BDpress

বাংলাদেশের কোচ হওয়ার প্রতিযোগিতা দেখে বিসিবিও বিস্মিত!

ক্রীড়া ডেস্ক

অ+ অ-
বাংলাদেশের কোচ হওয়ার প্রতিযোগিতা দেখে বিসিবিও বিস্মিত!
হয়তো রোববারের বিসিবির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকেই বাংলাদেশের নতুন প্রধান কোচের নামটা চূড়ান্ত হয়ে যেতে পারতো। কিন্তু ঠিক এই বৈঠকের আগেভাগে বিশ্বের নামী দামী কয়েকজনের কোচ হওয়ার আগ্রহ দেখে চমকে গেছে খোদ বিসিবি! আর সেই বিস্ময়টা উঠে এসেছে বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপনের কণ্ঠে।

আপাতত একজনের কথা ভেবে রাখা হয়েছে বটে। তবে আরো দুজনের সাথে কথা বলতে চায়। যাচাই বাছাইয়ের এমন সুযোগটা কিভাবে ছাড়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড! তাই এখনো ঠিক নিশ্চিত না কবে নাগাদ টাইগাররা তাদের প্রধান কোচ পাচ্ছেন। এমন হতে পারে সামনের মাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজের আগেই সব ঠিক হয়ে গেল। কিন্তু সেই কোচ বাংলাদেশ দলের সাথে যোগ দিলেন ফেব্রুয়ারিতে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মাঝপথে বাংলাদেশের সফলতম কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের পদত্যাগ পত্র দেওয়ার খবর পরে ঝাঁকি দিয়ে গেছে ক্রিকেট বিশ্বে। তারপর নতুন কোচ খোঁজা শুরু বিসিবির। জানুয়ারির শুরুতে আসছে শ্রীলঙ্কা। যে দলের কোচ এর মধ্যে হয়ে গেছেন হাথুরুসিংহেই। আর বিসিবি এর মধ্যে রিচার্ড পাইবাস, ফিল সিমন্সদের সাক্ষাৎকার নিয়েছে। পাইবাসের ব্যাপারে ভেটো দিয়েছেন অধিনায়করা। সাথে কোচিং স্টাফ ও বিসিবির কয়েক পরিচালকও। থাকলেন সিমন্স। এর মধ্যেই ঘটনা মোড় খায় ভিন্ন খাতে।

কি সেই মোড়? সেটাই শুনুন বিসিবি প্রেসিডেন্ট পাপনের মুখে, 'আমরা এতদিন যতজনের সঙ্গে কথা বলেছি...রিচার্ড পাইবাস এসেছিলেন এবং আজকেও (রোববার) ফিল সিমন্স প্রেজেন্টেশন দিয়েছেন। সেটাও সবাই দেখেছেন। এছাড়াও সবচেয়ে আশ্চর্য ব্যাপার যে, আজকেও দুটি বায়োডাটা এসেছে। তারা আগ্রহ জানিয়েছে এবং তারা ভালো লেভেলের। হয়ত হেড কোচ না হলেও কোন না কোনভাবে তাদেরকে আমরা আনতে পারি।' এরপর আরো ব্যাখ্যায় গিয়ে বোর্ড প্রধান বলে যান, 'গতকালকেও (শনিবার) দুটো বায়োডাটা পেয়েছি। কাজেই আমরা রেসপন্স পাচ্ছি। আমরা পুরোটাই আজকে বোর্ডে আপডেট করেছি। কে কে এভেইলেবল না তারা তো বাদ। অনেকের শর্তের সঙ্গে মেলে না, অনেকের টাইমের সঙ্গে মেলে না। তাই এই জিনিসগুলো করে শর্ট লিস্টেড নাম বোর্ডের কাছে এসেছে। এই বোর্ড মিটিং এর পরে আমরা আরও শর্ট লিস্টেড হয়ে গিয়েছি। শুধু নতুন যে দুজন আজকে দিয়েছে এবং আরেকজন যার সঙ্গে মোটামুটি সবই ঠিক হয়ে গেছে। তার পারিশ্রমিক এবং কবে জয়েন করতে পারবে সেই জিনিসটা যতক্ষণ নিশ্চিত না হবে, সেটার জন্য আমাদের আরও কয়েকটা দিন সময় লাগতে পারে। বাকিদের সঙ্গে কথা বলে খুব শিগগিরই কয়েকদিনের মধ্যে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত চলে আসব। '

