BDpress

দীপন হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১৩ সেপ্টেম্বর

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
দীপন হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১৩ সেপ্টেম্বর
জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্ত্বাধিকার ও প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি তদন্তকারী সংস্থা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। যে কারণে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নতুন তারিখ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৩১ জুলাই ) মামলাটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল না করায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবিব এই নতুন তারিখ ধার্য করেছেন।

এর আগে, ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর বিকালে রাজধানীর শাহবাগ এলাকায় আজিজ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় নিজের প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে ফয়সল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় প্রকাশক দীপনের স্ত্রী ডা. রাজিয়া রহমান শাহবাগ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলা দায়ের করার পর বিভিন্ন সময় আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে তদন্ত সংস্থা। তারা হলেন- মাঈনুল হাসান শামীম, আব্দুস সামাদ ওরফে আব্দুস সবুর , খায়রুল ইসলাম ও শেখ আব্দুল্লাহ ওরফে জুবায়ের ওরফে জায়েদ ওরফে জাবেদ ওরফে আবু ওমায়ের। তারা কারাগারে রয়েছেন।
বিডিপ্রেস/আলী
 



এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

দীপন হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১৩ সেপ্টেম্বর


দীপন হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১৩ সেপ্টেম্বর

মঙ্গলবার (৩১ জুলাই ) মামলাটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল না করায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবিব এই নতুন তারিখ ধার্য করেছেন।

এর আগে, ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর বিকালে রাজধানীর শাহবাগ এলাকায় আজিজ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় নিজের প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে ফয়সল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় প্রকাশক দীপনের স্ত্রী ডা. রাজিয়া রহমান শাহবাগ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলা দায়ের করার পর বিভিন্ন সময় আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে তদন্ত সংস্থা। তারা হলেন- মাঈনুল হাসান শামীম, আব্দুস সামাদ ওরফে আব্দুস সবুর , খায়রুল ইসলাম ও শেখ আব্দুল্লাহ ওরফে জুবায়ের ওরফে জায়েদ ওরফে জাবেদ ওরফে আবু ওমায়ের। তারা কারাগারে রয়েছেন।
বিডিপ্রেস/আলী