BDpress

‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’

বিনোদন ডেস্ক

অ+ অ-
‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’
বিয়ের পিঁড়িতে বসতে পারেননি মেহজাবিন। তার আগেই ধর্ষণের মতো অনাকাঙ্ক্ষিত অঘটনে থমকে যায় তার জীবন। বিয়ের সানাইয়ের সুর নয়, প্রবল হতাশা আর আত্মহননের পথ তাকে গ্রাস করে। তারপর বিপুল আত্মপ্রত্যয়ে ঘুরে দাঁড়ানো যুদ্ধে অবতীর্ণ হন তিনি। এক সময়ের সহপাঠী বিথী আপা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।

ঘটনাক্রমে তার পরিচয় হয় বিথী আপার পূর্বপরিচিত সজলের সঙ্গে। ভয়াল অতীতকে পেছনে ফেলে আগামীকে সুন্দর করে সাজানোর জন্য মেহজাবিনকে সঙ্গী হিসেবে পেতে চান তূর্য। এমন গল্পে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’।

নাটকটিতে অনামিকা চরিত্রে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন। নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন ড. তৌফিক এলাহী।

মেহজাবিন, সজল, সুষমা সরকার ছাড়াও অভিনয় করেছেন শেলি আহসান, খালেকুজ্জামান, নিকুল কুমার প্রমুখ।

শিগগির নাটকটি একটি চ্যানেলে প্রচারিত হবে বলে জানান নির্মাতা ড. তৌফিক এলাহী।

তিনি সকল ধর্ষিতা নারীদের উৎসর্গ করেছেন নাটকটি। তার ভাষ্য, ‘হরহামেশাই দেখা যায় ধর্ষণের শিকার মফস্বলের মেয়েরা লজ্জায় অপমানে আত্মহত্যার পথে বেছে নেয়। ধর্ষণ একটি নারী নির্যাতিন এবং নির্যাতনকারীদের বিচারের জন্য কঠোর আইন আছে। আত্মহত্যায় অনুৎসাহিত করে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিতের লক্ষ্যে নির্মাণ করা হয়েছে অনামিকার নীল উপাধ্যায়।’

মেহজাবিন নাটকটি নিয়ে বলেন, ‘এই চরিত্রটি আমার জন্য একেবারেই নতুন। ধর্ষিতার চরিত্রে অভিনয় করা আমার জন্য অনেক অনেক চ্যালেঞ্জিং ছিল। অভিনয় দিয়ে নিজের সেরাটা উপস্থাপন করতে শতভাগ চেষ্টা করেছি।’

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’


‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’

ঘটনাক্রমে তার পরিচয় হয় বিথী আপার পূর্বপরিচিত সজলের সঙ্গে। ভয়াল অতীতকে পেছনে ফেলে আগামীকে সুন্দর করে সাজানোর জন্য মেহজাবিনকে সঙ্গী হিসেবে পেতে চান তূর্য। এমন গল্পে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’।

নাটকটিতে অনামিকা চরিত্রে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন। নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন ড. তৌফিক এলাহী।

মেহজাবিন, সজল, সুষমা সরকার ছাড়াও অভিনয় করেছেন শেলি আহসান, খালেকুজ্জামান, নিকুল কুমার প্রমুখ।

শিগগির নাটকটি একটি চ্যানেলে প্রচারিত হবে বলে জানান নির্মাতা ড. তৌফিক এলাহী।

তিনি সকল ধর্ষিতা নারীদের উৎসর্গ করেছেন নাটকটি। তার ভাষ্য, ‘হরহামেশাই দেখা যায় ধর্ষণের শিকার মফস্বলের মেয়েরা লজ্জায় অপমানে আত্মহত্যার পথে বেছে নেয়। ধর্ষণ একটি নারী নির্যাতিন এবং নির্যাতনকারীদের বিচারের জন্য কঠোর আইন আছে। আত্মহত্যায় অনুৎসাহিত করে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিতের লক্ষ্যে নির্মাণ করা হয়েছে অনামিকার নীল উপাধ্যায়।’

মেহজাবিন নাটকটি নিয়ে বলেন, ‘এই চরিত্রটি আমার জন্য একেবারেই নতুন। ধর্ষিতার চরিত্রে অভিনয় করা আমার জন্য অনেক অনেক চ্যালেঞ্জিং ছিল। অভিনয় দিয়ে নিজের সেরাটা উপস্থাপন করতে শতভাগ চেষ্টা করেছি।’

বিডিপ্রেস/আরজে