BDpress

যে তিনটি হাইপ্রোফাইল দলের কোচ হতে পারেন জিদান

ক্রীড়া ডেস্ক

অ+ অ-
যে তিনটি হাইপ্রোফাইল দলের কোচ হতে পারেন জিদান
কোন দলের ফোনের অপেক্ষা করছেন জিনেদিন জিদান? দল বদলের বাজারে জোর গুঞ্জন, ফ্রেঞ্চ কিংবদন্তিকে খুব শিগগিরই দেখা যাবে আবারও ডাগ-আউটের সামনে। স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদের কোচের পদ থেকে সম্প্রতি পদত্যাগ করেছেন তিনি। সিদ্ধান্ত জানানোর আগে লস ব্লাঙ্কোসদের এনে দিয়েছেন পর পর তিনটি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা।

সম্প্রতি স্পেনের এক গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ৪৬ বছর বয়সী এই কোচ নিজেই কোচ হিসেবে ফেরার বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, কয়েকদিনের মধ্যেই আমি কোচ হিসেবে যোগ দিচ্ছি। কোন দলের হয়ে ফিরছেন তা না জানালেও তিনি বলেন, আমি এটা করতে পছন্দ করি। এটাই সব সময় করে এসেছি। 

জাতীয় দলে জিদানের সতীর্থ ক্লাউডি মেকেলেলে আরেক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, খেলোয়াড় হিসেবে আন্তর্জাতিক ও ক্লাব পর্যায়ে সফল ছিলেন জিদান। কোচ হিসেবেও সেরা তা তিনি আগেই প্রমাণ করেছেন। তিনি যেখানে চাইবেন সেখানেই যেতে পারবেন।

সবচেয়ে বড় যে প্রশ্নটি সামনে এসেছে সেটি হচ্ছে, কোন দলের দায়িত্ব নিচ্ছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার? ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে হোসে মরিনহো স্থলাভিষিক্ত হবার কথা আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল। এবার গোল ডট কম জানাচ্ছে, জুভেন্টাস ও প্যারিস সেন্ট জামের্ইর (পিএসজি) প্রধান কোচ হতে পারেন তিনি। 

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

মাঠে ও মাঠের বাইরে মোরিনহোর কোচিং নিয়ে চলছে ব্যাপক সমালোচনা। অবস্থাটা যদি আরও খারাপ দিকে এগোয়, তাহলে মোরিনহোর সিটে জিদানের বসার সম্ভাবনা উজ্জ্বল। গত কয়েকমাস ধরেই ক্লাবের অন্যতম বড় কর্তা এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান এড উডওয়ার্ডের সঙ্গে লুক শ ও পল পগবার ট্রান্সফার নিয়ে টানাপোড়েন চলছে মোরিনহোর। মাঠে প্রিমিয়ার লিগে জঘন্য শুরু করেছে রেড ডেভিলসরা। টটেনহাম, ওয়াটফোর্ডের কাছে অপ্রত্যাশিত হারে ঢেকে গিয়েছে লেস্টার, বার্নলির বিপক্ষে সাফল্য। জিদানের কাছে ওল্ড ট্র্যাফোর্ড থেকে ফোন যেতে পারে যে কোনও সময়। জানা গেছে, চ্যাম্পিয়নস লিগে দল কি রকম শুরু করে তার ওপর অনেকটাই নির্ভর করে আছে মোরিনহোর ম্যানচেস্টার-ভবিষ্যৎ। 

পিএসজি

২০১৭-১৮ মৌসুমে বার্সেলোনা থেকে দলবদলের রেকর্ড গড়ে প্যারিসে যোগ দেন নেইমার। সেসময় ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের সঙ্গে কোচ উনাই এমেরি নানা কারণে দ্বন্দ্বে জড়ান। এর পর চলতি মৌসুমে জার্মান কোচ টমাস টাচেলকে নিয়োগ দেয়া হয়। দলটির মূল লক্ষ্য চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতা। আর যেটা জিদানের কাছে বাঁ হাতের খেলের মতই!

