BDpress

যশোরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
যশোরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়
যশোরে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট) উদ্যোগে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ ও সুরক্ষা বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরিন।

ব্লাস্ট যশোরের সদস্য কাজী আবদুস শহীদ লালের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন ব্লাস্ট প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মাহবুবা আক্তার, সমন্বয়কারী সারাবান তহুরা, ব্লাস্ট যশোরের সভাপতি মোহাম্মদ, আইনজীবী মোস্তফা হুমায়ুন কবীর, সাংবাদিক সাইফুর রহমান সাইফ, রফিকুল ইসলাম, শিকদার খালিদ, জুয়েল মৃধা প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে অপরাধের শিকার ব্যক্তি বা সাক্ষীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সার্বিক ও বিস্তৃত আকারে কোনো আইন নেই। তবে অপরাধের শিকার ব্যক্তি, বিশেষত নারী ও শিশুর নিরাপত্তার স্বার্থে কয়েকটি আইনে তাদের নাম পরিচয় প্রকাশের বিষয়ে সুষ্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে অপরাধের শিকার ব্যক্তির পরিচয় ও ছবি ছাপা হয়। এতে অপরাধের শিকার ব্যক্তি ও তার পরিবার নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়ে। অনেকে না বুঝে পরিচয় প্রকাশ করেন। আবার অনেক ক্ষেত্রে পরিকল্পিতভাবে প্রকাশ করা হয়। এক্ষেত্রে গণমাধ্যম কর্মীদের আরও বেশি সচেতন হতে হবে। গণমাধ্যম হাউসগুলোর দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদেরও আরও সচেতন হতে হবে। তাহলে অপরাধের শিকার ব্যক্তির নিরাপত্তা নিশ্চিত সম্ভব হতে হবে।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

যশোরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়


যশোরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়

ব্লাস্ট যশোরের সদস্য কাজী আবদুস শহীদ লালের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন ব্লাস্ট প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মাহবুবা আক্তার, সমন্বয়কারী সারাবান তহুরা, ব্লাস্ট যশোরের সভাপতি মোহাম্মদ, আইনজীবী মোস্তফা হুমায়ুন কবীর, সাংবাদিক সাইফুর রহমান সাইফ, রফিকুল ইসলাম, শিকদার খালিদ, জুয়েল মৃধা প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে অপরাধের শিকার ব্যক্তি বা সাক্ষীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সার্বিক ও বিস্তৃত আকারে কোনো আইন নেই। তবে অপরাধের শিকার ব্যক্তি, বিশেষত নারী ও শিশুর নিরাপত্তার স্বার্থে কয়েকটি আইনে তাদের নাম পরিচয় প্রকাশের বিষয়ে সুষ্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে অপরাধের শিকার ব্যক্তির পরিচয় ও ছবি ছাপা হয়। এতে অপরাধের শিকার ব্যক্তি ও তার পরিবার নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়ে। অনেকে না বুঝে পরিচয় প্রকাশ করেন। আবার অনেক ক্ষেত্রে পরিকল্পিতভাবে প্রকাশ করা হয়। এক্ষেত্রে গণমাধ্যম কর্মীদের আরও বেশি সচেতন হতে হবে। গণমাধ্যম হাউসগুলোর দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদেরও আরও সচেতন হতে হবে। তাহলে অপরাধের শিকার ব্যক্তির নিরাপত্তা নিশ্চিত সম্ভব হতে হবে।

বিডিপ্রেস/আরজে