BDpress

তিন দেশ থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অ+ অ-
তিন দেশ থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো যুক্তরাষ্ট্র
ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্র, এল সালভেদর ও পানামা এ তিন দেশ থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো যুক্তরাষ্ট্র। ওই দেশগুলো তাইওয়ানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে এক চীন নীতি মেনে নেয়ার পর মার্কিন সরকার এমন পদক্ষেপ নিলো। ৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। খবর প্রেসটিভি।

বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চলে মার্কিন সরকার কীভাবে গণতান্ত্রিক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে জোরদার সমর্থন দিতে পারে তার পথ খুঁজে বের করার জন্য তিন দেশ থেকে রাষ্ট্রদূত ডেকে পাঠানো হয়েছে। তারা মার্কিন প্রশাসনের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৪৯ সালে গৃহযুদ্ধের মধ্যদিয়ে চীন ও তাইওয়ান বিভক্ত হয়ে যায়। কিন্তু চীন মনে করে তাইওয়ানকে তারা একীভূত করতে পারবে। ১৯৭৯ সালে যুক্তরাষ্ট্র বেইজিংয়ের ‘এক চীন’ নীতি গ্রহণ করে যার অর্থ দাঁড়ায় তাইওয়ানের ওপর চীনের সার্বভৌমত্ব মেনে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু গত মার্চে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সে নীতি থেকে সরে গিয়ে মার্কিন কর্মকর্তাদের প্রকাশ্যে তাইওয়ান সফরের অনুমতি দিয়ে নতুন আইন পাস করেন। ট্রাম্পের এই পদক্ষেপ ক্ষুব্ধ হয়েছে চীন। সবশেষ ওই তিন দেশ থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করে নিলেন ট্রাম্প প্রশাসন।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

তিন দেশ থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো যুক্তরাষ্ট্র


তিন দেশ থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করলো যুক্তরাষ্ট্র

বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চলে মার্কিন সরকার কীভাবে গণতান্ত্রিক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে জোরদার সমর্থন দিতে পারে তার পথ খুঁজে বের করার জন্য তিন দেশ থেকে রাষ্ট্রদূত ডেকে পাঠানো হয়েছে। তারা মার্কিন প্রশাসনের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৪৯ সালে গৃহযুদ্ধের মধ্যদিয়ে চীন ও তাইওয়ান বিভক্ত হয়ে যায়। কিন্তু চীন মনে করে তাইওয়ানকে তারা একীভূত করতে পারবে। ১৯৭৯ সালে যুক্তরাষ্ট্র বেইজিংয়ের ‘এক চীন’ নীতি গ্রহণ করে যার অর্থ দাঁড়ায় তাইওয়ানের ওপর চীনের সার্বভৌমত্ব মেনে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু গত মার্চে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সে নীতি থেকে সরে গিয়ে মার্কিন কর্মকর্তাদের প্রকাশ্যে তাইওয়ান সফরের অনুমতি দিয়ে নতুন আইন পাস করেন। ট্রাম্পের এই পদক্ষেপ ক্ষুব্ধ হয়েছে চীন। সবশেষ ওই তিন দেশ থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করে নিলেন ট্রাম্প প্রশাসন।

বিডিপ্রেস/আরজে