সেই নতুন দুজন এবং যার জন্য আসলে বিসিবি অপেক্ষায় থাকতে চাচ্ছে তারা কারা? সেটা জানালেন না বিসিবি সভাপতি। বলে গেলেন, 'পরের সিরিজ শুরুর আগে আমরা যদি কাউকে ফাইনাল করতে না পারি কিংবা ফাইনাল করলাম সে হয়ত পরে আসল...এমনও হতে পারে যেমন একজন আছে যে বিগ ব্যাশ শেষ হওয়ার আগে আসতে পারছে না। সো ফেব্রুয়ারি ২৩ এ জয়েন করবে, তখন কি হবে?'

তাইতো! কোচ ছাড়াই কি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ খেলতে নেমে পড়বে বাংলাদেশ দল? বিকল্প পরিকল্পনা বোর্ড মিটিংয়ে হেয়ে গেছে। পাপনের কথায়, 'সেটা নিয়েও আলাপ করেছি। (সেক্ষেত্রে) এই সিরিজের জন্য কাউকে হেড কোচ করার কোন দরকার নাই। কাউকে হয়ত এই সিরিজটার জন্য দায়িত্ব দিতে পারি। আমাদের এখন যারা আছেন রিচার্ড হ্যালসাল, সুনীল যোশি, কোর্টনি ওয়ালশ...তাদের নির্দিষ্ট দায়িত্ব দেওয়া হবে। এবং বোর্ড থেকে সুপারভাইজ করার জন্য কেউ থাকল।’ তার মানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজটা বাংলাদেশ খেলতে পারে বোর্ড নির্ধারিত একজন তত্বাবধায়কের দায়িত্বে। সাথে কোচিং স্টাফ ও ক্যাপ্টেনরা তো আছেনই।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

বাংলাদেশের কোচ হওয়ার প্রতিযোগিতা দেখে বিসিবিও বিস্মিত!


বাংলাদেশের কোচ হওয়ার প্রতিযোগিতা দেখে বিসিবিও বিস্মিত!

আপাতত একজনের কথা ভেবে রাখা হয়েছে বটে। তবে আরো দুজনের সাথে কথা বলতে চায়। যাচাই বাছাইয়ের এমন সুযোগটা কিভাবে ছাড়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড! তাই এখনো ঠিক নিশ্চিত না কবে নাগাদ টাইগাররা তাদের প্রধান কোচ পাচ্ছেন। এমন হতে পারে সামনের মাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজের আগেই সব ঠিক হয়ে গেল। কিন্তু সেই কোচ বাংলাদেশ দলের সাথে যোগ দিলেন ফেব্রুয়ারিতে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মাঝপথে বাংলাদেশের সফলতম কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের পদত্যাগ পত্র দেওয়ার খবর পরে ঝাঁকি দিয়ে গেছে ক্রিকেট বিশ্বে। তারপর নতুন কোচ খোঁজা শুরু বিসিবির। জানুয়ারির শুরুতে আসছে শ্রীলঙ্কা। যে দলের কোচ এর মধ্যে হয়ে গেছেন হাথুরুসিংহেই। আর বিসিবি এর মধ্যে রিচার্ড পাইবাস, ফিল সিমন্সদের সাক্ষাৎকার নিয়েছে। পাইবাসের ব্যাপারে ভেটো দিয়েছেন অধিনায়করা। সাথে কোচিং স্টাফ ও বিসিবির কয়েক পরিচালকও। থাকলেন সিমন্স। এর মধ্যেই ঘটনা মোড় খায় ভিন্ন খাতে।

