BDpress

৩৯ বছরে ইবি

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
৩৯ বছরে ইবি
বুধবার ৩৯তম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) দিবস। ১৯৭৯ সালের ২২ নভেম্বর কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ শহরের মধ্যবর্তী স্থান শান্তিডাঙ্গা-দুলালপুরে মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বে প্রতিষ্ঠিত হয় বিশ্ববিদ্যালয়টি।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি উচ্চশিক্ষা বিস্তারের কাণ্ডারীর ভূমিকা পালন করে আসছে। এটি স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। সময়ের ধারাবাহিকতায় ৩৮ কে পেছনে ফেলে নানা প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির মাঝে ৩৯ বছরে পদার্পণ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের। 

দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে ১৯৭৬ সালের ১ ডিসেম্বর তৎকালীন সরকার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন। এরপর ১৯৭৭ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ভিসি এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এম এ বারীকে সভাপতি করে সাত সদস্য বিশিষ্ট ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় পরিকল্পনা কমিটি গঠন করা হয়। পরিকল্পনা কমিটি ৩টি অনুষদ, ১৮টি বিভাগ, ৩টি ইনিস্টিটিউট ও একটি স্কুল প্রতিষ্ঠার সুপারিশ করেন। আর্ন্তজাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় হওয়ার কথা থাকলেও পরবর্তীতে নানা প্রতিকূলতা ও সীমাবদ্ধতার কারণে তা আর হয়ে ওঠেনি।

বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫টি অনুষদ, ৩৩টি বিভাগ, একটি ইনিস্টিটিউট এবং একটি ল্যাবরেটারি স্কুল রয়েছে। এর অধীনে রয়েছে প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষার্থী, ৩৫৬ জন শিক্ষক, সাড়ে ৩৯৭ জন কর্মকর্তা এবং প্রায় ৬০০ কর্মচারী।

এ পর্যন্ত প্রায় দুই হাজার জনকে এম.ফিল ও পি.এইচ.ডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়েছে। ১৭৫ একরের এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ২টি প্রশাসনিক ভবন, চিকিৎসা কেন্দ্র, দেশের ৩য় বৃহত্তম মসজিদ, এছাড়াও রয়েছে একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অত্যাধুনিক বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমান মিলনায়তন, সমৃদ্ধ ও আধুনিক লাইব্রেরী, ভিসির বাংলো, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আবাসিক কোয়ার্টার, ছেলেদের জন্য রয়েছে ৪টি, মেয়েদের জন্য ৩টি আবাসিক হল। ছেলেদের জন্য শেখ রাসেল নামে আরো ১টি আবাসিক হল নির্মাণাধীন রয়েছে। এছাড়া এখানে রয়েছে ক্যাম্পাসভিত্তিক বৃহত্তম শহীদ মিনার, মুক্তবাংলা এবং স্মৃতিসৌধ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট ১২ জন উপাচার্য দায়িত্ব পালন করছেন। প্রথম ভিসি ড.এ.এন.এ. মমতাজ উদ্দিন চৌধুরী এবং বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী। 

বিডিপ্রেস/আলী



এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

৩৯ বছরে ইবি


৩৯ বছরে ইবি

প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি উচ্চশিক্ষা বিস্তারের কাণ্ডারীর ভূমিকা পালন করে আসছে। এটি স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। সময়ের ধারাবাহিকতায় ৩৮ কে পেছনে ফেলে নানা প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির মাঝে ৩৯ বছরে পদার্পণ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের। 

দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে ১৯৭৬ সালের ১ ডিসেম্বর তৎকালীন সরকার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন। এরপর ১৯৭৭ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ভিসি এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এম এ বারীকে সভাপতি করে সাত সদস্য বিশিষ্ট ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় পরিকল্পনা কমিটি গঠন করা হয়। পরিকল্পনা কমিটি ৩টি অনুষদ, ১৮টি বিভাগ, ৩টি ইনিস্টিটিউট ও একটি স্কুল প্রতিষ্ঠার সুপারিশ করেন। আর্ন্তজাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় হওয়ার কথা থাকলেও পরবর্তীতে নানা প্রতিকূলতা ও সীমাবদ্ধতার কারণে তা আর হয়ে ওঠেনি।

বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫টি অনুষদ, ৩৩টি বিভাগ, একটি ইনিস্টিটিউট এবং একটি ল্যাবরেটারি স্কুল রয়েছে। এর অধীনে রয়েছে প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষার্থী, ৩৫৬ জন শিক্ষক, সাড়ে ৩৯৭ জন কর্মকর্তা এবং প্রায় ৬০০ কর্মচারী।

এ পর্যন্ত প্রায় দুই হাজার জনকে এম.ফিল ও পি.এইচ.ডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়েছে। ১৭৫ একরের এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ২টি প্রশাসনিক ভবন, চিকিৎসা কেন্দ্র, দেশের ৩য় বৃহত্তম মসজিদ, এছাড়াও রয়েছে একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অত্যাধুনিক বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমান মিলনায়তন, সমৃদ্ধ ও আধুনিক লাইব্রেরী, ভিসির বাংলো, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আবাসিক কোয়ার্টার, ছেলেদের জন্য রয়েছে ৪টি, মেয়েদের জন্য ৩টি আবাসিক হল। ছেলেদের জন্য শেখ রাসেল নামে আরো ১টি আবাসিক হল নির্মাণাধীন রয়েছে। এছাড়া এখানে রয়েছে ক্যাম্পাসভিত্তিক বৃহত্তম শহীদ মিনার, মুক্তবাংলা এবং স্মৃতিসৌধ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট ১২ জন উপাচার্য দায়িত্ব পালন করছেন। প্রথম ভিসি ড.এ.এন.এ. মমতাজ উদ্দিন চৌধুরী এবং বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী। 

বিডিপ্রেস/আলী