BDpress

যাত্রা শুরু করছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
যাত্রা শুরু করছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ
আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর নতুন আটটি থানা এলাকা নিয়ে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি)। ওইদিন সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জিএমপির কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরইমধ্যে জিএমপিতে ১ হাজার ১৫২ জনের লোকবলও নিয়োগ করা হয়েছে।

নলজানী এলাকায় জিএমপির প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এসব কথা জানান জিএমপির নতুন কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান।

তিনি জানান, এরইমধ্যে জিএমপিতে ১ হাজার ১৫২ জনের লোকবলও নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া তাদের পদায়ন, থানার জন্য ভবন ভাড়াসহ সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। একইসঙ্গে সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত আটটি থানার আয়তন নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নগরবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই মাদকের বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যে জিরো টলারেন্স নীতি আছে সেটা শভভাগ অনুসরণ করা হবে। এমনকি মাদকের সঙ্গে যদি কোনো পুলিশ সদস্যও জড়িত থাকে তারাও কোনোভাবে ছাড় পবে না।

তিনি বলেন, যানজটের বিষয়টি আমরা মাথায় রেখেছি। বিভিন্ন স্থানে অবৈধ পার্কিং, ফুটপাত দখলের বিষয়ে আমরা কাজ করব।

প্রসঙ্গত, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের প্রায় চার বছর পর ২০১৭ সালের অক্টোবরে গঠিত হয় গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি)। এর প্রায় ১০ মাস পরে ২০১৮ সালের ৯ সেপ্টেম্বর জিএমপির লোগো চূড়ান্ত করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে ডিআইজি পদমর্যাদার একজন পুলিশ কমিশনার, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, দু’জন উপ-পুলিশ কমিশনার, ছয়জন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার, ১২ জন সহকারী পুলিশ কমিশনার, ২০ জন ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার জনবলের মধ্যে প্রায় সবাই যোগদান করেছেন।

নতুন মেট্রোপলিটন পুলিশিং কার্যক্রম চালু হলে পুলিশের সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে যাবে এবং এলাকার ছিনতাই, চুরি-ডাকাতিসহ নানা অপরাধ কার্যক্রম কমে যাবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

যাত্রা শুরু করছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ


যাত্রা শুরু করছে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ

নলজানী এলাকায় জিএমপির প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এসব কথা জানান জিএমপির নতুন কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান।

তিনি জানান, এরইমধ্যে জিএমপিতে ১ হাজার ১৫২ জনের লোকবলও নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া তাদের পদায়ন, থানার জন্য ভবন ভাড়াসহ সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। একইসঙ্গে সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত আটটি থানার আয়তন নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নগরবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই মাদকের বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যে জিরো টলারেন্স নীতি আছে সেটা শভভাগ অনুসরণ করা হবে। এমনকি মাদকের সঙ্গে যদি কোনো পুলিশ সদস্যও জড়িত থাকে তারাও কোনোভাবে ছাড় পবে না।

তিনি বলেন, যানজটের বিষয়টি আমরা মাথায় রেখেছি। বিভিন্ন স্থানে অবৈধ পার্কিং, ফুটপাত দখলের বিষয়ে আমরা কাজ করব।

প্রসঙ্গত, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের প্রায় চার বছর পর ২০১৭ সালের অক্টোবরে গঠিত হয় গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি)। এর প্রায় ১০ মাস পরে ২০১৮ সালের ৯ সেপ্টেম্বর জিএমপির লোগো চূড়ান্ত করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে ডিআইজি পদমর্যাদার একজন পুলিশ কমিশনার, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, দু’জন উপ-পুলিশ কমিশনার, ছয়জন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার, ১২ জন সহকারী পুলিশ কমিশনার, ২০ জন ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার জনবলের মধ্যে প্রায় সবাই যোগদান করেছেন।

নতুন মেট্রোপলিটন পুলিশিং কার্যক্রম চালু হলে পুলিশের সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে যাবে এবং এলাকার ছিনতাই, চুরি-ডাকাতিসহ নানা অপরাধ কার্যক্রম কমে যাবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

বিডিপ্রেস/আরজে