কি সেই মোড়? সেটাই শুনুন বিসিবি প্রেসিডেন্ট পাপনের মুখে, 'আমরা এতদিন যতজনের সঙ্গে কথা বলেছি...রিচার্ড পাইবাস এসেছিলেন এবং আজকেও (রোববার) ফিল সিমন্স প্রেজেন্টেশন দিয়েছেন। সেটাও সবাই দেখেছেন। এছাড়াও সবচেয়ে আশ্চর্য ব্যাপার যে, আজকেও দুটি বায়োডাটা এসেছে। তারা আগ্রহ জানিয়েছে এবং তারা ভালো লেভেলের। হয়ত হেড কোচ না হলেও কোন না কোনভাবে তাদেরকে আমরা আনতে পারি।' এরপর আরো ব্যাখ্যায় গিয়ে বোর্ড প্রধান বলে যান, 'গতকালকেও (শনিবার) দুটো বায়োডাটা পেয়েছি। কাজেই আমরা রেসপন্স পাচ্ছি। আমরা পুরোটাই আজকে বোর্ডে আপডেট করেছি। কে কে এভেইলেবল না তারা তো বাদ। অনেকের শর্তের সঙ্গে মেলে না, অনেকের টাইমের সঙ্গে মেলে না। তাই এই জিনিসগুলো করে শর্ট লিস্টেড নাম বোর্ডের কাছে এসেছে। এই বোর্ড মিটিং এর পরে আমরা আরও শর্ট লিস্টেড হয়ে গিয়েছি। শুধু নতুন যে দুজন আজকে দিয়েছে এবং আরেকজন যার সঙ্গে মোটামুটি সবই ঠিক হয়ে গেছে। তার পারিশ্রমিক এবং কবে জয়েন করতে পারবে সেই জিনিসটা যতক্ষণ নিশ্চিত না হবে, সেটার জন্য আমাদের আরও কয়েকটা দিন সময় লাগতে পারে। বাকিদের সঙ্গে কথা বলে খুব শিগগিরই কয়েকদিনের মধ্যে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত চলে আসব। '

সেই নতুন দুজন এবং যার জন্য আসলে বিসিবি অপেক্ষায় থাকতে চাচ্ছে তারা কারা? সেটা জানালেন না বিসিবি সভাপতি। বলে গেলেন, 'পরের সিরিজ শুরুর আগে আমরা যদি কাউকে ফাইনাল করতে না পারি কিংবা ফাইনাল করলাম সে হয়ত পরে আসল...এমনও হতে পারে যেমন একজন আছে যে বিগ ব্যাশ শেষ হওয়ার আগে আসতে পারছে না। সো ফেব্রুয়ারি ২৩ এ জয়েন করবে, তখন কি হবে?'

তাইতো! কোচ ছাড়াই কি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ খেলতে নেমে পড়বে বাংলাদেশ দল? বিকল্প পরিকল্পনা বোর্ড মিটিংয়ে হেয়ে গেছে। পাপনের কথায়, 'সেটা নিয়েও আলাপ করেছি। (সেক্ষেত্রে) এই সিরিজের জন্য কাউকে হেড কোচ করার কোন দরকার নাই। কাউকে হয়ত এই সিরিজটার জন্য দায়িত্ব দিতে পারি। আমাদের এখন যারা আছেন রিচার্ড হ্যালসাল, সুনীল যোশি, কোর্টনি ওয়ালশ...তাদের নির্দিষ্ট দায়িত্ব দেওয়া হবে। এবং বোর্ড থেকে সুপারভাইজ করার জন্য কেউ থাকল।’ তার মানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজটা বাংলাদেশ খেলতে পারে বোর্ড নির্ধারিত একজন তত্বাবধায়কের দায়িত্বে। সাথে কোচিং স্টাফ ও ক্যাপ্টেনরা তো আছেনই।

বিডিপ্রেস/আরজে