BDpress

৩০ ডিসেম্বরের আগে সরকারি স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
৩০ ডিসেম্বরের আগে সরকারি স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে হবে
জেলা পর্যায়ে সরকারি মাধ্যমিক স্কুলে ভর্তি কার্যক্রমের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। মহানগরের ৩৫ স্কুলে আবেদনের সময়সীমা ১-১৪ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হলেও মফস্বল পর্যায়ে এ সময় বাড়ানো হয়েছে। তবে ৩০ ডিসেম্বরের আগে সব মাধ্যমিক সরকারি স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে বলা হয়েছে। পহেলা জানুয়ারি থেকে স্কুল শুরুর লক্ষ্য নিয়ে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করার এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতের (মাউশি) আয়োজিত ভর্তি কমিটির এক সভায় ঢাকার বাইরের স্কুলগুলোতে ভর্তি সংক্রান্ত বিষয়ে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাঠ্যপুস্তকের বাইরে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন না করতে সকল শিক্ষকদের সর্তক করা হয়েছে।

সভা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা মহানগরের সরকারি মাধ্যমিক স্কুলে আগামী পহেলা ডিসেম্বর থেকে আবেদন শুরু হবে। চলবে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। প্রথম শ্রেণির ভর্তি লটারি ২৬ ডিসেম্বর আয়োজন করা হবে। ২য় থেকে ৮ম শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা চলবে ১৯ থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ৩০ ডিসেম্বর ফলাফল প্রকাশ করা হবে। তার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে মফস্বলের স্কুলগুলো ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে। কেউ চাইলে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে সমন্বয় করে উল্লেখিত সময়ের আগে-পরে ফরম বিক্রি, প্রথম শ্রেণির লাটারি ও ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করতে পারবে। তবে ৩০ তারিখের মধ্যে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৮ শিক্ষাবর্ষে গতবারের মতো এবারও মহানগরের ৩৫টি সরকারি বিদ্যালয়কে ‘এ’ ‘বি’ ও ‘সি’ এই তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে ১৩টি, ‘বি’ ক্যাটাগরিতে ১২টি ও ‘সি’ ক্যাটাগরিতে ১২টি বিদ্যালয় রয়েছে। তবে ঢাকার বাইরের স্কুলগুলোকে ক্যাটাগরির আওতায় আনা হয়নি। তবে সকল স্কুলের আবেদন অনলাইনে সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সকল স্কুলে একযোগে অনলাইন আবেদন কার্যক্রম ১ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে। আবেদন ফি ২০ টাকা বৃদ্ধি করে ১৭০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। টেলিটকের মাধ্যমে আবেদন ফি পরিশোধ করতে হবে। আবেদনপত্র পাওয়া যাবে এই (www.dshe.gov.bd) ঠিকানায়।

জানা গেছে, ২য় থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২য় থেকে ৩য় শ্রেণিতে বাংলা, ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে ৫০ নম্বর ও ৪র্থ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা হবে। ভর্তি সংক্রান্ত সকল বিষয় একটি মূল ও তিনটি নির্ধারিত সাব-কমিটি চারটি কমিটি মনিটরিং করবে। ৩০ ডিসেম্বর সকল পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। আগামী পহেলা জানুয়ারি থেকে সকল শ্রেণির ক্লাস কার্যক্রম শুরু হবে।

সভায় উপস্থিত মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের বিদ্যালয় শাখার পরিচালক ড. মো. আবদুল মান্নান বলেন, ঢাকা ও ঢাকার বাইরের সরকারি স্কুলগুলোতে ভর্তি পরীক্ষা ও লটারির সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ভর্তি কমিটির উপস্থিতিতে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে। সাতটি অঞ্চলের প্রধান শিক্ষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, যেহেতু পহেলা জানুয়ারি জাতীয় পাঠ্যপুস্তক উৎসব আয়োজিত হবে। তাই ৩০ ডিসেম্বরের আগে ভর্তি সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম শেষ করতে বলা হয়েছে। আমরা সবাইকে বারবার সর্তক করেছি ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন পাঠ্যপুস্তরের মধ্যে থেকে নির্বাচন করতে হবে। এর ব্যতিক্রম হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, সারা দেশে ৩৩৯টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। তার মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে রয়েছে ৩৫টি বিদ্যালয়। সম্প্রতি জাতীয়করণ হওয়া ১২টি মডেল কলেজ এবার এর আওতাভুক্ত হচ্ছে না।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

