BDpress

বাংলা টিভির বিপক্ষে চেক জালিয়াতির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
বাংলা টিভির বিপক্ষে চেক জালিয়াতির অভিযোগ
বাংলা টিভির বিপক্ষে চেক জালিয়াতির অভিযোগে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন নির্মাতা সিমিত রায় অন্তর। গত জুন মাসে চ্যানেলটির উদ্বোধনী নাটক হিসেবে প্রচার হওয়া ‘উঠান’ বাবদ তাকে দেওয়া দ্বিতীয় কিস্তির চেক বেশ কয়েকবার ব্যাংক থেকে ফেরত আসায় তিনি আইনি ব্যবস্থা নিলেন।

অন্তর সোমবার ডটকমকে বলেন, “উঠান’ ক্রয়বাবদ দ্বিতীয় কিস্তির চেকের টাকা তুলতে পারছি না। চুক্তিমতে নাটক অনএয়ারের ১৫ দিনের মধ্যে টাকা পরিশোধ করার কথা থাকলেও অনেক ঘোরাঘুরির পর তারা গত জুন মাসে অগ্রীম তারিখে ১৮ জুলাই, ২০১৭ তারিখের চেক  দেয়। কিন্তু যা গত পাঁচ মাসেও পাশ হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে বারবার বাংলা টিভির ডিরেক্টর শান্তনু ও এমডি সামাদ সাহেবের সাথে কথা বললে তারা শুধু এই সপ্তাহে হয়ে যাবে, মাসের শেষে হয়ে যাবে বলে ঘুরায়। একপর্যায়ে এমডি ফোন রিসিভ করা বন্ধ করে দেয় এবং ডিরেক্টরও মেসেজ সিন করে নিরুত্তর থাকেন।’

অন্তর আরও বলেন, ‘চেকের মেয়াদ সামনের জানুয়ারিতে শেষ হয়ে যাবে। তাই উপায়ন্তর না দেখে বাধ্য হয়ে ৯ নভেম্বর এমডি ও ডিরেক্টর বরাবর উকিল নোটিশ পাঠিয়েছি। নোটিশ পাঠানোর এক মাসের মধ্যে তারা টাকা পরিশোধ না করলে চেক জালিয়াতির মামলা করবো ক্ষতিপূরণসহ।  কারণ অনেক লসে নাটকটি বাংলা টিভিতে দিয়েছিলাম শুধুমাত্র ভবিষ্যতে তাদের সাথে আরো কাজ করার আশায়। কিন্তু তা তো হলোই না, বরং যথাসময়ে টাকা না দেয়ায় আমি ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি।’

এ ব্যাপারে বাংলা টিভির পরিচালক মীর শামস শান্তনু বলেন, ‘সিমিত রায় অন্তরের সাথে আমাদের কথাবার্তা চলছে নিয়মিত। আমরা তাকে টাকাটা অতি শিগগির দিয়ে দেবো।’

শান্তনু জানান, অনএয়ার বাবদ টাকা পরিশোধ করা না হলেও ইউটিউব রাইট দেওয়া হয়েছে সিমিত রায় অন্তরকে। ব্যাপারটি স্বীকার করেছেন অন্তর।

উকিল নোটিশ পাওয়ার ব্যাপারে বাংলা টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামাদুল হক বলেন, ‘যেহেতু বিষয়টি এখন আইনি পর্যায়ে গেছে এখন আমি এ ব্যাপারে কোনো বক্তব্য দিতে পারব না।’

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

বাংলা টিভির বিপক্ষে চেক জালিয়াতির অভিযোগ


বাংলা টিভির বিপক্ষে চেক জালিয়াতির অভিযোগ

অন্তর সোমবার ডটকমকে বলেন, “উঠান’ ক্রয়বাবদ দ্বিতীয় কিস্তির চেকের টাকা তুলতে পারছি না। চুক্তিমতে নাটক অনএয়ারের ১৫ দিনের মধ্যে টাকা পরিশোধ করার কথা থাকলেও অনেক ঘোরাঘুরির পর তারা গত জুন মাসে অগ্রীম তারিখে ১৮ জুলাই, ২০১৭ তারিখের চেক  দেয়। কিন্তু যা গত পাঁচ মাসেও পাশ হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে বারবার বাংলা টিভির ডিরেক্টর শান্তনু ও এমডি সামাদ সাহেবের সাথে কথা বললে তারা শুধু এই সপ্তাহে হয়ে যাবে, মাসের শেষে হয়ে যাবে বলে ঘুরায়। একপর্যায়ে এমডি ফোন রিসিভ করা বন্ধ করে দেয় এবং ডিরেক্টরও মেসেজ সিন করে নিরুত্তর থাকেন।’

অন্তর আরও বলেন, ‘চেকের মেয়াদ সামনের জানুয়ারিতে শেষ হয়ে যাবে। তাই উপায়ন্তর না দেখে বাধ্য হয়ে ৯ নভেম্বর এমডি ও ডিরেক্টর বরাবর উকিল নোটিশ পাঠিয়েছি। নোটিশ পাঠানোর এক মাসের মধ্যে তারা টাকা পরিশোধ না করলে চেক জালিয়াতির মামলা করবো ক্ষতিপূরণসহ।  কারণ অনেক লসে নাটকটি বাংলা টিভিতে দিয়েছিলাম শুধুমাত্র ভবিষ্যতে তাদের সাথে আরো কাজ করার আশায়। কিন্তু তা তো হলোই না, বরং যথাসময়ে টাকা না দেয়ায় আমি ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি।’

এ ব্যাপারে বাংলা টিভির পরিচালক মীর শামস শান্তনু বলেন, ‘সিমিত রায় অন্তরের সাথে আমাদের কথাবার্তা চলছে নিয়মিত। আমরা তাকে টাকাটা অতি শিগগির দিয়ে দেবো।’

শান্তনু জানান, অনএয়ার বাবদ টাকা পরিশোধ করা না হলেও ইউটিউব রাইট দেওয়া হয়েছে সিমিত রায় অন্তরকে। ব্যাপারটি স্বীকার করেছেন অন্তর।

উকিল নোটিশ পাওয়ার ব্যাপারে বাংলা টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামাদুল হক বলেন, ‘যেহেতু বিষয়টি এখন আইনি পর্যায়ে গেছে এখন আমি এ ব্যাপারে কোনো বক্তব্য দিতে পারব না।’

বিডিপ্রেস/আরজে