BDpress

রাজধানীর যে রাস্তাগুলো আজ এড়িয়ে চলবেন

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
রাজধানীর যে রাস্তাগুলো আজ এড়িয়ে চলবেন
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে’ অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতিতে দেশব্যাপী আজ বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে।

রাজধানীর আনন্দ র‌্যালিতে যোগ দেওয়া লাখো মানুষের পদচারণায় জনসমুদ্রে রূপ নেবে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান।আনন্দ শোভাযাত্রা কোথা থেকে শুরু হয়ে কোন পথ দিয়ে যাবে তার দিকনির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

রাজধানীতে শনিবার দুপুর ১২টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হবে। পরে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের উদ্দেশে আনন্দ শোভাযাত্রা শুরু হবে। শোভাযাত্রাটি রাসেল স্কয়ার, কলাবাগান, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, এলিফ্যান্ট রোড, শাহবাগ হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এসে সমবেত হবে।

ডিএমপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শোভাযাত্রাটি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর থেকে শুরু হয়ে মিরপুর রোডের রাসেল স্কয়ার ক্রসিং হয়ে কলাবাগান দিয়ে সায়েন্সল্যাব থেকে বাঁয়ে মোড় নেবে। এরপর বাটা সিগন্যাল-কাঁটাবন ক্রসিং হয়ে শাহবাগ থেকে ডানে মোড় নিয়ে ছবির হাট হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢুকবে। ছবির হাট ছাড়াও টিএসসি, বাংলা একাডেমির সামনে ও কালি মন্দির গেইট দিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ করা যাবে। এ সময় নগরবাসীকে ট্রাফিক পুলিশের রুট ম্যাপ দেখে চলাচলের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা অবিস্মরণীয় গৌরবের এক অনন্য দিন।
সুদীর্ঘকালের আপসহীন আন্দোলনের এক পর্যায়ে ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক উত্তাল জনসমুদ্রে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম’ বঙ্গবন্ধুর এই তেজোদৃপ্ত ঘোষণাই ছিল প্রকৃতপক্ষে আমাদের স্বাধীনতার ভিত্তি।
বিডিপ্রেস/আলী


এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

রাজধানীর যে রাস্তাগুলো আজ এড়িয়ে চলবেন


রাজধানীর যে রাস্তাগুলো আজ এড়িয়ে চলবেন

রাজধানীর আনন্দ র‌্যালিতে যোগ দেওয়া লাখো মানুষের পদচারণায় জনসমুদ্রে রূপ নেবে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান।আনন্দ শোভাযাত্রা কোথা থেকে শুরু হয়ে কোন পথ দিয়ে যাবে তার দিকনির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

রাজধানীতে শনিবার দুপুর ১২টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হবে। পরে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের উদ্দেশে আনন্দ শোভাযাত্রা শুরু হবে। শোভাযাত্রাটি রাসেল স্কয়ার, কলাবাগান, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, এলিফ্যান্ট রোড, শাহবাগ হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এসে সমবেত হবে।

ডিএমপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শোভাযাত্রাটি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর থেকে শুরু হয়ে মিরপুর রোডের রাসেল স্কয়ার ক্রসিং হয়ে কলাবাগান দিয়ে সায়েন্সল্যাব থেকে বাঁয়ে মোড় নেবে। এরপর বাটা সিগন্যাল-কাঁটাবন ক্রসিং হয়ে শাহবাগ থেকে ডানে মোড় নিয়ে ছবির হাট হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢুকবে। ছবির হাট ছাড়াও টিএসসি, বাংলা একাডেমির সামনে ও কালি মন্দির গেইট দিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ করা যাবে। এ সময় নগরবাসীকে ট্রাফিক পুলিশের রুট ম্যাপ দেখে চলাচলের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা অবিস্মরণীয় গৌরবের এক অনন্য দিন।
সুদীর্ঘকালের আপসহীন আন্দোলনের এক পর্যায়ে ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক উত্তাল জনসমুদ্রে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম’ বঙ্গবন্ধুর এই তেজোদৃপ্ত ঘোষণাই ছিল প্রকৃতপক্ষে আমাদের স্বাধীনতার ভিত্তি।
বিডিপ্রেস/আলী