই পোশাককর্মীর স্বামী অসুস্থ হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার সকালে চাকরির খোঁজে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় তার বোনের বাড়িতে আসেন। রাতে অটো-রিকশাযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। রাত ১০ টার দিকে বাইমাইল এলাকায় পৌঁছলে গ্রেফতাররা তাকে জোর করে অটো-রিকশা থেকে নামিয়ে মারধর করেন। এক পর্যায়ে তাকে একটি নৌকায় তুলে বিলের মধ্যে নির্জনস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। শুক্রবার ভোরে ভিকটিমকে ছেড়ে দেয়।

তিনি জানান, শনিবার সকালে কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে ওই নারী অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ শনিবার রাতে মনির হোসেন ও কাওসার আলীকে এবং রোববার সকালে মোফাজ্জল হোসেন ও আরব আলীকে কোনাবাড়ি এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।

ইন্সপেক্টর মোবারক হোসেন জানান, গ্রেফতাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

নৌকায় নিয়ে পোশাককর্মীকে দলবেঁধে ধর্ষণ


নৌকায় নিয়ে পোশাককর্মীকে দলবেঁধে ধর্ষণ

বৃহস্পতিবার রাতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বাইমাইল এলাকার বিলের মধ্যে নৌকায় ফেলে ওই পোশাককর্মীকে ধর্ষণ করা হয়।

শনিবার রাতে ও রোববার সকালে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন— গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ইটাহাটা এলাকার আব্দুস সামাদের ছেলে আরব আলী (৩২), গোপালগঞ্জের মধুপুর এলাকার আহম্মদ আলী মোল্লার ছেলে মনির হোসেন (৩৪), টাঙ্গাইলের কেশমমাইজার গ্রামের আব্দুল হালীমের ছেলে কাওসার আলী (২০) ও কুড়িগ্রামের ভুড়িঙ্গামারী থানার বড়তেরছড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন (৩০)।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সাখাওয়াৎ হোসেন জানান, ওই পোশাককর্মীর স্বামী অসুস্থ হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার সকালে চাকরির খোঁজে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় তার বোনের বাড়িতে আসেন। রাতে অটো-রিকশাযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। রাত ১০ টার দিকে বাইমাইল এলাকায় পৌঁছলে গ্রেফতাররা তাকে জোর করে অটো-রিকশা থেকে নামিয়ে মারধর করেন। এক পর্যায়ে তাকে একটি নৌকায় তুলে বিলের মধ্যে নির্জনস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। শুক্রবার ভোরে ভিকটিমকে ছেড়ে দেয়।

তিনি জানান, শনিবার সকালে কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে ওই নারী অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ শনিবার রাতে মনির হোসেন ও কাওসার আলীকে এবং রোববার সকালে মোফাজ্জল হোসেন ও আরব আলীকে কোনাবাড়ি এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।

ইন্সপেক্টর মোবারক হোসেন জানান, গ্রেফতাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিডিপ্রেস/আরজে

স্পটলাইট