৩০ ডিসেম্বরের আগে সরকারি স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে হবে


৩০ ডিসেম্বরের আগে সরকারি স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম শেষ করতে হবে

বৃহস্পতিবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতের (মাউশি) আয়োজিত ভর্তি কমিটির এক সভায় ঢাকার বাইরের স্কুলগুলোতে ভর্তি সংক্রান্ত বিষয়ে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাঠ্যপুস্তকের বাইরে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন না করতে সকল শিক্ষকদের সর্তক করা হয়েছে।

সভা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা মহানগরের সরকারি মাধ্যমিক স্কুলে আগামী পহেলা ডিসেম্বর থেকে আবেদন শুরু হবে। চলবে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। প্রথম শ্রেণির ভর্তি লটারি ২৬ ডিসেম্বর আয়োজন করা হবে। ২য় থেকে ৮ম শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা চলবে ১৯ থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ৩০ ডিসেম্বর ফলাফল প্রকাশ করা হবে। তার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে মফস্বলের স্কুলগুলো ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে। কেউ চাইলে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে সমন্বয় করে উল্লেখিত সময়ের আগে-পরে ফরম বিক্রি, প্রথম শ্রেণির লাটারি ও ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করতে পারবে। তবে ৩০ তারিখের মধ্যে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৮ শিক্ষাবর্ষে গতবারের মতো এবারও মহানগরের ৩৫টি সরকারি বিদ্যালয়কে ‘এ’ ‘বি’ ও ‘সি’ এই তিনটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে ১৩টি, ‘বি’ ক্যাটাগরিতে ১২টি ও ‘সি’ ক্যাটাগরিতে ১২টি বিদ্যালয় রয়েছে। তবে ঢাকার বাইরের স্কুলগুলোকে ক্যাটাগরির আওতায় আনা হয়নি। তবে সকল স্কুলের আবেদন অনলাইনে সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সকল স্কুলে একযোগে অনলাইন আবেদন কার্যক্রম ১ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে। আবেদন ফি ২০ টাকা বৃদ্ধি করে ১৭০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। টেলিটকের মাধ্যমে আবেদন ফি পরিশোধ করতে হবে। আবেদনপত্র পাওয়া যাবে এই (www.dshe.gov.bd) ঠিকানায়।

জানা গেছে, ২য় থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২য় থেকে ৩য় শ্রেণিতে বাংলা, ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে ৫০ নম্বর ও ৪র্থ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা হবে। ভর্তি সংক্রান্ত সকল বিষয় একটি মূল ও তিনটি নির্ধারিত সাব-কমিটি চারটি কমিটি মনিটরিং করবে। ৩০ ডিসেম্বর সকল পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। আগামী পহেলা জানুয়ারি থেকে সকল শ্রেণির ক্লাস কার্যক্রম শুরু হবে।

সভায় উপস্থিত মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের বিদ্যালয় শাখার পরিচালক ড. মো. আবদুল মান্নান বলেন, ঢাকা ও ঢাকার বাইরের সরকারি স্কুলগুলোতে ভর্তি পরীক্ষা ও লটারির সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ভর্তি কমিটির উপস্থিতিতে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে। সাতটি অঞ্চলের প্রধান শিক্ষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, যেহেতু পহেলা জানুয়ারি জাতীয় পাঠ্যপুস্তক উৎসব আয়োজিত হবে। তাই ৩০ ডিসেম্বরের আগে ভর্তি সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম শেষ করতে বলা হয়েছে। আমরা সবাইকে বারবার সর্তক করেছি ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন পাঠ্যপুস্তরের মধ্যে থেকে নির্বাচন করতে হবে। এর ব্যতিক্রম হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, সারা দেশে ৩৩৯টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। তার মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে রয়েছে ৩৫টি বিদ্যালয়। সম্প্রতি জাতীয়করণ হওয়া ১২টি মডেল কলেজ এবার এর আওতাভুক্ত হচ্ছে না।

বিডিপ্রেস/আরজে