BDpress

ফেনীতে প্রাইভেটকার চাপায় মা-মেয়ে নিহত

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
ফেনীতে প্রাইভেটকার চাপায় মা-মেয়ে নিহত
ফেনী সদর উপজেলায় প্রাইভেটকার চাপায় মা-মেয়ে নিহত হয়েছেন। বুধবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফাজিলপুর ফুটওভার ব্রিজের পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রাইভেটকার জব্দ ও চালক মোস্তফা জামালকে আটক করেছে পুলিশ। জামালের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায়। তিনি মশুরিপাড়া গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে। তিনি নিজেই এ প্রাইভেটকারের মালিক।

নিহতরা হলেন ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের নুরুন্নবীর স্ত্রী রাহেলা বেগম (৫০) এবং তার মেয়ে মমতাজ বেগম (২৫)।

ছাগলনাইয়া মুহুরীগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. মাহবুব আলম জানান, সকালে মা মেয়ে ফেনী যাওয়ার জন্য মহাসড়কে ফাজিলপুর বাসস্ট্যান্ডে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তারা সড়ক পার হওয়ার সময় চট্টগ্রামগামী প্রাইভেটকার তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে মা এবং ফেনী হয়ে চট্টগ্রাম হাসপাতালে নেয়ার পথে মেয়ে মারা যান। পুলিশ দুজনের লাশ উদ্ধার করে মুহুরীগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যান।

নিহতের স্বজন উত্তর কুহুমা গ্রামের আবদুর রহিম ডিপটি জানান, মা মেয়ে দুজন অসুস্থ ছিলেন। ডাক্তার দেখাতে হাসপাতালে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনায় তারা মারা যান। নুরুন্নবী তার স্ত্রী ও মেয়েকে ফাজিলপুর বাসস্ট্যান্ডে রেখে বাড়ি ফিরেই মৃত্যুর সংবাদ পান।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

ফেনীতে প্রাইভেটকার চাপায় মা-মেয়ে নিহত


ফেনীতে প্রাইভেটকার চাপায় মা-মেয়ে নিহত

প্রাইভেটকার জব্দ ও চালক মোস্তফা জামালকে আটক করেছে পুলিশ। জামালের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায়। তিনি মশুরিপাড়া গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে। তিনি নিজেই এ প্রাইভেটকারের মালিক।

নিহতরা হলেন ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের নুরুন্নবীর স্ত্রী রাহেলা বেগম (৫০) এবং তার মেয়ে মমতাজ বেগম (২৫)।

ছাগলনাইয়া মুহুরীগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. মাহবুব আলম জানান, সকালে মা মেয়ে ফেনী যাওয়ার জন্য মহাসড়কে ফাজিলপুর বাসস্ট্যান্ডে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তারা সড়ক পার হওয়ার সময় চট্টগ্রামগামী প্রাইভেটকার তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে মা এবং ফেনী হয়ে চট্টগ্রাম হাসপাতালে নেয়ার পথে মেয়ে মারা যান। পুলিশ দুজনের লাশ উদ্ধার করে মুহুরীগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যান।

নিহতের স্বজন উত্তর কুহুমা গ্রামের আবদুর রহিম ডিপটি জানান, মা মেয়ে দুজন অসুস্থ ছিলেন। ডাক্তার দেখাতে হাসপাতালে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনায় তারা মারা যান। নুরুন্নবী তার স্ত্রী ও মেয়েকে ফাজিলপুর বাসস্ট্যান্ডে রেখে বাড়ি ফিরেই মৃত্যুর সংবাদ পান।

বিডিপ্রেস/আরজে