BDpress

সিলেটে রাগীব আলী ও তার ছেলের ১৪ বছরের সাজা বহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
সিলেটে রাগীব আলী ও তার ছেলের ১৪ বছরের সাজা বহাল
ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতির মামলায় সিলেটের ব্যবসায়ী রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাইয়ের ১৪ বছরের কারাদণ্ড বহাল রেখেছেন একটি আপিল আদালত। বৃহস্পতিবার সকালে সিলেটের বিশেষ দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট নওসাদ আমদ চৌধুরী বলেন, গত বছর ২ ফেব্রুয়ারি সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো রাগীব আলী ও তার ছেলেকে ১৪ বছরের সাজা দেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতে আপিল করেন রাগীব আলী ও তার ছেলে।

তিনি বলেন, আপিল নিষ্পত্তির জন্য তা সিলেটের বিশেষ দায়রা জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়। শুনানি শেষে আদালত আগের রায় বহাল রেখে আদেশ দিয়েছেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু।

১৯৯০ সালে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক (চিঠি) জালিয়াতি করে ভুয়া সেবায়েত সাজিয়ে তারাপুর চা-বাগানের ৪২২ দশমিক ৯৬ একর দেবোত্তর সম্পত্তি রাগীব আলী দখল করেন বলে অভিযোগ ওঠে।

২০০৫ সালে জালিয়াতি ও সরকারের এক হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা করেন সিলেট সদরের তৎকালীন কমিশনার (ভূমি) এসএম আব্দুল কাদের।

মামলা হওয়ার ১১ বছর পর সিলেটের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের অতিরিক্ত সুপার সারোয়ার জাহান ২০১৬ সালের ১০ জুলাই দুই মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

স্মারক জালিয়াতি ছাড়াও প্রতারণার মাধ্যমে ভূমি আত্মসাতের অপর মামলায় গত বছর ৬ এপ্রিল রাগীব আলীকে ১৪ বছর আর তার ছেলে আব্দুল হাইকে ১৬ বছরের সাজা দেয় আদালত।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

সিলেটে রাগীব আলী ও তার ছেলের ১৪ বছরের সাজা বহাল


সিলেটে রাগীব আলী ও তার ছেলের ১৪ বছরের সাজা বহাল

আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট নওসাদ আমদ চৌধুরী বলেন, গত বছর ২ ফেব্রুয়ারি সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো রাগীব আলী ও তার ছেলেকে ১৪ বছরের সাজা দেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতে আপিল করেন রাগীব আলী ও তার ছেলে।

তিনি বলেন, আপিল নিষ্পত্তির জন্য তা সিলেটের বিশেষ দায়রা জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়। শুনানি শেষে আদালত আগের রায় বহাল রেখে আদেশ দিয়েছেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু।

১৯৯০ সালে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক (চিঠি) জালিয়াতি করে ভুয়া সেবায়েত সাজিয়ে তারাপুর চা-বাগানের ৪২২ দশমিক ৯৬ একর দেবোত্তর সম্পত্তি রাগীব আলী দখল করেন বলে অভিযোগ ওঠে।

২০০৫ সালে জালিয়াতি ও সরকারের এক হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা করেন সিলেট সদরের তৎকালীন কমিশনার (ভূমি) এসএম আব্দুল কাদের।

মামলা হওয়ার ১১ বছর পর সিলেটের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের অতিরিক্ত সুপার সারোয়ার জাহান ২০১৬ সালের ১০ জুলাই দুই মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

স্মারক জালিয়াতি ছাড়াও প্রতারণার মাধ্যমে ভূমি আত্মসাতের অপর মামলায় গত বছর ৬ এপ্রিল রাগীব আলীকে ১৪ বছর আর তার ছেলে আব্দুল হাইকে ১৬ বছরের সাজা দেয় আদালত।

বিডিপ্রেস/আরজে