BDpress

‘খালেদা জিয়া ও দুই সিটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
‘খালেদা জিয়া ও দুই সিটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে’
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের দল বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনা করেছি। আমরা সবকিছু আলোচনা করেছি দলীয় ফোরামে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় দলীয় চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে আয়োজিত দলের যৌথসভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘আমরা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছি। সবকিছু আমাদের দলের নীতিনির্ধারকরা অবগত আছেন। সময় বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

এছাড়া আগামীতে বিএনপি ও গণতান্ত্রিক শক্তি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য কীভাবে কাজ করতে পারে সে বিষয় সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে, বলেন বিএনপির এই নেতা।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকের সভায় দলের নেতারা আগামী দিনে আমাদের করণীয় দিকগুলো নিয়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিয়েছেন। বিশেষ করে খালেদা জিয়ার অসুস্থতা ও তার মুক্তির বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। তার সঙ্গে খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ছিলেন।

ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে আবদুল্লাহ আল নোমান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, মীর নাসির, খন্দকার মাহবুব হোসেন, রুহুল আলম চৌধুরী, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, আমিনুল হক, আবদুল আউয়াল মিন্টু, শামসুজ্জামান দুদু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, গিয়াস কাদের চৌধুরী ও শওকত মাহমুদ বৈঠকে ছিলেন।

চেয়ারপারসনের উপদেষ্টাদের মধ্যে ছিলেন- রিয়াজ রহমান, আমানউল্লাহ আমান, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, আনহ আখতার হোসেন, জয়নাল আবেদীন ভিপি, শাহজাহান মিয়া, সৈয়দ মেহেদি আহমেদ রুমি, ইসমাইল জবিউল্লাহ, হায়দার আলী, আবদুল কাইয়ুম, এনামুল হক চৌধুরী, তাজমেরী এস ইসলাম, শাহিদা রফিক, শাহজাদা মিয়া, হাবিবুর রহমান হাবিব, আতাউর রহমান ঢালী, নজমুল হক নান্নু, তাহমিনা রুশদী লুনা, সুকোমল বড়ুয়া, বিজন কান্তি সরকার, মইনুল ইসলাম শান্ত, মামুন আহমেদ, খন্দকার মুক্তাদির আহমেদ, আবদুল হাই, আবদুল হাই শিকদার, আব্দুল কুদ্দুস।

বৈঠকে যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হারুনুর রশীদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, মাহবুবে রহমান শামীম, বিলকিস জাহান শিরিন, শামা ওবায়েদ এবং সম্পাদকদের মধ্যে শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী,সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, শিরিন সুলতানা, বদরুজ্জামান খসরু, মোজাফফর হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, কামরুজ্জামান রতন, কায়সার কামাল, মীর সরফত আলী সপু, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আমিনুল হক, আবদুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আবুল কালাম, সোহরাব উদ্দিন, হাজী ইয়াসীন আলী, সেলিম ভুঁইয়া, লায়ন হারুনুর রশীদ, ফাওয়াজ হোসেন শুভ, ফরিদ হোসেন মানিক, লুৎফর রহমান কাজল, এবিএস ওবায়দুল ইসলাম ও এম এ মালেক উপস্থিত ছিলেন।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

‘খালেদা জিয়া ও দুই সিটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে’


‘খালেদা জিয়া ও দুই সিটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে’

শুক্রবার সন্ধ্যায় দলীয় চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে আয়োজিত দলের যৌথসভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘আমরা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছি। সবকিছু আমাদের দলের নীতিনির্ধারকরা অবগত আছেন। সময় বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

এছাড়া আগামীতে বিএনপি ও গণতান্ত্রিক শক্তি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য কীভাবে কাজ করতে পারে সে বিষয় সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে, বলেন বিএনপির এই নেতা।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকের সভায় দলের নেতারা আগামী দিনে আমাদের করণীয় দিকগুলো নিয়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিয়েছেন। বিশেষ করে খালেদা জিয়ার অসুস্থতা ও তার মুক্তির বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। তার সঙ্গে খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ছিলেন।

ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে আবদুল্লাহ আল নোমান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, মীর নাসির, খন্দকার মাহবুব হোসেন, রুহুল আলম চৌধুরী, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, আমিনুল হক, আবদুল আউয়াল মিন্টু, শামসুজ্জামান দুদু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, গিয়াস কাদের চৌধুরী ও শওকত মাহমুদ বৈঠকে ছিলেন।

চেয়ারপারসনের উপদেষ্টাদের মধ্যে ছিলেন- রিয়াজ রহমান, আমানউল্লাহ আমান, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, আনহ আখতার হোসেন, জয়নাল আবেদীন ভিপি, শাহজাহান মিয়া, সৈয়দ মেহেদি আহমেদ রুমি, ইসমাইল জবিউল্লাহ, হায়দার আলী, আবদুল কাইয়ুম, এনামুল হক চৌধুরী, তাজমেরী এস ইসলাম, শাহিদা রফিক, শাহজাদা মিয়া, হাবিবুর রহমান হাবিব, আতাউর রহমান ঢালী, নজমুল হক নান্নু, তাহমিনা রুশদী লুনা, সুকোমল বড়ুয়া, বিজন কান্তি সরকার, মইনুল ইসলাম শান্ত, মামুন আহমেদ, খন্দকার মুক্তাদির আহমেদ, আবদুল হাই, আবদুল হাই শিকদার, আব্দুল কুদ্দুস।

বৈঠকে যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হারুনুর রশীদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, মাহবুবে রহমান শামীম, বিলকিস জাহান শিরিন, শামা ওবায়েদ এবং সম্পাদকদের মধ্যে শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী,সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, শিরিন সুলতানা, বদরুজ্জামান খসরু, মোজাফফর হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, কামরুজ্জামান রতন, কায়সার কামাল, মীর সরফত আলী সপু, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আমিনুল হক, আবদুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আবুল কালাম, সোহরাব উদ্দিন, হাজী ইয়াসীন আলী, সেলিম ভুঁইয়া, লায়ন হারুনুর রশীদ, ফাওয়াজ হোসেন শুভ, ফরিদ হোসেন মানিক, লুৎফর রহমান কাজল, এবিএস ওবায়দুল ইসলাম ও এম এ মালেক উপস্থিত ছিলেন।

বিডিপ্রেস/আরজে