BDpress

নেইমার-এমবাপে-কাভানিতে হ্যাটট্রিক জয় পিএসজির

ক্রীড়া ডেস্ক

অ+ অ-
নেইমার-এমবাপে-কাভানিতে হ্যাটট্রিক জয় পিএসজির
লিগ ওয়ানে উড়ছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। সেই সঙ্গে উড়ছেন দলের ভরসা নেইমার, এমবাপে, কাভানিরা। এই তিন ত্রয়ীর গোলে মৌসুমের প্রথম তিন ম্যাচেই হ্যাটট্রিক জয় তুলে নিয়েছে পিএসজি। আর এতে করে ফ্রেঞ্চ লিগে দারুন শুরু করেছেন পিএসজির নতুন কোচ টমাস টুখেল।

পিএসজির ঘরের মাঠে আতিথেয়তা নিতে যায় অঁজি। পিএসজির হয়ে নেইমার, এমবাপে ও কাভানি গোল করেন। অপর দিকে অঁজির হয়ে একটি গোল শোধ করেন তোমা মানগানি। 

মৌসুমের প্রথম দু’ম্যাচে চোটের কারণে দলের বাইরে ছিলেন। গতকাল মৌসুমের প্রথম ম্যাচে মাঠে নেমেই গোল পেলেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার এডিনসন কাভানি। ম্যাচের ১২তম মিনিটে ডানদিক থেকে নেইমারের ক্রস প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে ছয় গজ বক্সের মুখে ফাঁকায় পেয়ে অনায়াসে গোলটি করেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। অবশ্য তার দুই মিনিট পরে আবারও সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই যাত্রায় নেইমারের ক্রসে তার হেড ক্রসবারে লেগে ব্যর্থ হয়।

২১তম মিনিটে ফরাসি মিডফিল্ডার তোমা মানগানির গোলে সমতায় ফেরে অঁজি। পেনাল্টি কিকে গোলটি করেন এই তারকা। প্রথমার্ধে গোল সমতা নিয়েই বিরতিতে যায় উভয় দল।

বিরতি থেকে ফিরে ৫১তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন রাশিয়া বিশ্বকাপের উদীয়মান তারকা খেলোয়াড় কিলিয়ান এমবাপে। বাঁ-দিক থেকে আঞ্জেলো ডি মারিয়ার ক্রস ডান পায়ের কোনাকুনি ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্স দলের এই স্ট্রাইকার। এ মৌসুমে এটি ছিল এমবাপে তিন নম্বর গোল।

ম্যাচের ৬৬তম মিনিটে এমবাপে স্বদেশি আদ্রিয়াঁ রাবিওর সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান করে ডি-বক্সের মাঝ বরাবর পাস দেন এমবাপে। আর সহজেই গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার। এ নিয়ে লিগে তৃতীয় গোল পেলেন নেইমার। 

টানা তিন ম্যাচে জয় পেয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে আছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

নেইমার-এমবাপে-কাভানিতে হ্যাটট্রিক জয় পিএসজির


নেইমার-এমবাপে-কাভানিতে হ্যাটট্রিক জয় পিএসজির

পিএসজির ঘরের মাঠে আতিথেয়তা নিতে যায় অঁজি। পিএসজির হয়ে নেইমার, এমবাপে ও কাভানি গোল করেন। অপর দিকে অঁজির হয়ে একটি গোল শোধ করেন তোমা মানগানি। 

মৌসুমের প্রথম দু’ম্যাচে চোটের কারণে দলের বাইরে ছিলেন। গতকাল মৌসুমের প্রথম ম্যাচে মাঠে নেমেই গোল পেলেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার এডিনসন কাভানি। ম্যাচের ১২তম মিনিটে ডানদিক থেকে নেইমারের ক্রস প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের পায়ে লেগে ছয় গজ বক্সের মুখে ফাঁকায় পেয়ে অনায়াসে গোলটি করেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। অবশ্য তার দুই মিনিট পরে আবারও সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই যাত্রায় নেইমারের ক্রসে তার হেড ক্রসবারে লেগে ব্যর্থ হয়।

২১তম মিনিটে ফরাসি মিডফিল্ডার তোমা মানগানির গোলে সমতায় ফেরে অঁজি। পেনাল্টি কিকে গোলটি করেন এই তারকা। প্রথমার্ধে গোল সমতা নিয়েই বিরতিতে যায় উভয় দল।

বিরতি থেকে ফিরে ৫১তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন রাশিয়া বিশ্বকাপের উদীয়মান তারকা খেলোয়াড় কিলিয়ান এমবাপে। বাঁ-দিক থেকে আঞ্জেলো ডি মারিয়ার ক্রস ডান পায়ের কোনাকুনি ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্স দলের এই স্ট্রাইকার। এ মৌসুমে এটি ছিল এমবাপে তিন নম্বর গোল।

ম্যাচের ৬৬তম মিনিটে এমবাপে স্বদেশি আদ্রিয়াঁ রাবিওর সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান করে ডি-বক্সের মাঝ বরাবর পাস দেন এমবাপে। আর সহজেই গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার। এ নিয়ে লিগে তৃতীয় গোল পেলেন নেইমার। 

টানা তিন ম্যাচে জয় পেয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে আছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই।

বিডিপ্রেস/আরজে