BDpress

বিজিসিসিআই এর নতুন সভাপতি ব্যারিস্টার ওমর সাদাত

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
বিজিসিসিআই এর নতুন সভাপতি ব্যারিস্টার ওমর সাদাত
বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ জার্মান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (বিজিসিসিআই) এর নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন ব্যারিস্টার ওমর সাদাত। রোববার ঢাকার সিক্স সিজনস হোটেলে বিজিসিসিআই এর ১৬তম বার্ষিক সভার পর একটি আনুষ্ঠানিক হস্তান্তর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নতুন নির্বাহী পর্ষদ ক্ষমতা গ্রহণ করে।

বিজিসিসিআই এর সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলো মধ্য থেকে প্রার্থিতা আহ্ববানের মাধ্যমে ২০১৮-২০১৯ সালের জন্য নতুন এ নির্বাহী পর্ষদ নির্বাচিত হয়। কোনো ভোট ছাড়াই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বাংলাদেশ এবং জার্মানির প্রতিষ্ঠিত ব্যাবসায়ীদের একটি অংশ বিজিসিসিআই আগামী দুই বছরের জন্য এর বাণিজ্য সংগঠনটি পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করে।

মোট ১৪ জন পর্ষদ সদস্যের মধ্য থেকে ব্যারিস্টার ওমর সাদাত এই নতুন নির্বাহী পর্ষদের সভাপতি নির্বাচিত হন। তার পাশপাশি বোর্ডের জেষ্ঠ্য সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন পিবলচাইল্ড বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মোর্শেদ এবং স্টল বাংলাদেশ লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা থমাস হফম্যান।

সহ-সভাপতি হিসেবে সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মুইন উদ্দিন মজুমদার এবং লিন্ডে বাংলাদেশ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহসিন উদ্দীন আহমেদ নির্বাচিত হয়েছেন। কোষাধ্যক্ষ নির্বাচিত হয়েছেন কুনে নাগেল এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক তরুণ পাটোয়ারী।

নির্বাহী পর্ষদের অন্যান্য সদস্যরা হলেন অস্টান লিমিটেড এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ইবনুল ওয়ারা, ডানা ইঞ্জিনিয়ারিং এর ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ খালিদ মাসুদ, যমুনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিকুল আলম, মাল্টি ফ্রেইট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মাওলা, শান্তা গার্মেন্টস এর পরিচালক খন্দকার জামিল উদ্দিন, সাইমেক্স ইন্টারন্যাশনাল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালাক মো. আনোয়ার শহীদ, কেএসকে ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাবেরা আহমেদ কলি এবং টুভ রাইনল্যান্ড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম খান।

নির্বাচিত সদস্যদের বাইরে প্রাতিষ্ঠানিক পদাধিকারে বিজিসিসিআই এর নির্বাহী পরিচালক এম এ মতিন এই পর্ষদের একজন সদস্য।

বিজিসিসিআই এর সদ্য সাবেক সভাপতি তৌফিক আলী নবনির্বাচিত নির্বাহী পর্ষদের সভাপতি ও অন্যান্য সদস্যদের অভিনন্দন জানান। তিনি তাদের সবার সাফল্য কামনা করেন এবং বিজিসিসিআইকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং নতুন নির্বাহী পর্ষদ সম্পূর্ণ সততা ও স্বচ্ছতার সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করতে সব ধরনের সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন।

নবনির্বাচিত সভাপতি ওমর সাদাত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিজিসিসিআই এর নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ওমর সাদাত এবং নির্বাহী পর্ষদের সব সদস্যকে অভিনন্দন জানাই। বিজিসিসিআই জার্মানি এবং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সম্পর্কের উন্নতিতে যে ভূমিকা পালন করছে তার ধারাবাহিকতাকে অব্যাহত রেখে নবনির্বাচিত পর্ষদ এ প্রতিষ্ঠানকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে এটাই আমার বিশ্বাস।’

নবনির্বাচিত সভাপতি, রিয়েল স্টেট প্রতিষ্ঠান লেইজার বাংলাদেশ লিমিটেড এর চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার ওমর সাদাত দুই দেশের সরকার, চেম্বার সংশ্লিষ্ট নতুন নির্বাহী পর্ষদকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যকার বাণিজ্য সম্পর্কের সার্বিক উন্নয়নে দেশের বৃহত্তম এই দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সংগঠনের মাধ্যমে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

ওমর সাদাত বিজিসিসিআইকে দুই দেশের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে আরো বেশি গ্রহণযোগ্য, নির্ভরযোগ্য বাণিজ্য সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার পরিকল্পনার কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে এবং জার্মানির মধ্যকার দ্বিপাক্ষীক বাণিজ্যিক সম্পর্কের মাঝে বিজিসিসিআই এর ভূমিকা অনেক। আমি দুই দেশের সরকার, এই সংগঠনের সাথে সম্পর্কিত সকল নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ, ঢাকাস্থ জার্মান দূতাবাস এবং বিজিসিসিআইএর সকল সদস্যকে নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চাই। এই সংগঠনকে আরো শক্তিশালী এবং কার্যকর করতে যা যা করার প্রয়োজন আমি তার সবটুকুই করবো।’

