BDpress

ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞ নিয়ে এরদোয়ান-মাহাথির ফোনালাপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অ+ অ-
ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞ নিয়ে এরদোয়ান-মাহাথির ফোনালাপ
জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থাপনকে কেন্দ্র করে গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের নারকীয় হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গে কথা বলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। জেরুজালেমের পবিত্র আল আকসা মসজিদ দেখভালের দায়িত্ব পালনকারী জর্ডানের বাদশা দ্বিতীয় আবদুল্লাহ’র সঙ্গেও ফোনে কথা বলেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। এছাড়া একই ইস্যুতে সৌদি বাদশা সালমান বিন আবদুলআজিজ এবং কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আল-আহমাদ আল-সাবাহ’কেও ফোন করেন এরদোয়ান।

রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান এবং মাহাথির মোহাম্মদমঙ্গলবার দুই নেতার সঙ্গে আলোচনায় জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর এবং গাজা উপত্যকার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। এছাড়া ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় করণীয় নির্ধারণ নিয়ে দুই নেতার সঙ্গে কথা বলেন এরদোয়ান।

১৪ মে গাজা উপত্যকায় হামলে পড়া দখলদার বাহিনীর তাণ্ডবে নিহত হন অন্তত ৬১ জন। তাদের বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ থেকে বাদ যায়নি নিষ্পাপ শিশুও। বর্বরতার সাক্ষী হয়েছে আছে মাত্র আট মাসের শিশু লিলা আল ঘানদৌর। আহত হয়েছেন প্রায় আড়াই হাজার মানুষ। এ ঘটনায় ওইদিনই ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে ফোন করেন লন্ডনে অবস্থানরত তুর্কি প্রেসিডেন্ট। 

বর্বরোচিত এ হত্যাযজ্ঞ নিয়ে ১৮ মে শুক্রবার মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসি’র জরুরি বৈঠকের পরিকল্পনা করছে তুরস্ক। ওই বৈঠক থেকে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে মুসলিম উম্মাহর সম্মিলিত পদক্ষেপের রূপরেখা নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন এরদোয়ান।

লন্ডনে শিক্ষার্থীদের এক সমাবেশে ইসরায়েলকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করে তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, মুসলমানরা কখনও জেরুজালেমকে নিজেদের হাতছাড়া হতে দেবে না। সূত্র: ডেইলি সাবাহ, আনাদোলু এজেন্সি।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞ নিয়ে এরদোয়ান-মাহাথির ফোনালাপ


ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞ নিয়ে এরদোয়ান-মাহাথির ফোনালাপ

রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান এবং মাহাথির মোহাম্মদমঙ্গলবার দুই নেতার সঙ্গে আলোচনায় জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর এবং গাজা উপত্যকার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। এছাড়া ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় করণীয় নির্ধারণ নিয়ে দুই নেতার সঙ্গে কথা বলেন এরদোয়ান।

১৪ মে গাজা উপত্যকায় হামলে পড়া দখলদার বাহিনীর তাণ্ডবে নিহত হন অন্তত ৬১ জন। তাদের বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ থেকে বাদ যায়নি নিষ্পাপ শিশুও। বর্বরতার সাক্ষী হয়েছে আছে মাত্র আট মাসের শিশু লিলা আল ঘানদৌর। আহত হয়েছেন প্রায় আড়াই হাজার মানুষ। এ ঘটনায় ওইদিনই ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে ফোন করেন লন্ডনে অবস্থানরত তুর্কি প্রেসিডেন্ট। 

বর্বরোচিত এ হত্যাযজ্ঞ নিয়ে ১৮ মে শুক্রবার মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসি’র জরুরি বৈঠকের পরিকল্পনা করছে তুরস্ক। ওই বৈঠক থেকে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে মুসলিম উম্মাহর সম্মিলিত পদক্ষেপের রূপরেখা নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন এরদোয়ান।

লন্ডনে শিক্ষার্থীদের এক সমাবেশে ইসরায়েলকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করে তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, মুসলমানরা কখনও জেরুজালেমকে নিজেদের হাতছাড়া হতে দেবে না। সূত্র: ডেইলি সাবাহ, আনাদোলু এজেন্সি।

বিডিপ্রেস/আরজে