BDpress

ইপিজেডের রফতানিকারকরাও পাবেন রফতানি ট্রফি: বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
ইপিজেডের রফতানিকারকরাও পাবেন রফতানি ট্রফি: বাণিজ্যমন্ত্রী
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, দেশের রফতানি খাতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য জাতীয় রফতানি ট্রফি প্রদান করা হয়। কিন্তু রফতানি প্রক্রিয়াজতকরণ অঞ্চল-ইপিজেড থেকে রফতানিকারকরা এ সুযোগ থেকে বঞ্চিত ছিলেন। আগামীতে ইপিজেড থেকে রফতানিকারকদেরও জাতীয় রফতানি ট্রফি প্রদান করা হবে।

রোববার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো আয়োজিত জাতীয় রফতানি ট্রফি ২০১৪-১৫ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক সফলতার জন্য দেশের ব্যবসায়ীদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রশংসনীয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের হাল ধরে ছিলেন শূন্য হাতে। আজ ১৯৯টি দেশে বাংলাদেশের ৭৭২টি পণ্য রফতানি করে আয় করছে প্রায় ৩৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালে এ রফতানি ৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে যাবে। শুধু তৈরি পোশাক রফতানি করে আয় হবে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তৈরি পোশাক রফতানি থেকে গত বছর ৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও আয় হয়েছে ৩৩.৬৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তিনি বলেন, রফতানি বাণিজ্য বৃদ্ধির জন্য সরকার সবধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। রফতানিকারকদের পলিসি সাপোর্ট ও নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। উৎপাদনের সাথে জড়িত শ্রমিকদের স্বার্থ রক্ষায় সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকরা এখন নিরাপদ ও কর্মবান্ধব পরিবেশে কাজ করছে। দেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলো এখন গ্রিন ফ্যাক্টরিতে পরিণত হয়েছে।

এসময় তিনি বলেন, দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে প্রধানমন্ত্রী ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন। এগুলোর বাস্তবায়নের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অসামান্য অবদানের জন্য রফতানি বাণিজ্য উন্নয়নে মুখ্য ভূমিকা পালনকারী ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাসমূহকে প্রতিবছর জাতীয় রফতানি ট্রফি ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৪-১৫ অর্থবছরে রফতানি খাতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য মোট ৬৩টি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় রফতানি ট্রফি ও সনদ প্রদান করা হয়। বাণিজ্যমন্ত্রী রফতানিকারকদের মাঝে এ ট্রফি ও সনদ বিতরণ করেন। 

বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী, এফবিসিসিআই’র সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টচার্য্য। 

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

ইপিজেডের রফতানিকারকরাও পাবেন রফতানি ট্রফি: বাণিজ্যমন্ত্রী


ইপিজেডের রফতানিকারকরাও পাবেন রফতানি ট্রফি: বাণিজ্যমন্ত্রী

রোববার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো আয়োজিত জাতীয় রফতানি ট্রফি ২০১৪-১৫ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক সফলতার জন্য দেশের ব্যবসায়ীদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রশংসনীয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের হাল ধরে ছিলেন শূন্য হাতে। আজ ১৯৯টি দেশে বাংলাদেশের ৭৭২টি পণ্য রফতানি করে আয় করছে প্রায় ৩৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালে এ রফতানি ৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে যাবে। শুধু তৈরি পোশাক রফতানি করে আয় হবে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তৈরি পোশাক রফতানি থেকে গত বছর ৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও আয় হয়েছে ৩৩.৬৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তিনি বলেন, রফতানি বাণিজ্য বৃদ্ধির জন্য সরকার সবধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। রফতানিকারকদের পলিসি সাপোর্ট ও নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। উৎপাদনের সাথে জড়িত শ্রমিকদের স্বার্থ রক্ষায় সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকরা এখন নিরাপদ ও কর্মবান্ধব পরিবেশে কাজ করছে। দেশের তৈরি পোশাক কারখানাগুলো এখন গ্রিন ফ্যাক্টরিতে পরিণত হয়েছে।

এসময় তিনি বলেন, দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে প্রধানমন্ত্রী ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন। এগুলোর বাস্তবায়নের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অসামান্য অবদানের জন্য রফতানি বাণিজ্য উন্নয়নে মুখ্য ভূমিকা পালনকারী ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাসমূহকে প্রতিবছর জাতীয় রফতানি ট্রফি ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৪-১৫ অর্থবছরে রফতানি খাতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য মোট ৬৩টি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় রফতানি ট্রফি ও সনদ প্রদান করা হয়। বাণিজ্যমন্ত্রী রফতানিকারকদের মাঝে এ ট্রফি ও সনদ বিতরণ করেন। 

বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী, এফবিসিসিআই’র সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টচার্য্য। 

বিডিপ্রেস/আরজে