BDpress

সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চায় যাত্রী কল্যাণ সমিতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চায় যাত্রী কল্যাণ সমিতি
প্রস্তাবিত সড়ক পরিবহন আইনে সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। রোববার সংগঠনের মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান।

একইসঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনায় আহতদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা এবং নিহত পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য প্রস্তাবিত আইনে ‘সড়ক নিরাপত্তা তহবিল’ গঠনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্তির দাবি জানায় সংগঠনটি।

বিবৃতিতে বলা হয়, যাত্রীস্বার্থ উপেক্ষা করে মালিক-শ্রমিক স্বার্থ প্রাধান্য দিয়ে পরিবহনের সব কমিটিতে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ফলে যাত্রী হয়রানি ও ভাড়া নৈরাজ্য দিন দিন বাড়ছে। এতে করে জনদুর্ভোগ আজ চরমে পৌঁছেছে। তাই পরিবহন পরিচালনা, ভাড়া নির্ধারণ, আঞ্চলিক পরিবহন কমিটি, জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলসহ সব কমিটিতে মালিক শ্রমিকদের পাশাপাশি যাত্রীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়। একইসঙ্গে বিনা অজুহাতে বা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে, চাঁদাবাজি, অভ্যন্তরীণ কোন্দল, মালিক-শ্রমিক দ্বন্দ্ব বা অন্য কোন কারণে যাতে পরিবহন বন্ধ রেখে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করতে না পারে প্রস্তাবিত আইনে তার বিধান সংযুক্ত করার দাবি জানায় সংগঠনটি।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চায় যাত্রী কল্যাণ সমিতি


সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চায় যাত্রী কল্যাণ সমিতি

একইসঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনায় আহতদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা এবং নিহত পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য প্রস্তাবিত আইনে ‘সড়ক নিরাপত্তা তহবিল’ গঠনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্তির দাবি জানায় সংগঠনটি।

বিবৃতিতে বলা হয়, যাত্রীস্বার্থ উপেক্ষা করে মালিক-শ্রমিক স্বার্থ প্রাধান্য দিয়ে পরিবহনের সব কমিটিতে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ফলে যাত্রী হয়রানি ও ভাড়া নৈরাজ্য দিন দিন বাড়ছে। এতে করে জনদুর্ভোগ আজ চরমে পৌঁছেছে। তাই পরিবহন পরিচালনা, ভাড়া নির্ধারণ, আঞ্চলিক পরিবহন কমিটি, জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলসহ সব কমিটিতে মালিক শ্রমিকদের পাশাপাশি যাত্রীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়। একইসঙ্গে বিনা অজুহাতে বা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে, চাঁদাবাজি, অভ্যন্তরীণ কোন্দল, মালিক-শ্রমিক দ্বন্দ্ব বা অন্য কোন কারণে যাতে পরিবহন বন্ধ রেখে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করতে না পারে প্রস্তাবিত আইনে তার বিধান সংযুক্ত করার দাবি জানায় সংগঠনটি।

বিডিপ্রেস/আরজে