BDpress

ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দলীয় শৃংখলা ও গঠনতন্ত্র বিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগ। শনিবার দুপুরে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী হেদায়েতউল্যাহ সাকলায়েন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দলীয় গঠনতন্ত্র উপেক্ষা করে জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে বহিষ্কার করেন। যা কোন মতেই দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক করা হয়নি। একটি পক্ষকে খুশি করতে এবং আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভরাডুবি ঘটাতেই সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। 

কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের উদ্বৃতি দিয়ে কাজী সাকলায়েন বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি ছাড়া জেলা কমিটি কাউকে বহিষ্কার করতে পারবে না। ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফায়জুর রহমান বলেন, গত ১ মার্চ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি সারাদেশে আওয়ামী লীগের সকল জেলা, উপজেলা ও পৌর কমিটিকে একটি চিঠি প্রেরণ করেছেন। যেখানে তিনি বলেছেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্য নির্বাহী সংসদের অনুমতি ব্যতিত কোন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা শাখার কমিটি ভাঙ্গা বা বিলুপ্ত করা যাবে না। অথচ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সম্পূর্ণ অগঠনতান্ত্রিকভাবে আমাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।  

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান।
এছাড়া ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১১ নভেম্বর ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন এক চিঠিতে জানান, দল বিরোধী কর্মকাণ্ড এবং দুর্নীতির প্রমাণ হওয়ায় ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী হেদায়েতউল্যাহ সাকলায়েন এবং সাধারণ সম্পাদক ফায়জুর রহমানকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

বিডিপ্রেস/আলী


 

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দলীয় গঠনতন্ত্র উপেক্ষা করে জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে বহিষ্কার করেন। যা কোন মতেই দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক করা হয়নি। একটি পক্ষকে খুশি করতে এবং আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভরাডুবি ঘটাতেই সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। 

কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের উদ্বৃতি দিয়ে কাজী সাকলায়েন বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি ছাড়া জেলা কমিটি কাউকে বহিষ্কার করতে পারবে না। ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফায়জুর রহমান বলেন, গত ১ মার্চ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি সারাদেশে আওয়ামী লীগের সকল জেলা, উপজেলা ও পৌর কমিটিকে একটি চিঠি প্রেরণ করেছেন। যেখানে তিনি বলেছেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্য নির্বাহী সংসদের অনুমতি ব্যতিত কোন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা শাখার কমিটি ভাঙ্গা বা বিলুপ্ত করা যাবে না। অথচ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সম্পূর্ণ অগঠনতান্ত্রিকভাবে আমাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।  

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান।
এছাড়া ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১১ নভেম্বর ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন এক চিঠিতে জানান, দল বিরোধী কর্মকাণ্ড এবং দুর্নীতির প্রমাণ হওয়ায় ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী হেদায়েতউল্যাহ সাকলায়েন এবং সাধারণ সম্পাদক ফায়জুর রহমানকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

বিডিপ্রেস/আলী