BDpress

সিরিজ জেতা হলো না বাংলাদেশ ‘এ’ দলের

ক্রীড়া ডেস্ক

অ+ অ-
সিরিজ জেতা হলো না বাংলাদেশ ‘এ’ দলের
আয়ারল্যান্ডের ক্লনটার্ফ ক্রিকেট ক্লাব মাঠে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচের শুরুটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। পাঁচ ম্যাচের আনঅফিসিয়াল সিরিজের শেষ ম্যাচে বড় রান সংগ্রহ করেও আট উইকেটের হার মুমিনুল হকের দলের।

সিরিজের প্রথম ম্যাচ ভেসে যায় বৃষ্টিতে। পরের ম্যাচে বাংলাদেশ আর তৃতীয় ম্যাচে আইরিশরা জিতে সিরিজ সমতায় আনে আইরিশরা। চতুর্থ ম্যাচে মুমিনুলের বীরত্ব গাঁথা শতকে আবারও জয় পায় বাংলাদেশ।

গতকাল ক্লনটার্ফ ক্রিকেট ক্লাব মাঠে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা নড়বড়ে হলেও দুই নম্বরে ব্যাট করতে এসে ৪৬ রান করেন আগের ম্যাচের শতক হাঁকানো মুমিনুল হক। 

এরপর মিডল অর্ডারে মোহাম্মদ মিথুন আর ফজলে রাব্বির জুটিতে আভাস পাওয়া যায় বড় সংগ্রহের।

মিথুন করেন ৭৩ আর রাব্বি করেন ৭৪ রান। আল আমিন জুনিয়রের ব্যাটে আসে ২২ রান। সব মিলে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৮৩ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই জ্যামস শেননের উইকেট হারায় স্বাগতিক দল। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি আরেক ওপেনার এন্ড্রু বালব্রিনি আর এন্ড্রু ম্যাকব্রিনিকে। 

ম্যাকব্রিনি ৮৯ রান করে আউট হয়ে গেলেও বালব্রিনি খেলেন অনবদ্য ১৬০ রানের ইনিংস।

সিমি সিংয়ের সঙ্গে জুটি বেঁধে আইরিশরা ২৮৩ রানের লক্ষ্য টপকে যায় ৪৬.৪ বলে। বালব্রিনির শতকে ৮ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় স্বাগতিক দল। 

পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-২ ম্যাচে ড্র হয় সিরিজ। এরপর রয়েছে তিন ম্যাচের আনঅফিসিয়াল টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

১৩ আগস্ট প্রথম টি-টোয়েন্টি। এরপর ১৫ ও ১৭ আগস্ট দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

সিরিজ জেতা হলো না বাংলাদেশ ‘এ’ দলের


সিরিজ জেতা হলো না বাংলাদেশ ‘এ’ দলের

সিরিজের প্রথম ম্যাচ ভেসে যায় বৃষ্টিতে। পরের ম্যাচে বাংলাদেশ আর তৃতীয় ম্যাচে আইরিশরা জিতে সিরিজ সমতায় আনে আইরিশরা। চতুর্থ ম্যাচে মুমিনুলের বীরত্ব গাঁথা শতকে আবারও জয় পায় বাংলাদেশ।

গতকাল ক্লনটার্ফ ক্রিকেট ক্লাব মাঠে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা নড়বড়ে হলেও দুই নম্বরে ব্যাট করতে এসে ৪৬ রান করেন আগের ম্যাচের শতক হাঁকানো মুমিনুল হক। 

এরপর মিডল অর্ডারে মোহাম্মদ মিথুন আর ফজলে রাব্বির জুটিতে আভাস পাওয়া যায় বড় সংগ্রহের।

মিথুন করেন ৭৩ আর রাব্বি করেন ৭৪ রান। আল আমিন জুনিয়রের ব্যাটে আসে ২২ রান। সব মিলে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৮৩ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই জ্যামস শেননের উইকেট হারায় স্বাগতিক দল। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি আরেক ওপেনার এন্ড্রু বালব্রিনি আর এন্ড্রু ম্যাকব্রিনিকে। 

ম্যাকব্রিনি ৮৯ রান করে আউট হয়ে গেলেও বালব্রিনি খেলেন অনবদ্য ১৬০ রানের ইনিংস।

সিমি সিংয়ের সঙ্গে জুটি বেঁধে আইরিশরা ২৮৩ রানের লক্ষ্য টপকে যায় ৪৬.৪ বলে। বালব্রিনির শতকে ৮ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় স্বাগতিক দল। 

পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-২ ম্যাচে ড্র হয় সিরিজ। এরপর রয়েছে তিন ম্যাচের আনঅফিসিয়াল টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

১৩ আগস্ট প্রথম টি-টোয়েন্টি। এরপর ১৫ ও ১৭ আগস্ট দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

বিডিপ্রেস/আরজে