BDpress

বাণিজ্যমেলা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
বাণিজ্যমেলা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী
মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন তিনি। কিছুক্ষণ পরই তিনি মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।

প্রতি বছরের মতো এবারও রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের গণপূর্ত বিভাগের খোলা জমিতে মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে এ মেলা। মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, মেলা প্রাঙ্গণে এবার ১০০টি সিসি ক্যামেরা থাকবে। প্রয়োজনে আরও বাড়ানো হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সব সময় মনিটরিং করবে। দর্শনার্থীদের চলাচলের সুবিধার জন্য মেলার অভ্যন্তরের রাস্তাগুলোতে বেশি জায়গা রাখা হয়েছে। এবার মেলার মূল ফটকে পরিবর্তন এনে সাজানো হচ্ছে পদ্মা সেতুর আদলে। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের আবহ এবারের মেলায় তুলে ধরা হবে।

বরাবরের মতো এবারও ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় তৈরি হচ্ছে সুন্দরবন। দর্শনার্থীদের কাছে মেলার আকর্ষণ বাড়াতে ও নান্দনিক আবহ রাখতে সুন্দরবনের আদলে থাকছে একটি পার্ক। পার্কে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ও নানা বর্ণের পাখির পরিচিতির জন্য থাকছে পৃথক ফিশ অ্যাকুরিয়াম ও বার্ড অ্যাকুরিয়াম।

আয়োজকরা আরও জানিয়েছেন, মেলায় এ বছরও থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন। এটি আরও তথ্যবহুল ও সমৃদ্ধ হবে। আয়তন হচ্ছে আগের তুলনায় দ্বিগুণ। মেলায় এবার স্টল ও প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৫৮৯টি। বড় প্যাভিলিয়ন ১১২টি, মিনি প্যাভিলিয়ন ৭৭টি ও বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট স্টলের সংখ্যা ৪০০টি।

এ ছাড়া মেলায় থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন, ফ্ল্যাওয়ার গার্ডেন, ই-শপ, শিশু পার্ক, প্রাইমারি হেলথ সেন্টার, মা ও শিশু কেন্দ্র, রক্ত সংগ্রহ কেন্দ্রসহ ৩২ ধরনের অবকাঠামো। মেলায় বিদেশি অংশগ্রহণকারী হিসেবে ১৭টি দেশের ৪৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।

বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

বাণিজ্যমেলা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী


বাণিজ্যমেলা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

প্রতি বছরের মতো এবারও রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের গণপূর্ত বিভাগের খোলা জমিতে মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে এ মেলা। মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, মেলা প্রাঙ্গণে এবার ১০০টি সিসি ক্যামেরা থাকবে। প্রয়োজনে আরও বাড়ানো হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সব সময় মনিটরিং করবে। দর্শনার্থীদের চলাচলের সুবিধার জন্য মেলার অভ্যন্তরের রাস্তাগুলোতে বেশি জায়গা রাখা হয়েছে। এবার মেলার মূল ফটকে পরিবর্তন এনে সাজানো হচ্ছে পদ্মা সেতুর আদলে। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের আবহ এবারের মেলায় তুলে ধরা হবে।

বরাবরের মতো এবারও ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় তৈরি হচ্ছে সুন্দরবন। দর্শনার্থীদের কাছে মেলার আকর্ষণ বাড়াতে ও নান্দনিক আবহ রাখতে সুন্দরবনের আদলে থাকছে একটি পার্ক। পার্কে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ও নানা বর্ণের পাখির পরিচিতির জন্য থাকছে পৃথক ফিশ অ্যাকুরিয়াম ও বার্ড অ্যাকুরিয়াম।

আয়োজকরা আরও জানিয়েছেন, মেলায় এ বছরও থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন। এটি আরও তথ্যবহুল ও সমৃদ্ধ হবে। আয়তন হচ্ছে আগের তুলনায় দ্বিগুণ। মেলায় এবার স্টল ও প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৫৮৯টি। বড় প্যাভিলিয়ন ১১২টি, মিনি প্যাভিলিয়ন ৭৭টি ও বিভিন্ন ক্যাটাগরির মোট স্টলের সংখ্যা ৪০০টি।

এ ছাড়া মেলায় থাকছে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন, ফ্ল্যাওয়ার গার্ডেন, ই-শপ, শিশু পার্ক, প্রাইমারি হেলথ সেন্টার, মা ও শিশু কেন্দ্র, রক্ত সংগ্রহ কেন্দ্রসহ ৩২ ধরনের অবকাঠামো। মেলায় বিদেশি অংশগ্রহণকারী হিসেবে ১৭টি দেশের ৪৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।

বিডিপ্রেস/আলী