BDpress

আকায়েদ উল্লাহর শাস্তি দাবি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
আকায়েদ উল্লাহর শাস্তি দাবি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের
যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ম্যানহাটন পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালে বোমা বিস্ফোরণকারী বাংলাদেশি আকায়েদ উল্লাহর অপরাধের তীব্র ক্ষোভ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিসহ বাংলাদেশি আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন (বাপা)। স্থানীয় সময় সোমবার সংবাদ সম্মেলনে বাপার কর্মকর্তারা জানান, এ ঘটনার সঠিক তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে তার শাস্তি হওয়া উচিত।

সোমবার বিকেলে জ্যাকসন হাইটসের মিলনায়তনে নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টে কর্মরত তিন শতাধিক বাংলাদেশি অফিসার দ্বারা গঠিত বাংলাদেশি আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন (বাপা) এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

বাপার প্রেসিডেন্ট লেফটেন্যান্ট শামসুল হক বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসী গোটা বাংলাদেশি সমাজের জন্য আজ একটি দুঃখের দিন। নিজেদের প্রয়োজনে আমরা আজ এখানে সমবেত হয়েছি। বাংলাদেশি পুলিশ সদস্য হিসেবে আমরা সব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রতি নিন্দা এবং ঘৃণা জানাচ্ছি। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কেবল তাদের মাধ্যমেই সংগঠিত হয়, যারা সন্ত্রাসী।

হুমায়ূন কবীর বলেন, আকায়েদ উল্লাহ দোষ করে থাকলে নিশ্চয়ই তার কঠোর শাস্তি হবে প্রচলিত আইন অনুযায়ী। আকায়েদের মতো লোকদের সম্পর্কে কোনোও তথ্য থাকলে সঙ্গে সঙ্গে যেন কাছের পুলিশ স্টেশন অথবা সিটির হটলাইনে জানানো হয়।

বাংলাদেশি-অধ্যুষিত এলাকার সিটি কাউন্সিলর ডেভিড উইপ্রিন বলেন, এটা অবশ্যই একটি ঘৃণা জানানোর উপলক্ষ। কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে, সন্ত্রাসীর কোনো দেশ বা ধর্ম নেই। কেউ যেন এই ঘটনার পর বাংলাদেশি কমিউনিটিকে সন্ত্রাসের সঙ্গে স্টিগমাটাইজড না করতে পারে, সেদিকেও নজর দিতে হবে।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত পুলিশ সদস্য ছাড়াও এ সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক, সংগঠনের প্রধান ও সমাজকর্মীরা ছাড়াও অ্যাটর্নি ইশরাত সামী, মাজেদা উদ্দিন, রুহুল আমিন সিদ্দিক, ময়নুল ইসলাম, তারেক হাসান খান, আব্দুর রহিম হওলাদার, আব্দুল হাই জিয়া, কামাল ভূঁইয়া, সিটি মেয়রের প্রতিনিধি সারা সাঈদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

আকায়েদ উল্লাহর শাস্তি দাবি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের


আকায়েদ উল্লাহর শাস্তি দাবি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের

সোমবার বিকেলে জ্যাকসন হাইটসের মিলনায়তনে নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টে কর্মরত তিন শতাধিক বাংলাদেশি অফিসার দ্বারা গঠিত বাংলাদেশি আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন (বাপা) এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

বাপার প্রেসিডেন্ট লেফটেন্যান্ট শামসুল হক বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসী গোটা বাংলাদেশি সমাজের জন্য আজ একটি দুঃখের দিন। নিজেদের প্রয়োজনে আমরা আজ এখানে সমবেত হয়েছি। বাংলাদেশি পুলিশ সদস্য হিসেবে আমরা সব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রতি নিন্দা এবং ঘৃণা জানাচ্ছি। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কেবল তাদের মাধ্যমেই সংগঠিত হয়, যারা সন্ত্রাসী।

হুমায়ূন কবীর বলেন, আকায়েদ উল্লাহ দোষ করে থাকলে নিশ্চয়ই তার কঠোর শাস্তি হবে প্রচলিত আইন অনুযায়ী। আকায়েদের মতো লোকদের সম্পর্কে কোনোও তথ্য থাকলে সঙ্গে সঙ্গে যেন কাছের পুলিশ স্টেশন অথবা সিটির হটলাইনে জানানো হয়।

বাংলাদেশি-অধ্যুষিত এলাকার সিটি কাউন্সিলর ডেভিড উইপ্রিন বলেন, এটা অবশ্যই একটি ঘৃণা জানানোর উপলক্ষ। কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে, সন্ত্রাসীর কোনো দেশ বা ধর্ম নেই। কেউ যেন এই ঘটনার পর বাংলাদেশি কমিউনিটিকে সন্ত্রাসের সঙ্গে স্টিগমাটাইজড না করতে পারে, সেদিকেও নজর দিতে হবে।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত পুলিশ সদস্য ছাড়াও এ সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক, সংগঠনের প্রধান ও সমাজকর্মীরা ছাড়াও অ্যাটর্নি ইশরাত সামী, মাজেদা উদ্দিন, রুহুল আমিন সিদ্দিক, ময়নুল ইসলাম, তারেক হাসান খান, আব্দুর রহিম হওলাদার, আব্দুল হাই জিয়া, কামাল ভূঁইয়া, সিটি মেয়রের প্রতিনিধি সারা সাঈদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিডিপ্রেস/আরজে