BDpress

চুক্তিতে রোহিঙ্গাদের ফেরার সময়সীমা নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
চুক্তিতে রোহিঙ্গাদের ফেরার সময়সীমা নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার কাজ আগামী দুই মাসের মধ্যে শুরু হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। তবে ঠিক কত দিনের মধ্যে পুরো প্রক্রিয়া শেষ হবে তার কোনো সময়সীমা নেই বলেও তিনি জানান।

শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে রোহিঙ্গা ফেরাতে সমঝোতা স্মারক সইয়ের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরানোর বিষয়ে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে বৃহস্পতিবার দেশটির প্রশাসনিক রাজধানী নেপিদোতে একটি সমঝোতা সই হয়েছে। সেখানে দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির সঙ্গে তার দফতরে মন্ত্রীর বৈঠক হয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে গোটা পৃথিবী বাংলাদেশের সঙ্গে জানিয়ে তিনি বলেন, ভারত ও চীনও সহযোগিতা করতে রাজি আছে। মিয়ানমার ১৯৯২ সালের চুক্তি মানতে চায়। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ফেরত নেওয়া। ফেরত নিতে চেয়েছে, রাখাইনে থাকার ব্যবস্থা হলে রোহিঙ্গারা যাবে। সঙ্গে চাই সিকিউরিটি অ্যান্ড অনার।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া কবে শেষ হবে চুক্তিতে তার কোনো সীমারেখা দেওয়া হয়নি।
জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনএইচসিআরকে সম্পৃক্ত করতে চায় মিয়ানমার। দু’মাসের মধ্যে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ থেকে ফিরিয়ে নেওয়া শুরু করবে তারা। চুক্তি সই করার (২৩ নভেম্বরের পর) তিন সপ্তাহের মধ্যে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠিত হবে।
বিডিপ্রেস/আলী


এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

চুক্তিতে রোহিঙ্গাদের ফেরার সময়সীমা নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী


চুক্তিতে রোহিঙ্গাদের ফেরার সময়সীমা নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে রোহিঙ্গা ফেরাতে সমঝোতা স্মারক সইয়ের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরানোর বিষয়ে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে বৃহস্পতিবার দেশটির প্রশাসনিক রাজধানী নেপিদোতে একটি সমঝোতা সই হয়েছে। সেখানে দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির সঙ্গে তার দফতরে মন্ত্রীর বৈঠক হয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে গোটা পৃথিবী বাংলাদেশের সঙ্গে জানিয়ে তিনি বলেন, ভারত ও চীনও সহযোগিতা করতে রাজি আছে। মিয়ানমার ১৯৯২ সালের চুক্তি মানতে চায়। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ফেরত নেওয়া। ফেরত নিতে চেয়েছে, রাখাইনে থাকার ব্যবস্থা হলে রোহিঙ্গারা যাবে। সঙ্গে চাই সিকিউরিটি অ্যান্ড অনার।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া কবে শেষ হবে চুক্তিতে তার কোনো সীমারেখা দেওয়া হয়নি।
জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনএইচসিআরকে সম্পৃক্ত করতে চায় মিয়ানমার। দু’মাসের মধ্যে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ থেকে ফিরিয়ে নেওয়া শুরু করবে তারা। চুক্তি সই করার (২৩ নভেম্বরের পর) তিন সপ্তাহের মধ্যে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠিত হবে।
বিডিপ্রেস/আলী