BDpress

এক বিষয়ের পরীক্ষায় আরেক বিষয়ের প্রশ্ন

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
এক বিষয়ের পরীক্ষায় আরেক বিষয়ের প্রশ্ন
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা চলছে। রোববার ১৬টি বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। মদন মোহন কলেজ সব কিছু ঠিকঠাকভাবে হলেও বিপত্তি দেখা দেখা দেয় বাংলা বিষয়ের বিশেষ (অনিয়মিত) পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে।

যথারীতি অনুয়মিত শিক্ষার্থীরাও রোববার দুপুরে পরীক্ষা হলে প্রবেশ করেন। তবে আজকের পরীক্ষার বদলে তাদের প্রদান করা হয় ২৩ তারিখের পরীক্ষার প্রশ্ন। এতে পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে হট্টগোল লেগে যায়। শিক্ষকরাও হতভম্ব হয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পরই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থকে রোববারের পরীক্ষা বাতিলের ঘোষণা আসে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এ পরীক্ষায় নগরের মদন মোহন কলেজ কেন্দ্র থেকে পরীক্ষায় অংশ নেয়া এক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা একটি বিষয়ের জন্য পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে গেছি। পরীক্ষা হলে গিয়ে দেখি আরেকটি বিষয়ের প্রশ্ন প্রদান করা হয়েছে। এতে বাংলা বিভাগের সব শিক্ষার্থী ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। পরীক্ষা হলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

তিনি বলেন, অনিয়মিত শিক্ষার্থী হওয়ায় এমনিতেই পিছিয়ে আছি আমরা। পরীক্ষা বাতিল হওয়ায় আরও পিছিয়ে গেলাম।

এ ব্যাপারে মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ বলেন, সারাদেশেই এ সমস্যা হয়েছে। প্রশ্নপত্রের খামের ওপর ভুল কোড নম্বর লেখার কারণে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের একজন প্রতিনিধি ট্রেজারি থেকে প্রশ্ন নিয়ে আসেন। প্রশ্নপত্রের খামের ওপরে কোড নম্বর ৭২ লেখা ছিল। এ বিষয়েই আজ বাংলা বিভাগের বিশেষ পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা হওয়ার কথা। কিন্তু খাম খোলার পর দেখা যায় প্রশ্নের গায়ে কোড নম্বর ৭৩ লেখা। এ বিষয়ের পরীক্ষা ২৩ নভেম্বর হওয়ার কথা।

তিনি বলেন, সঙ্গে সঙ্গেই আমরা বিষয়টি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও জেলা প্রশাসককে অবহিত করি। এর কিছুক্ষণ পরই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ই-মেইলের মাধ্যমে আজকের পরীক্ষা বাতিল করার কথা জানানো হয়।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

এক বিষয়ের পরীক্ষায় আরেক বিষয়ের প্রশ্ন


এক বিষয়ের পরীক্ষায় আরেক বিষয়ের প্রশ্ন

যথারীতি অনুয়মিত শিক্ষার্থীরাও রোববার দুপুরে পরীক্ষা হলে প্রবেশ করেন। তবে আজকের পরীক্ষার বদলে তাদের প্রদান করা হয় ২৩ তারিখের পরীক্ষার প্রশ্ন। এতে পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে হট্টগোল লেগে যায়। শিক্ষকরাও হতভম্ব হয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পরই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থকে রোববারের পরীক্ষা বাতিলের ঘোষণা আসে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এ পরীক্ষায় নগরের মদন মোহন কলেজ কেন্দ্র থেকে পরীক্ষায় অংশ নেয়া এক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা একটি বিষয়ের জন্য পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে গেছি। পরীক্ষা হলে গিয়ে দেখি আরেকটি বিষয়ের প্রশ্ন প্রদান করা হয়েছে। এতে বাংলা বিভাগের সব শিক্ষার্থী ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। পরীক্ষা হলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

তিনি বলেন, অনিয়মিত শিক্ষার্থী হওয়ায় এমনিতেই পিছিয়ে আছি আমরা। পরীক্ষা বাতিল হওয়ায় আরও পিছিয়ে গেলাম।

এ ব্যাপারে মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ বলেন, সারাদেশেই এ সমস্যা হয়েছে। প্রশ্নপত্রের খামের ওপর ভুল কোড নম্বর লেখার কারণে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের একজন প্রতিনিধি ট্রেজারি থেকে প্রশ্ন নিয়ে আসেন। প্রশ্নপত্রের খামের ওপরে কোড নম্বর ৭২ লেখা ছিল। এ বিষয়েই আজ বাংলা বিভাগের বিশেষ পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা হওয়ার কথা। কিন্তু খাম খোলার পর দেখা যায় প্রশ্নের গায়ে কোড নম্বর ৭৩ লেখা। এ বিষয়ের পরীক্ষা ২৩ নভেম্বর হওয়ার কথা।

তিনি বলেন, সঙ্গে সঙ্গেই আমরা বিষয়টি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও জেলা প্রশাসককে অবহিত করি। এর কিছুক্ষণ পরই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ই-মেইলের মাধ্যমে আজকের পরীক্ষা বাতিল করার কথা জানানো হয়।

বিডিপ্রেস/আরজে