BDpress

শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দি সুবিধা দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দি সুবিধা দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ
আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দির সুবিধা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বুধবার এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি বোরহান উদ্দিন ও মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দির মর্যাদা দিতে নির্দেশনা চেয়ে তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ রিট করেন।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সারা হোসেন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

পরে জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দির সুবিধা দিতে স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইজি প্রিজনের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এর আগে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে বিব্রতবোধের ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার হাইকোর্টের বেঞ্চে জামিন আবেদনটি শুনানির তালিকায় ছিল। পরে মামলাটি হাইকোর্টে পাঠানো হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৫ আগস্ট রাতে ধানমণ্ডির বাসা থেকে ডিবি পরিচয়ে একদল লোক শহিদুলকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ। এরপর তাকে রমনা থানার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

পরে ৬ আগস্ট শহিদুল আলমকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতা ড. শহিদুল আলম নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান ছাত্র বিক্ষোভ নিয়ে সম্প্রতি একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন।

ওই সাক্ষাৎকারে মিথ্যা তথ্য দিয়ে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করা হয়েছে। শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে করা মামলাটি ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) আরমান আলী তদন্ত করছেন।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দি সুবিধা দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ


শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দি সুবিধা দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দির মর্যাদা দিতে নির্দেশনা চেয়ে তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ রিট করেন।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সারা হোসেন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

পরে জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, শহিদুল আলমকে কারাগারে প্রথম শ্রেণির বন্দির সুবিধা দিতে স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইজি প্রিজনের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এর আগে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে বিব্রতবোধের ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার হাইকোর্টের বেঞ্চে জামিন আবেদনটি শুনানির তালিকায় ছিল। পরে মামলাটি হাইকোর্টে পাঠানো হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৫ আগস্ট রাতে ধানমণ্ডির বাসা থেকে ডিবি পরিচয়ে একদল লোক শহিদুলকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ। এরপর তাকে রমনা থানার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

পরে ৬ আগস্ট শহিদুল আলমকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতা ড. শহিদুল আলম নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান ছাত্র বিক্ষোভ নিয়ে সম্প্রতি একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন।

ওই সাক্ষাৎকারে মিথ্যা তথ্য দিয়ে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করা হয়েছে। শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে করা মামলাটি ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) আরমান আলী তদন্ত করছেন।

বিডিপ্রেস/আরজে