BDpress

গণমাধ্যমকে দ্বৈতনীতি পরিহার করতে হবে: ইনু

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
গণমাধ্যমকে দ্বৈতনীতি পরিহার করতে হবে: ইনু
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, দেশের গণমাধ্যম দ্বৈতনীতির মনোভাব পালন করছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করতে হলে অবশ্যই এই মনোভাব পরিহার করতে হবে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে (পিআইবি) ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: আমাদের গণমাধ্যম’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ ও রাজাকারকে আপনারা এক পাল্লায় মাপবেন না। আপনারা শেখ হাসিনা ও খালেদাকে কেন এক পাল্লায় মাপছেন? আপনাদের এই নীতি পরিহার করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমে যদি রাজাকার, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসকে বর্জন করেন তাহলে তাদের সঙ্গী খালেদা বিএনপিকেও বর্জন করতে হবে। আপনারা যদি এরশাদকে স্বৈরশাসক বলেন তাহলে জিয়াকেও স্বৈরশাসক বলতে হবে।’

ইনু বলেন, ‘আমরা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা দিয়েছি। সামলোচনা করার সুযোগ দিয়েছি। আপনারা আমাদের গঠনমূলক সমালোচনা করেন। সরকারের ভুলগুলো ধরিয়ে দেন।’

পিআইবি পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক,  অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, দৈনিক সমকালের যুগ্ম-সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন মঞ্জু, দৈনিক প্রথম আলোর যুগ্ম-সম্পাদক সোহরাব হোসেন, একাত্তর টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু, আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান প্রমুখ।’

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

গণমাধ্যমকে দ্বৈতনীতি পরিহার করতে হবে: ইনু


গণমাধ্যমকে দ্বৈতনীতি পরিহার করতে হবে: ইনু

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে (পিআইবি) ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: আমাদের গণমাধ্যম’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ ও রাজাকারকে আপনারা এক পাল্লায় মাপবেন না। আপনারা শেখ হাসিনা ও খালেদাকে কেন এক পাল্লায় মাপছেন? আপনাদের এই নীতি পরিহার করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমে যদি রাজাকার, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসকে বর্জন করেন তাহলে তাদের সঙ্গী খালেদা বিএনপিকেও বর্জন করতে হবে। আপনারা যদি এরশাদকে স্বৈরশাসক বলেন তাহলে জিয়াকেও স্বৈরশাসক বলতে হবে।’

ইনু বলেন, ‘আমরা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা দিয়েছি। সামলোচনা করার সুযোগ দিয়েছি। আপনারা আমাদের গঠনমূলক সমালোচনা করেন। সরকারের ভুলগুলো ধরিয়ে দেন।’

পিআইবি পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক,  অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, দৈনিক সমকালের যুগ্ম-সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন মঞ্জু, দৈনিক প্রথম আলোর যুগ্ম-সম্পাদক সোহরাব হোসেন, একাত্তর টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু, আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান প্রমুখ।’

বিডিপ্রেস/আরজে