BDpress

বিএসএমএমইউতে আনসারদের হামলায় ২ সাংবাদিক আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
বিএসএমএমইউতে আনসারদের হামলায় ২ সাংবাদিক আহত
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের বহির্বিভাগ-২ এ আনসার সদস্যের হাতে প্রহৃত হলেন ঢাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্র চ্যানেল আইয়ের ঢাবি প্রতিবেদক মনোয়ার হোসেন মান্না ও ডেইলি স্টারের ঢাবি প্রতিবেদক আশিক আব্দুল্লাহ অপু। চর্ম রোগের ডাক্তারের তথ্য জানতে গেলে ওই দুই সাংবাদিকের কলার ধরে নাজেহাল করেন আনসার সদস্যরা। একপর্যায়ে তাদের কিল-ঘুষিও মারা হয়।

আহতরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা নিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, বহির্বিভাগের টিকিট কাউন্টারে ডাক্তারের তথ্য জানতে গেলে একজন আনসার সদস্য তুই বলে তাদের কলার ধরেন। কলার ধরার কারণ জানতে চাইলে আরেকজন আনসার সদস্য মুখে ঘুষি মারেন। একপর্যায়ে হাসপাতাল থেকে তাদেরকে বের করে দেন।

ঘটনা শুনে সহপাঠীরা হাসপাতালে ছুটে গেলে সেখানে আনসার সদস্যদের সাথে আবার হাতাহাতি হয়। এসময় কয়েকজন শিক্ষার্থীর গায়ে আবার হাত তুলেন আনসার সদস্যরা।

আহত  শিক্ষার্থী আশিক আব্দুল্লাহ অপু বলেন, আমার বন্ধু মান্না ডাক্তারের তথ্য জানতে কাউন্টারে গেলে পেছন থেকে এক আনসার এসে তার কলার ধরেন। আমরা কলার ধরার কারণ জানতে চাইলে অন্য একজন আনসার সদস্য এসে মান্নাকে ঘুষি মারেন। তাকে বাঁচাতে গেলে আমিও আঘাতপ্রাপ্ত হই।

আহত শিক্ষার্থী মনোয়ার হোসেন মান্না জানান, চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের খোঁজে টিকিট কাউন্টারে গেলে হঠাৎ এক আনসার সদস্য আমার জামার কলার ধরে টান দেন। কারণ জিজ্ঞাসা করলে আমাকে গালিগালাজ করেন এবং মুখে কিলঘুষি মারতে থাকেন। পরে ঘটনার বিচার চাইতে গেলে আবার বন্ধুকের নল দিয়ে আমার ঘাড়ে ও অপুর মাথায় আঘাত করেন।

এদিকে, ঘটনার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি বিএসএমএমইউ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুনের সাথে দেখা করেন।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের জানান, এ ঘটনায় জড়িত আনসার সদস্যদের আইনের আওতায় আনা হবে। দুই সপ্তাহের মধ্যে বিচারের আশ্বাস দেন তিনি।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

বিএসএমএমইউতে আনসারদের হামলায় ২ সাংবাদিক আহত


বিএসএমএমইউতে আনসারদের হামলায় ২ সাংবাদিক আহত

আহতরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা নিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, বহির্বিভাগের টিকিট কাউন্টারে ডাক্তারের তথ্য জানতে গেলে একজন আনসার সদস্য তুই বলে তাদের কলার ধরেন। কলার ধরার কারণ জানতে চাইলে আরেকজন আনসার সদস্য মুখে ঘুষি মারেন। একপর্যায়ে হাসপাতাল থেকে তাদেরকে বের করে দেন।

ঘটনা শুনে সহপাঠীরা হাসপাতালে ছুটে গেলে সেখানে আনসার সদস্যদের সাথে আবার হাতাহাতি হয়। এসময় কয়েকজন শিক্ষার্থীর গায়ে আবার হাত তুলেন আনসার সদস্যরা।

আহত  শিক্ষার্থী আশিক আব্দুল্লাহ অপু বলেন, আমার বন্ধু মান্না ডাক্তারের তথ্য জানতে কাউন্টারে গেলে পেছন থেকে এক আনসার এসে তার কলার ধরেন। আমরা কলার ধরার কারণ জানতে চাইলে অন্য একজন আনসার সদস্য এসে মান্নাকে ঘুষি মারেন। তাকে বাঁচাতে গেলে আমিও আঘাতপ্রাপ্ত হই।

আহত শিক্ষার্থী মনোয়ার হোসেন মান্না জানান, চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের খোঁজে টিকিট কাউন্টারে গেলে হঠাৎ এক আনসার সদস্য আমার জামার কলার ধরে টান দেন। কারণ জিজ্ঞাসা করলে আমাকে গালিগালাজ করেন এবং মুখে কিলঘুষি মারতে থাকেন। পরে ঘটনার বিচার চাইতে গেলে আবার বন্ধুকের নল দিয়ে আমার ঘাড়ে ও অপুর মাথায় আঘাত করেন।

এদিকে, ঘটনার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি বিএসএমএমইউ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুনের সাথে দেখা করেন।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের জানান, এ ঘটনায় জড়িত আনসার সদস্যদের আইনের আওতায় আনা হবে। দুই সপ্তাহের মধ্যে বিচারের আশ্বাস দেন তিনি।

বিডিপ্রেস/আরজে