BDpress

জেলা প্রশাসকের বাসায় ঢুকে নারীর কাণ্ড

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
জেলা প্রশাসকের বাসায় ঢুকে নারীর কাণ্ড
বাসা ভাড়া নেয়ার কথা বলে এক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের ঘরে ঢুকে ভয়ঙ্কর কাণ্ড ঘটিয়েছেন এক নারী। এ সময় ওই নারীকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা।

সোমবার সকালে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কামারজুড়ি এলাকায় পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সোহরাব হোসেনের বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বাসা ভাড়া নেয়ার কথা বলে সোমবার সকালে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কামারজুরি এলাকায় পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সোহরাব হোসেনের ঘরে ঢুকেন সুমাইয়া আক্তার ইভা নামের এক নারী। কথা বলার একপর্যায়ে বাসা দেখতে তার স্বামী আসবেন বলে অপেক্ষা করতে থাকেন। পরে সুমাইয়া আক্তার ইভা জেলা প্রশাসকের গৃহকর্ত্রী সোহেলী আফরোজার কাছে এক গ্লাস পানি চান।

সোহেলী আফরোজা পানি আনতে গেলে পেছন দিকে থেকে বটি দিয়ে তার মাথায় ৪-৫টি কোপ দেন ইভা। এতে সোহেলী ফ্লোরে পড়ে যান। এ সময় সোহেলীর মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করেন ইভা। পরে সোহেলীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে ইভাকে গণধোলাই দেয়। স্থানীয়রা আহত সোহেলী আফরোজাকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

খবর পেয়ে জয়দেবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতাবস্থায় হামলাকারী সুমাইয়া আক্তার ইভাকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় সোহেলী আফরোজা বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় মামলা করেছেন।

জয়দেবপুর থানা পুলিশের এসআই জামাল উদ্দিন জানান, অসৎ উদ্দেশ্যে নিয়ে ইভা ওই বাসায় প্রবেশ করে এবং গৃহকর্ত্রী সোহেলী আফরোজাকে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা ইভাকে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ঘটনাটি তদন্ত করছে পুলিশ।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

জেলা প্রশাসকের বাসায় ঢুকে নারীর কাণ্ড


জেলা প্রশাসকের বাসায় ঢুকে নারীর কাণ্ড

সোমবার সকালে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কামারজুড়ি এলাকায় পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সোহরাব হোসেনের বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বাসা ভাড়া নেয়ার কথা বলে সোমবার সকালে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কামারজুরি এলাকায় পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সোহরাব হোসেনের ঘরে ঢুকেন সুমাইয়া আক্তার ইভা নামের এক নারী। কথা বলার একপর্যায়ে বাসা দেখতে তার স্বামী আসবেন বলে অপেক্ষা করতে থাকেন। পরে সুমাইয়া আক্তার ইভা জেলা প্রশাসকের গৃহকর্ত্রী সোহেলী আফরোজার কাছে এক গ্লাস পানি চান।

সোহেলী আফরোজা পানি আনতে গেলে পেছন দিকে থেকে বটি দিয়ে তার মাথায় ৪-৫টি কোপ দেন ইভা। এতে সোহেলী ফ্লোরে পড়ে যান। এ সময় সোহেলীর মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করেন ইভা। পরে সোহেলীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে ইভাকে গণধোলাই দেয়। স্থানীয়রা আহত সোহেলী আফরোজাকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

খবর পেয়ে জয়দেবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতাবস্থায় হামলাকারী সুমাইয়া আক্তার ইভাকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় সোহেলী আফরোজা বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় মামলা করেছেন।

জয়দেবপুর থানা পুলিশের এসআই জামাল উদ্দিন জানান, অসৎ উদ্দেশ্যে নিয়ে ইভা ওই বাসায় প্রবেশ করে এবং গৃহকর্ত্রী সোহেলী আফরোজাকে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা ইভাকে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ঘটনাটি তদন্ত করছে পুলিশ।

বিডিপ্রেস/আরজে