BDpress

যৌন কেলেঙ্কারির জেরে স্থগিত সাহিত্যের নোবেল

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
যৌন কেলেঙ্কারির জেরে স্থগিত সাহিত্যের নোবেল
আর্থিক অসদুপায়, ঘোষণার আগে বিজয়ীর নাম ফাঁস ও যৌন কেলেঙ্কারিতে জর্জরিত সুইডিশ একাডেমি আস্থা পুনরুদ্ধারে সক্ষম না হলে ২০১৯ সালে সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার দেয়া হবে না। এমনকি এই পুরস্কার এক বছরের বেশি সময় ধরে স্থগিত থাকতে পারে।

নোবেল ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক লারস হেইকেনস্টেনের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

২০১৮ সালের সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার বাতিলের এক সপ্তাহ পর লারস হেইকেনস্টেন সুইডিশ একাডেমির কেলেঙ্কারির অভিযোগ স্বীকার করলেন।

এর আগে গত ৪ মে সাহিত্যে বিশ্বের শীর্ষ এই পুরস্কার ২০১৮ সালে দেয়া হবে বলে ঘোষণা দেয় সুইডিশ একাডেমি। একাডেমির সদস্য কাটারিনা ফ্রস্টেনসনের স্বামীর বিরুদ্ধে একাধিক যৌন হয়রানি ও নিপীড়নের অভিযোগ উঠার পর এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তবে কাটারিনা ফ্রস্টেনসনের স্বামী আলোকচিত্রী জ্যঁ ক্লদ আর্নল্ট তার বিরুদ্ধে আনা সব ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একাডেমির বেশ কয়েকজন সদস্য পদত্যাগ করেন। সাহিত্যের নোবেল বিজয়ীর জন্য সুইডিশ একাডেমির ১২ সদস্যের কমিটি কাজ করে। কিন্তু ওই পদত্যাগের ঘটনার পর সক্রিয় মাত্র ১০ সদস্য রয়েছে একাডেমির। যে কারণে চলতি বছরে সাহিত্যের নোবেল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত হয়।

২০১৯ সালে একসঙ্গে দুই বছরের সাহিত্যের নোবেল বিজয়ী ঘোষণার দাবি উঠলেও শেষ পর্যন্ত তা নাকচ করে দেয়া হয়। এক সঙ্গে দুই বিজয়ী ঘোষণার বদলে একাডেমির ওপর জনগণের আস্থা পুনরুদ্ধারের ওপর জোর দিয়েছে সুইডিশ একাডেমি।

বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেলের ইচ্ছা অনুযায়ী প্রত্যেক বছর নোবেল পুরস্কার দিয়ে আসছে নোবেল ফাউন্ডেশন। সাহিত্যের নোবেল স্থগিতে সুইডিশ একাডেমির এ সিদ্ধান্তে সমর্থন জানিয়েছে নোবেল ফাউন্ডেশন।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

যৌন কেলেঙ্কারির জেরে স্থগিত সাহিত্যের নোবেল


যৌন কেলেঙ্কারির জেরে স্থগিত সাহিত্যের নোবেল

নোবেল ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক লারস হেইকেনস্টেনের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

২০১৮ সালের সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার বাতিলের এক সপ্তাহ পর লারস হেইকেনস্টেন সুইডিশ একাডেমির কেলেঙ্কারির অভিযোগ স্বীকার করলেন।

এর আগে গত ৪ মে সাহিত্যে বিশ্বের শীর্ষ এই পুরস্কার ২০১৮ সালে দেয়া হবে বলে ঘোষণা দেয় সুইডিশ একাডেমি। একাডেমির সদস্য কাটারিনা ফ্রস্টেনসনের স্বামীর বিরুদ্ধে একাধিক যৌন হয়রানি ও নিপীড়নের অভিযোগ উঠার পর এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তবে কাটারিনা ফ্রস্টেনসনের স্বামী আলোকচিত্রী জ্যঁ ক্লদ আর্নল্ট তার বিরুদ্ধে আনা সব ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একাডেমির বেশ কয়েকজন সদস্য পদত্যাগ করেন। সাহিত্যের নোবেল বিজয়ীর জন্য সুইডিশ একাডেমির ১২ সদস্যের কমিটি কাজ করে। কিন্তু ওই পদত্যাগের ঘটনার পর সক্রিয় মাত্র ১০ সদস্য রয়েছে একাডেমির। যে কারণে চলতি বছরে সাহিত্যের নোবেল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত হয়।

২০১৯ সালে একসঙ্গে দুই বছরের সাহিত্যের নোবেল বিজয়ী ঘোষণার দাবি উঠলেও শেষ পর্যন্ত তা নাকচ করে দেয়া হয়। এক সঙ্গে দুই বিজয়ী ঘোষণার বদলে একাডেমির ওপর জনগণের আস্থা পুনরুদ্ধারের ওপর জোর দিয়েছে সুইডিশ একাডেমি।

বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেলের ইচ্ছা অনুযায়ী প্রত্যেক বছর নোবেল পুরস্কার দিয়ে আসছে নোবেল ফাউন্ডেশন। সাহিত্যের নোবেল স্থগিতে সুইডিশ একাডেমির এ সিদ্ধান্তে সমর্থন জানিয়েছে নোবেল ফাউন্ডেশন।

বিডিপ্রেস/আরজে