BDpress

নকল সরবরাহ, রাজশাহীতে প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
নকল সরবরাহ, রাজশাহীতে প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার
রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক একেএম শামসুল আরেফিনকে (৪২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার আমগ্রাম সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। রবিবার দুর্গাপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে তিনি দুটি কক্ষে পরিদর্শকের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

পরীক্ষা কেন্দ্রের ইনচার্জ উপজেলা মৎস কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, পিইসি পরীক্ষা প্রথমদিন রবিবার কেন্দ্রের দুটি কক্ষের পরিদর্শকের দায়িত্বে ছিলেন শামসুল আরেফিন। দুপুরের দিকে তিনি শিক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করছিলেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে চ্যালেঞ্জ করা হয়। এ সময় তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। পরে দায়িত্বরত পুলিশ এবং কেন্দ্র সচিবের উপস্থিতিতে তার প্যান্টের পকেটে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় তার কাছে হলে ইংরেজী প্রথমপত্রের একটি কাগজ পাওয়া যায়। ওই কাগজে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর লেখা ছিল। এরপর বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়। এ সময় তিনি ওই পরিদর্শককে আটকের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন। পরে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

দুর্গাপুর থানার ওসি রুহুল আলম জানান, এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব ফরিদা ইয়াসমিন বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক শামসুল আরেফিনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। সোমবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে দুর্গাপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, শিক্ষক শামসুল আরেফিনের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ গুরুতর। পুলিশের পাশাপাশি তারাও বিষয়টির বিভাগীয় তদন্ত করবেন। এরপর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডিপ্রেস/মিঠু

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

নকল সরবরাহ, রাজশাহীতে প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার


নকল সরবরাহ, রাজশাহীতে প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার

পরীক্ষা কেন্দ্রের ইনচার্জ উপজেলা মৎস কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, পিইসি পরীক্ষা প্রথমদিন রবিবার কেন্দ্রের দুটি কক্ষের পরিদর্শকের দায়িত্বে ছিলেন শামসুল আরেফিন। দুপুরের দিকে তিনি শিক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করছিলেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে চ্যালেঞ্জ করা হয়। এ সময় তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। পরে দায়িত্বরত পুলিশ এবং কেন্দ্র সচিবের উপস্থিতিতে তার প্যান্টের পকেটে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় তার কাছে হলে ইংরেজী প্রথমপত্রের একটি কাগজ পাওয়া যায়। ওই কাগজে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর লেখা ছিল। এরপর বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়। এ সময় তিনি ওই পরিদর্শককে আটকের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন। পরে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

দুর্গাপুর থানার ওসি রুহুল আলম জানান, এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব ফরিদা ইয়াসমিন বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক শামসুল আরেফিনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। সোমবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে দুর্গাপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, শিক্ষক শামসুল আরেফিনের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ গুরুতর। পুলিশের পাশাপাশি তারাও বিষয়টির বিভাগীয় তদন্ত করবেন। এরপর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডিপ্রেস/মিঠু