BDpress

পঞ্চগড়ে বাস-ট্রাক সংঘর্ষ, নিহত বেড়ে ১০

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
পঞ্চগড়ে বাস-ট্রাক সংঘর্ষ, নিহত বেড়ে ১০
পঞ্চগড়ে তেঁতুলিয়া-ঢাকা মহাসড়কের দশমাইল এলাকায় যাত্রীবাহী একটি বাস ও বিদ্যুতের খুঁটিবাহী একটি ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। নিহতদের মধ্যে মা ও ছেলে রয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও অন্তত ২০ জন।

শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) রাত পৌনে ৮টার দিকে পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কের দশমাইল নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- লাভলী (২৯), লাভলীর ছেলে ইয়াসিন (৭), রেজাউল (২২), ফরিদ (২৮), অনিত্য (২০), রাসেল (২৭), লায়লা (২৫), লুৎফর (২০), মোজাম্মেল (৩৮) ও মনির (১০)।

হতাহতদের মধ্যে সাতমেরা ইউনিয়নের জোত হাসনা এলাকার সাইদুল ইসলামের স্ত্রী লাভলী ও তার ছেলে ইয়াসিনের (৭) পরিচয় পাওয়া গেছে। অন্যান্যদের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চলছিল।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত পৌনে ৮টার দিকে পঞ্চগড় শহর থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস বাংলাবান্ধার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় তেঁতুলিয়া থেকে বিদ্যুতের খুঁটিবাহী একটি ট্রাক পঞ্চগড় শহরের দিকে আসছিল। দশমাইল বাজারে ট্রাকটির বাঁ পাশে একটি বরযাত্রীবাহী বাস দাঁড়ানো ছিল। এই বাসটিকে পাশ কাটতে গিয়ে সামনে থেকে আসা যাত্রীবাহী বাসটির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় ট্রাকটির। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হন এবং পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেয়ার পর এক শিশু ও তাঁর মাসহ আরও পাঁচজন মারা যান।

পঞ্চগড় আধনিক সদর হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের ডা. আমির হোসেন জানান, আধুনিক সদর হাসপাতালে আগতদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১০ জন মারা গেছে। গুরুতর আহতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পঞ্চগড় সড়র থানার এসআই দ্বীন মোহাম্মদ জানান, পঞ্চগড় থেকে একটি যাত্রীবাহী মিনিবাস তেঁতুলিয়া যাচ্ছিল। পথে রাত পৌনে ৮টার দিকে দশমাইল এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসতে থাকা বিদ্যুতের খুঁটিবাহী একটি ট্রাকের সঙ্গে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পঞ্চগড় ও তেঁতুলিয়া দমকল বাহিনীর দু'টি ইউনিট, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন হতাহতদের উদ্ধার করে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

পঞ্চগড়ে বাস-ট্রাক সংঘর্ষ, নিহত বেড়ে ১০


পঞ্চগড়ে বাস-ট্রাক সংঘর্ষ, নিহত বেড়ে ১০

শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) রাত পৌনে ৮টার দিকে পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কের দশমাইল নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- লাভলী (২৯), লাভলীর ছেলে ইয়াসিন (৭), রেজাউল (২২), ফরিদ (২৮), অনিত্য (২০), রাসেল (২৭), লায়লা (২৫), লুৎফর (২০), মোজাম্মেল (৩৮) ও মনির (১০)।

হতাহতদের মধ্যে সাতমেরা ইউনিয়নের জোত হাসনা এলাকার সাইদুল ইসলামের স্ত্রী লাভলী ও তার ছেলে ইয়াসিনের (৭) পরিচয় পাওয়া গেছে। অন্যান্যদের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চলছিল।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত পৌনে ৮টার দিকে পঞ্চগড় শহর থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস বাংলাবান্ধার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় তেঁতুলিয়া থেকে বিদ্যুতের খুঁটিবাহী একটি ট্রাক পঞ্চগড় শহরের দিকে আসছিল। দশমাইল বাজারে ট্রাকটির বাঁ পাশে একটি বরযাত্রীবাহী বাস দাঁড়ানো ছিল। এই বাসটিকে পাশ কাটতে গিয়ে সামনে থেকে আসা যাত্রীবাহী বাসটির সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় ট্রাকটির। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হন এবং পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেয়ার পর এক শিশু ও তাঁর মাসহ আরও পাঁচজন মারা যান।

পঞ্চগড় আধনিক সদর হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের ডা. আমির হোসেন জানান, আধুনিক সদর হাসপাতালে আগতদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১০ জন মারা গেছে। গুরুতর আহতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পঞ্চগড় সড়র থানার এসআই দ্বীন মোহাম্মদ জানান, পঞ্চগড় থেকে একটি যাত্রীবাহী মিনিবাস তেঁতুলিয়া যাচ্ছিল। পথে রাত পৌনে ৮টার দিকে দশমাইল এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসতে থাকা বিদ্যুতের খুঁটিবাহী একটি ট্রাকের সঙ্গে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পঞ্চগড় ও তেঁতুলিয়া দমকল বাহিনীর দু'টি ইউনিট, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন হতাহতদের উদ্ধার করে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
বিডিপ্রেস/আলী