BDpress

চুয়াডাঙ্গায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন কর্মশালা

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
চুয়াডাঙ্গায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন কর্মশালা
‘ভিটামিন এ খাওয়ান, শিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান’ স্লোগান নিয়ে চুয়াডাঙ্গায় জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের সম্মেলন কক্ষে জেলা সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আলী হোসেন। ওরিয়েন্টেশনে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের পক্ষে কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপন করেন জেলার সার্ভিলেন্স অ্যান্ড ইমোনেশন মেডিকেল অফিসার ডা. খাদিমুল আনাম মাজহার।

কর্মশালায় জানানো হয়, আগামী ২৩ ডিসেম্বর একযোগে জেলার চারটি উপজেলার তালিকাভুক্ত শিশুদের ভিটামিন এ খাওয়ানো হবে। এতে জেলার ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ১৬ হাজার ৪০৭ শিশুকে নীল রঙের এ ক্যাপসুল এবং ১ থেকে ৫ বছর বয়সী ১ লাখ ১৯ হাজার ৯৯৭ শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এ কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য আটউরিচ, স্থায়ী, অতিরিক্ত ও ভ্রাম্যমাণসহ ৯৬৫টি কেন্দ্রে ১১৩ জন প্রথম সারির তত্ত্বাবধায়ক এবং এক হাজার ৯৩০ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবেন বলে জানানো হয়।

ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আলী হোসেন বলেন, বৃহৎ এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ছোটখাটো ত্রুটি-বিচ্যুতি দেখা দিলে সাথে সাথে কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়া প্রত্যেক শিশুকে অবশ্যই স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে। কর্মশালায় আরো বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি আজাদ মালিতা।

জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান ও জাতীয় পুষ্টি সেবা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন এ কর্মসূচির আয়োজন করছে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিস।

বিডিপ্রেস/আলী

 


এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

চুয়াডাঙ্গায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন কর্মশালা


চুয়াডাঙ্গায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন কর্মশালা

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আলী হোসেন। ওরিয়েন্টেশনে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের পক্ষে কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপন করেন জেলার সার্ভিলেন্স অ্যান্ড ইমোনেশন মেডিকেল অফিসার ডা. খাদিমুল আনাম মাজহার।

কর্মশালায় জানানো হয়, আগামী ২৩ ডিসেম্বর একযোগে জেলার চারটি উপজেলার তালিকাভুক্ত শিশুদের ভিটামিন এ খাওয়ানো হবে। এতে জেলার ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ১৬ হাজার ৪০৭ শিশুকে নীল রঙের এ ক্যাপসুল এবং ১ থেকে ৫ বছর বয়সী ১ লাখ ১৯ হাজার ৯৯৭ শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এ কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য আটউরিচ, স্থায়ী, অতিরিক্ত ও ভ্রাম্যমাণসহ ৯৬৫টি কেন্দ্রে ১১৩ জন প্রথম সারির তত্ত্বাবধায়ক এবং এক হাজার ৯৩০ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবেন বলে জানানো হয়।

ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আলী হোসেন বলেন, বৃহৎ এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ছোটখাটো ত্রুটি-বিচ্যুতি দেখা দিলে সাথে সাথে কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়া প্রত্যেক শিশুকে অবশ্যই স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে। কর্মশালায় আরো বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি আজাদ মালিতা।

জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান ও জাতীয় পুষ্টি সেবা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন এ কর্মসূচির আয়োজন করছে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিস।

বিডিপ্রেস/আলী