জুভেন্টাস

ইতালিয়ান ক্লাবটির সঙ্গে দীর্ঘদিন সময় কাটিয়েছেন জিদান। দলটির পরবর্তী মিশন ইউরোপ সেরা হওয়া। আর এ জন্য সব কিছু করতে প্রস্তুত তুরিনের দলটি। আর তাই চলতি মৌসুমে নতুন শক্তি হিসেবে দলে ভেড়ানো হয়েছে পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। রিয়ালে জিদান-রোনালদো জুটির কথা পুরো বিশ্বের কাছেই জানা। বর্তমান কোচ মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রিকে হটিয়ে জুভিদের ভবিষ্যৎ হিসেবেও জিজুকে দেখা যেতে পারে।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

যে তিনটি হাইপ্রোফাইল দলের কোচ হতে পারেন জিদান


যে তিনটি হাইপ্রোফাইল দলের কোচ হতে পারেন জিদান

সম্প্রতি স্পেনের এক গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ৪৬ বছর বয়সী এই কোচ নিজেই কোচ হিসেবে ফেরার বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, কয়েকদিনের মধ্যেই আমি কোচ হিসেবে যোগ দিচ্ছি। কোন দলের হয়ে ফিরছেন তা না জানালেও তিনি বলেন, আমি এটা করতে পছন্দ করি। এটাই সব সময় করে এসেছি। 

জাতীয় দলে জিদানের সতীর্থ ক্লাউডি মেকেলেলে আরেক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, খেলোয়াড় হিসেবে আন্তর্জাতিক ও ক্লাব পর্যায়ে সফল ছিলেন জিদান। কোচ হিসেবেও সেরা তা তিনি আগেই প্রমাণ করেছেন। তিনি যেখানে চাইবেন সেখানেই যেতে পারবেন।

সবচেয়ে বড় যে প্রশ্নটি সামনে এসেছে সেটি হচ্ছে, কোন দলের দায়িত্ব নিচ্ছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার? ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে হোসে মরিনহো স্থলাভিষিক্ত হবার কথা আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল। এবার গোল ডট কম জানাচ্ছে, জুভেন্টাস ও প্যারিস সেন্ট জামের্ইর (পিএসজি) প্রধান কোচ হতে পারেন তিনি। 

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

মাঠে ও মাঠের বাইরে মোরিনহোর কোচিং নিয়ে চলছে ব্যাপক সমালোচনা। অবস্থাটা যদি আরও খারাপ দিকে এগোয়, তাহলে মোরিনহোর সিটে জিদানের বসার সম্ভাবনা উজ্জ্বল। গত কয়েকমাস ধরেই ক্লাবের অন্যতম বড় কর্তা এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান এড উডওয়ার্ডের সঙ্গে লুক শ ও পল পগবার ট্রান্সফার নিয়ে টানাপোড়েন চলছে মোরিনহোর। মাঠে প্রিমিয়ার লিগে জঘন্য শুরু করেছে রেড ডেভিলসরা। টটেনহাম, ওয়াটফোর্ডের কাছে অপ্রত্যাশিত হারে ঢেকে গিয়েছে লেস্টার, বার্নলির বিপক্ষে সাফল্য। জিদানের কাছে ওল্ড ট্র্যাফোর্ড থেকে ফোন যেতে পারে যে কোনও সময়। জানা গেছে, চ্যাম্পিয়নস লিগে দল কি রকম শুরু করে তার ওপর অনেকটাই নির্ভর করে আছে মোরিনহোর ম্যানচেস্টার-ভবিষ্যৎ। 

পিএসজি

২০১৭-১৮ মৌসুমে বার্সেলোনা থেকে দলবদলের রেকর্ড গড়ে প্যারিসে যোগ দেন নেইমার। সেসময় ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের সঙ্গে কোচ উনাই এমেরি নানা কারণে দ্বন্দ্বে জড়ান। এর পর চলতি মৌসুমে জার্মান কোচ টমাস টাচেলকে নিয়োগ দেয়া হয়। দলটির মূল লক্ষ্য চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতা। আর যেটা জিদানের কাছে বাঁ হাতের খেলের মতই!

জুভেন্টাস

ইতালিয়ান ক্লাবটির সঙ্গে দীর্ঘদিন সময় কাটিয়েছেন জিদান। দলটির পরবর্তী মিশন ইউরোপ সেরা হওয়া। আর এ জন্য সব কিছু করতে প্রস্তুত তুরিনের দলটি। আর তাই চলতি মৌসুমে নতুন শক্তি হিসেবে দলে ভেড়ানো হয়েছে পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। রিয়ালে জিদান-রোনালদো জুটির কথা পুরো বিশ্বের কাছেই জানা। বর্তমান কোচ মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রিকে হটিয়ে জুভিদের ভবিষ্যৎ হিসেবেও জিজুকে দেখা যেতে পারে।

বিডিপ্রেস/আরজে