BDpress

সাভারে অপহৃত শিশুর মরদেহ উদ্ধার, আটক ২

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
সাভারে অপহৃত শিশুর মরদেহ উদ্ধার, আটক ২
সাভারে অপহরণের ৩ দিনপর জয়ন্ত নামে ৪ বছরের এক শিশুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুই অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বুধবার (৪ জুলাই) রাত ১১টার দিকে সাভার-সিংগাইয়ের সীমানা ব্রিজের নীচে বংশী নদী থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় শিশু জয়ন্তের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

শিশুটির বাবা সনু সাভারে হেমায়েতপুরে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করে। আটক যুবকরা হলেন- শুভ ও নাছির। তারা সম্পর্কে শালা-দুলাভাই। তারা হেমায়েতপুরে সনুর পাশের কক্ষে ভাড়া থাকতো।

সনু জানান, ১ জুলাই সকাল ১১টার পর থেকে শিশু জয়ন্তকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। মাইকিং ও অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে গত ২ জুলাই থানায় সাধারণ ডায়েরি করে। এদিকে অপহরণকারী মুক্তিপণ চেয়ে এক লাখ টাকা দাবি করে। পরে বিকাশে ৭ হাজার টাকাও দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজগার আলী বলেন, গত ২ জুলাই শিশু জয়ন্ত নিখোঁজের সাধারণ ডায়েরির সূত্রধরে তদন্ত শুরু হয়। প্রযুক্তির পাশাপাশি এলাকায় গোয়ান্দা নজরদারি রাখি। অপহৃত শিশুর প্রতিবেশি শুভ ও নাছির শিশুটির বাবাকে নানাভাবে বুঝানোর চেষ্টা ও বুদ্ধি পরামর্শ দিয়ে আসছিলো। বিষয়টি সন্দেহ হলে তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করি। এক পর্যায়ে অপহরণ ঘটনাটি সামনে আসে।

এ ঘটনায় ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের পুলিশ পরিদর্শক আবুল বাশার জানান, নিখোঁজের সূত্রধরে গোয়েন্দা পুলিশও কাজ শুরু করে। পরে সাভার মডেল থানার সঙ্গে সমন্বয় করে যৌথ অভিযান চালিয়ে অপহরণকারীদের গ্রেফতার করা হয়। পরে শিশু জয়ন্তের মৃতদেহ নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। এ বিষয়ে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

সাভারে অপহৃত শিশুর মরদেহ উদ্ধার, আটক ২


সাভারে অপহৃত শিশুর মরদেহ উদ্ধার, আটক ২

বুধবার (৪ জুলাই) রাত ১১টার দিকে সাভার-সিংগাইয়ের সীমানা ব্রিজের নীচে বংশী নদী থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় শিশু জয়ন্তের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

শিশুটির বাবা সনু সাভারে হেমায়েতপুরে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করে। আটক যুবকরা হলেন- শুভ ও নাছির। তারা সম্পর্কে শালা-দুলাভাই। তারা হেমায়েতপুরে সনুর পাশের কক্ষে ভাড়া থাকতো।

সনু জানান, ১ জুলাই সকাল ১১টার পর থেকে শিশু জয়ন্তকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। মাইকিং ও অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে গত ২ জুলাই থানায় সাধারণ ডায়েরি করে। এদিকে অপহরণকারী মুক্তিপণ চেয়ে এক লাখ টাকা দাবি করে। পরে বিকাশে ৭ হাজার টাকাও দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজগার আলী বলেন, গত ২ জুলাই শিশু জয়ন্ত নিখোঁজের সাধারণ ডায়েরির সূত্রধরে তদন্ত শুরু হয়। প্রযুক্তির পাশাপাশি এলাকায় গোয়ান্দা নজরদারি রাখি। অপহৃত শিশুর প্রতিবেশি শুভ ও নাছির শিশুটির বাবাকে নানাভাবে বুঝানোর চেষ্টা ও বুদ্ধি পরামর্শ দিয়ে আসছিলো। বিষয়টি সন্দেহ হলে তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করি। এক পর্যায়ে অপহরণ ঘটনাটি সামনে আসে।

এ ঘটনায় ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের পুলিশ পরিদর্শক আবুল বাশার জানান, নিখোঁজের সূত্রধরে গোয়েন্দা পুলিশও কাজ শুরু করে। পরে সাভার মডেল থানার সঙ্গে সমন্বয় করে যৌথ অভিযান চালিয়ে অপহরণকারীদের গ্রেফতার করা হয়। পরে শিশু জয়ন্তের মৃতদেহ নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। এ বিষয়ে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
বিডিপ্রেস/আলী