BDpress

ভুরুঙ্গামারীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
ভুরুঙ্গামারীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ
কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে নিজ দোকানে নিয়ে ধর্ষণ করেছে মিজানুর রহমান মিজান (৩২) নামের এক লম্পট। শনিবার সকালে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের কাশিম বাজারে কুকারিজের দোকানে নিয়ে ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে মিজান।

নির্যাতনের শিকার স্কুলছাত্রীর স্বজনরা জানান, উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের কাশিমবাজার উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার সময় ওই স্কুলছাত্রীকে দোকানে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে মিজান। মিজানুর একই ইউনিয়নের মংলারকুটি গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

কাশিম বাজারের অন্য ব্যবসায়ীরা জানান, ওই ছাত্রীর চিৎকারে বাজারের লোকজন এগিয়ে এলে মিজানুর পালিয়ে যায়। পরে লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে বিদ্যালয়ে পৌঁছে দেয়। 

বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক মুরাদ-ই-মুর্তজা বিষয়টি মেয়েটির নানা জাহান উদ্দিন এবং বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে জানান। পরে প্রধানশিক্ষক ও অভিভাবকসহ ছাত্রীটিকে কচাকাটা থানায় নিয়ে গিয়ে অভিযোগ করেন।

প্রধানশিক্ষক মুরাদ-ই-মুর্তজা জানান, মেয়েটির নানা জাহান উদ্দিন বাদী হয়ে কচাকাটা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শওকত আলী জানান, কচাকাটা থানায় এ ব্যাপারে অভিযোগ দিয়েছে স্কুলছাত্রীর পরিবার।

নির্যাতনের শিকার ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত মিজানকে আটক করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

ভুরুঙ্গামারীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ


ভুরুঙ্গামারীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

নির্যাতনের শিকার স্কুলছাত্রীর স্বজনরা জানান, উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের কাশিমবাজার উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার সময় ওই স্কুলছাত্রীকে দোকানে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে মিজান। মিজানুর একই ইউনিয়নের মংলারকুটি গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

কাশিম বাজারের অন্য ব্যবসায়ীরা জানান, ওই ছাত্রীর চিৎকারে বাজারের লোকজন এগিয়ে এলে মিজানুর পালিয়ে যায়। পরে লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে বিদ্যালয়ে পৌঁছে দেয়। 

বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক মুরাদ-ই-মুর্তজা বিষয়টি মেয়েটির নানা জাহান উদ্দিন এবং বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে জানান। পরে প্রধানশিক্ষক ও অভিভাবকসহ ছাত্রীটিকে কচাকাটা থানায় নিয়ে গিয়ে অভিযোগ করেন।

প্রধানশিক্ষক মুরাদ-ই-মুর্তজা জানান, মেয়েটির নানা জাহান উদ্দিন বাদী হয়ে কচাকাটা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শওকত আলী জানান, কচাকাটা থানায় এ ব্যাপারে অভিযোগ দিয়েছে স্কুলছাত্রীর পরিবার।

নির্যাতনের শিকার ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত মিজানকে আটক করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

বিডিপ্রেস/আরজে