BDpress

আন্দোলনের বিকল্প নেই : মওদুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
আন্দোলনের বিকল্প নেই : মওদুদ
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ‘আন্দোলন এজন্য দরকার যে এই সরকার সমঝোতায় বিশ্বাস করে না। বিরোধী দলের সঙ্গে কোনো শান্তিপূর্ণ সমঝোতায় আসতে চায় না। বরং বিরোধী দলকে কীভাবে নিশ্চিহ্ন করতে হবে সেই কাজে তারা নিয়োজিত। তাদের পুলিশ, র‌্যাবের ট্রেনিং হলো কীভাবে বিরোধী দলকে ঘায়েল করা যাবে, নিশ্চিহ্ন করা যাবে। এজন্য আন্দোলন ছাড়া বিকল্প কিছু নেই।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘আমাদের সংস্কৃতি ও শহীদ জিয়া’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভার আয়োজন করে জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন (জিসাস) কেন্দ্রীয় কমিটি।

মওদুদ বলেন, এই সরকারকে বাধ্য করা হবে দেশে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে। এটা একমাত্র সম্ভবপর যদি জনগণের সমর্থন থাকে। জনবিস্ফোরণের মাধ্যমে আন্দোলনে সেই আশা পূরণ হবে। আর নির্বাচন যদি অবাধ, সুষ্ঠু হয় তাহলে তারা জানে এর ফলাফল কী হবে। বিপুল ভোটে তারা (আওয়ামী লীগ) পরাজিত হবে, সেই ভয়ে তারা সুষ্ঠ নির্বাচন দিতে চায় না।

দেশে এখন অনৈতিক রাজনীতি চলছে দাবি করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আমাদের অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, এখন চলছে মিথ্যাচারের রাজনীতি। নীতিবিহীন অনৈতিক রাজনীতি। কোন মন্ত্রী কার চেয়ে বেশি মিথ্যা কথা বলবেন, তার মনে হয় তত বেশি পদন্নোতি হবে। আমরা আমাদের বর্তমান প্রজন্মকে মিথ্যা কথা বলা শেখাচ্ছি। এজন্য এই সরকারের কাছ থেকে কিছু আশা করা যায় না। একদিন না একদিন এর অপবাদ তাদের বহন করতে হবে। এই মিথ্যাচারের মূল্য তাদের দিতেই হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল হাশেম রানার সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, অভিনেত্রী শুলশান আরা, জিসাস ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বোরহান উদ্দিন সরকার প্রমুখ।

বিডিপ্রেস/আরজে


এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

আন্দোলনের বিকল্প নেই : মওদুদ


আন্দোলনের বিকল্প নেই : মওদুদ

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘আমাদের সংস্কৃতি ও শহীদ জিয়া’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভার আয়োজন করে জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন (জিসাস) কেন্দ্রীয় কমিটি।

মওদুদ বলেন, এই সরকারকে বাধ্য করা হবে দেশে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে। এটা একমাত্র সম্ভবপর যদি জনগণের সমর্থন থাকে। জনবিস্ফোরণের মাধ্যমে আন্দোলনে সেই আশা পূরণ হবে। আর নির্বাচন যদি অবাধ, সুষ্ঠু হয় তাহলে তারা জানে এর ফলাফল কী হবে। বিপুল ভোটে তারা (আওয়ামী লীগ) পরাজিত হবে, সেই ভয়ে তারা সুষ্ঠ নির্বাচন দিতে চায় না।

দেশে এখন অনৈতিক রাজনীতি চলছে দাবি করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আমাদের অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, এখন চলছে মিথ্যাচারের রাজনীতি। নীতিবিহীন অনৈতিক রাজনীতি। কোন মন্ত্রী কার চেয়ে বেশি মিথ্যা কথা বলবেন, তার মনে হয় তত বেশি পদন্নোতি হবে। আমরা আমাদের বর্তমান প্রজন্মকে মিথ্যা কথা বলা শেখাচ্ছি। এজন্য এই সরকারের কাছ থেকে কিছু আশা করা যায় না। একদিন না একদিন এর অপবাদ তাদের বহন করতে হবে। এই মিথ্যাচারের মূল্য তাদের দিতেই হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল হাশেম রানার সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, অভিনেত্রী শুলশান আরা, জিসাস ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বোরহান উদ্দিন সরকার প্রমুখ।

বিডিপ্রেস/আরজে