BDpress

২৪ ঘণ্টায় সড়কে ঝরল ১২ প্রাণ

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
২৪ ঘণ্টায় সড়কে ঝরল ১২ প্রাণ
গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় ১২ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এর মধ্যে নেত্রকোনায় চারজন, গাইবান্ধায় পাঁচজন, ময়মনসিংহে দুইজন এবং দিনাজপুরে একজন নিহত হয়েছেন। জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে এ তথ্য জানা গেছে।

নেত্রকোনা প্রতিনিধি জানান, নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কেন্দুয়া-আঠারোবাড়ি সড়কে মাসকা কাঁঠালতলা এলাকায় বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। শনিবার বেলা পৌনে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- কেন্দুয়ার বলাইশিমুল গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে সিএনজিচালক জামাল মিয়া (২৮), কুতুবপুর নওয়াপাড়া গ্রামের হাদিস উদ্দিনের ছেলে নাজির উদ্দিন (২৭), একই গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে শরিফ মিয়া (২০) ও মোহনগঞ্জের আদর্শনগর গ্রামের হান্নান মিয়ার ছেলে মুরাদ মিয়া মিয়া (২২)।

আহতদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এরা হলেন- কেন্দুয়ার কুতুবপুর গ্রামের আলেক মিয়ার ছেলে গোলাম রব্বানী, দুদু মিয়ার ছেলে জসিম উদ্দিন ও সাইফুলের ছেলে সাকিব মিয়া। তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ঢাকা থেকে নেত্রকোনার কলমাকান্দার পাঁচকাটা এলাকার উদ্দেশে মায়ের দোয়া পরিবহনের একটি বাস মাসকা কাঁঠালতলা এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত থেকে আসা সিএনজিচালিত অটোরিকশাটির সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত হন।

নেত্রেকানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. শাহজাহান মিয়া বলেন, চারজন নিহত হয়েছেন। তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বাসটিকে জব্দ করা হয়েছে। চালককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১০ জন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন রাইস মিল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল হামিদ বলেন, গাইবান্ধা থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী দরবার নামে একটি সিটিং সার্ভিস বাস পলাশবাড়ী উপজেলায় প্রবেশের সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক্টরের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই পুরুষ ও দুই নারী মারা যান। পরে হাসপাতালে এক শিশু মারা যায়।

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহে বাস-সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই এক শিশুসহ দুজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা সম্পর্কে মামা-ভাগনি বলে জানা গেছে। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন আরও চারজন। তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই অটোরিশার যাত্রী। শুক্রবার রাত ৮টার দিকে সদরের চরপুলিয়ামারি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার খোকন (৪০) ও নাজমুন্নাহার (৫)।

কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম জানান, ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের সদর উপজেলার চরপুলিয়ামারি এলাকায় রাত ৮টার দিকে কিশোরগঞ্জগামী এমকে সুপার পরিবহনের একটি বাস ও বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে গুরুতর আহত ছয়জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে রাস্তায় শিশুসহ দুইজন মারা যান।

দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে হিরামতি সিনেমা হলের সামনে ট্রাকের ধাক্কায় ফেরেজা বেগম নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হিলি-জয়পুরহাট সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, দুপুরে ফেরেজা বন্দরের হিরামতি সিনেমা হলের সামনের রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। এ সময় পেছন থেকে একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে হাকিমপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (এসআই) রাকিম হাসান জানান, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের করার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

২৪ ঘণ্টায় সড়কে ঝরল ১২ প্রাণ


২৪ ঘণ্টায় সড়কে ঝরল ১২ প্রাণ

নেত্রকোনা প্রতিনিধি জানান, নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কেন্দুয়া-আঠারোবাড়ি সড়কে মাসকা কাঁঠালতলা এলাকায় বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। শনিবার বেলা পৌনে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- কেন্দুয়ার বলাইশিমুল গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে সিএনজিচালক জামাল মিয়া (২৮), কুতুবপুর নওয়াপাড়া গ্রামের হাদিস উদ্দিনের ছেলে নাজির উদ্দিন (২৭), একই গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে শরিফ মিয়া (২০) ও মোহনগঞ্জের আদর্শনগর গ্রামের হান্নান মিয়ার ছেলে মুরাদ মিয়া মিয়া (২২)।

আহতদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এরা হলেন- কেন্দুয়ার কুতুবপুর গ্রামের আলেক মিয়ার ছেলে গোলাম রব্বানী, দুদু মিয়ার ছেলে জসিম উদ্দিন ও সাইফুলের ছেলে সাকিব মিয়া। তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ঢাকা থেকে নেত্রকোনার কলমাকান্দার পাঁচকাটা এলাকার উদ্দেশে মায়ের দোয়া পরিবহনের একটি বাস মাসকা কাঁঠালতলা এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত থেকে আসা সিএনজিচালিত অটোরিকশাটির সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত হন।

নেত্রেকানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. শাহজাহান মিয়া বলেন, চারজন নিহত হয়েছেন। তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বাসটিকে জব্দ করা হয়েছে। চালককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১০ জন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন রাইস মিল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল হামিদ বলেন, গাইবান্ধা থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী দরবার নামে একটি সিটিং সার্ভিস বাস পলাশবাড়ী উপজেলায় প্রবেশের সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক্টরের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই পুরুষ ও দুই নারী মারা যান। পরে হাসপাতালে এক শিশু মারা যায়।

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, ময়মনসিংহে বাস-সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই এক শিশুসহ দুজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা সম্পর্কে মামা-ভাগনি বলে জানা গেছে। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন আরও চারজন। তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই অটোরিশার যাত্রী। শুক্রবার রাত ৮টার দিকে সদরের চরপুলিয়ামারি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার খোকন (৪০) ও নাজমুন্নাহার (৫)।

কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম জানান, ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের সদর উপজেলার চরপুলিয়ামারি এলাকায় রাত ৮টার দিকে কিশোরগঞ্জগামী এমকে সুপার পরিবহনের একটি বাস ও বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে গুরুতর আহত ছয়জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে রাস্তায় শিশুসহ দুইজন মারা যান।

দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে হিরামতি সিনেমা হলের সামনে ট্রাকের ধাক্কায় ফেরেজা বেগম নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হিলি-জয়পুরহাট সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, দুপুরে ফেরেজা বন্দরের হিরামতি সিনেমা হলের সামনের রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। এ সময় পেছন থেকে একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে হাকিমপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (এসআই) রাকিম হাসান জানান, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের করার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিডিপ্রেস/আরজে