BDpress

'অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে মানসিক রোগ'

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
'অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে মানসিক রোগ'
‘অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহার মানসিক রোগের অন্যতম কারণ। এছাড়া পারিপার্শ্বিক পরিবেশ, মাদকাসক্তি, পারিবারিক ও সামাজিক নানা অস্থিরতায় তরুণ সমাজের মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলছে। এজন্য পারিবারিক বন্ধনকে আরো সুদৃঢ় করতে হবে, মাদকসেবন পরিহার করতে হবে।’

আজ খুলনায় বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন, সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. আতিয়ার রহমান শেখ। খুলনা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে এসময় চিকিৎসক, নার্স ও এনজিও প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ।

সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. আতিয়ার রহমান শেখ বলেন, মোবাইল ফোনের পরিমিত ব্যবহার করতে হবে। সময় মতো ঘুমানো, রাতে না জাগা ও মাদকসক্তি থেকে দূরে থাকতে হবে। তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের অংশগ্রহণ খুবই জরুরি। 
তিনি বলেন, দেশে শতকরা ১৬ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ বর্তমানে মানসিক রোগে ভুগছে। এর মধ্যে শিশু-কিশোর মানসিক রোগের হার ১৮ শতাংশ।
পরে সিভিল সার্জন দপ্তরের উদ্যোগে জেনারেল হাসপাতাল চত্ত্বরে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেনারেল হাসপাতাল চত্বরে এসে শেষ হয়।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

'অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে মানসিক রোগ'


'অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারে মানসিক রোগ'

আজ খুলনায় বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন, সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. আতিয়ার রহমান শেখ। খুলনা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে এসময় চিকিৎসক, নার্স ও এনজিও প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ।

সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. আতিয়ার রহমান শেখ বলেন, মোবাইল ফোনের পরিমিত ব্যবহার করতে হবে। সময় মতো ঘুমানো, রাতে না জাগা ও মাদকসক্তি থেকে দূরে থাকতে হবে। তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের অংশগ্রহণ খুবই জরুরি। 
তিনি বলেন, দেশে শতকরা ১৬ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ বর্তমানে মানসিক রোগে ভুগছে। এর মধ্যে শিশু-কিশোর মানসিক রোগের হার ১৮ শতাংশ।
পরে সিভিল সার্জন দপ্তরের উদ্যোগে জেনারেল হাসপাতাল চত্ত্বরে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেনারেল হাসপাতাল চত্বরে এসে শেষ হয়।
বিডিপ্রেস/আলী