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

বিজিসিসিআই এর নতুন সভাপতি ব্যারিস্টার ওমর সাদাত


বিজিসিসিআই এর নতুন সভাপতি ব্যারিস্টার ওমর সাদাত

বিজিসিসিআই এর সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলো মধ্য থেকে প্রার্থিতা আহ্ববানের মাধ্যমে ২০১৮-২০১৯ সালের জন্য নতুন এ নির্বাহী পর্ষদ নির্বাচিত হয়। কোনো ভোট ছাড়াই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বাংলাদেশ এবং জার্মানির প্রতিষ্ঠিত ব্যাবসায়ীদের একটি অংশ বিজিসিসিআই আগামী দুই বছরের জন্য এর বাণিজ্য সংগঠনটি পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করে।

মোট ১৪ জন পর্ষদ সদস্যের মধ্য থেকে ব্যারিস্টার ওমর সাদাত এই নতুন নির্বাহী পর্ষদের সভাপতি নির্বাচিত হন। তার পাশপাশি বোর্ডের জেষ্ঠ্য সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন পিবলচাইল্ড বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মোর্শেদ এবং স্টল বাংলাদেশ লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা থমাস হফম্যান।

সহ-সভাপতি হিসেবে সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মুইন উদ্দিন মজুমদার এবং লিন্ডে বাংলাদেশ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহসিন উদ্দীন আহমেদ নির্বাচিত হয়েছেন। কোষাধ্যক্ষ নির্বাচিত হয়েছেন কুনে নাগেল এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক তরুণ পাটোয়ারী।

নির্বাহী পর্ষদের অন্যান্য সদস্যরা হলেন অস্টান লিমিটেড এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ইবনুল ওয়ারা, ডানা ইঞ্জিনিয়ারিং এর ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ খালিদ মাসুদ, যমুনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিকুল আলম, মাল্টি ফ্রেইট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মাওলা, শান্তা গার্মেন্টস এর পরিচালক খন্দকার জামিল উদ্দিন, সাইমেক্স ইন্টারন্যাশনাল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালাক মো. আনোয়ার শহীদ, কেএসকে ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাবেরা আহমেদ কলি এবং টুভ রাইনল্যান্ড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম খান।

নির্বাচিত সদস্যদের বাইরে প্রাতিষ্ঠানিক পদাধিকারে বিজিসিসিআই এর নির্বাহী পরিচালক এম এ মতিন এই পর্ষদের একজন সদস্য।

বিজিসিসিআই এর সদ্য সাবেক সভাপতি তৌফিক আলী নবনির্বাচিত নির্বাহী পর্ষদের সভাপতি ও অন্যান্য সদস্যদের অভিনন্দন জানান। তিনি তাদের সবার সাফল্য কামনা করেন এবং বিজিসিসিআইকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং নতুন নির্বাহী পর্ষদ সম্পূর্ণ সততা ও স্বচ্ছতার সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করতে সব ধরনের সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন।

নবনির্বাচিত সভাপতি ওমর সাদাত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিজিসিসিআই এর নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ওমর সাদাত এবং নির্বাহী পর্ষদের সব সদস্যকে অভিনন্দন জানাই। বিজিসিসিআই জার্মানি এবং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সম্পর্কের উন্নতিতে যে ভূমিকা পালন করছে তার ধারাবাহিকতাকে অব্যাহত রেখে নবনির্বাচিত পর্ষদ এ প্রতিষ্ঠানকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে এটাই আমার বিশ্বাস।’

নবনির্বাচিত সভাপতি, রিয়েল স্টেট প্রতিষ্ঠান লেইজার বাংলাদেশ লিমিটেড এর চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার ওমর সাদাত দুই দেশের সরকার, চেম্বার সংশ্লিষ্ট নতুন নির্বাহী পর্ষদকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যকার বাণিজ্য সম্পর্কের সার্বিক উন্নয়নে দেশের বৃহত্তম এই দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সংগঠনের মাধ্যমে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

ওমর সাদাত বিজিসিসিআইকে দুই দেশের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে আরো বেশি গ্রহণযোগ্য, নির্ভরযোগ্য বাণিজ্য সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার পরিকল্পনার কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে এবং জার্মানির মধ্যকার দ্বিপাক্ষীক বাণিজ্যিক সম্পর্কের মাঝে বিজিসিসিআই এর ভূমিকা অনেক। আমি দুই দেশের সরকার, এই সংগঠনের সাথে সম্পর্কিত সকল নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ, ঢাকাস্থ জার্মান দূতাবাস এবং বিজিসিসিআইএর সকল সদস্যকে নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চাই। এই সংগঠনকে আরো শক্তিশালী এবং কার্যকর করতে যা যা করার প্রয়োজন আমি তার সবটুকুই করবো।’

বিডিপ্রেস/আরজে