BDpress

চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী পাপ্পু হোসেন (৩০) নিহত হয়েছেন।বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) ভোররাত ৩টার দিকে সদর উপজেলার উজলপুর মাঠে বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।

নিহত পাপ্পু হোসেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আকন্দবাড়ীয়া গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে।

পুলিশ জানায়, বুধবার দিবাগত রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার উজলপুর মাঠে একদল মাদক ব্যবসায়ী সীমান্ত থেকে মাদকদ্রব্য নিয়ে যাবে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। একসময় মাদকব্যাবসায়ীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় ও গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে ওই স্থান থেকে আবুল বাসার পাপ্পুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেলোয়ার হোসেন খান জানান, ঘটনাস্থল থেকে ৪টি তাজা বোমা, দেশীয় অস্ত্র, গুলি ও এক বস্তা মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত পাপ্পুর বিরুদ্ধে হত্যাসহ মাদকদ্রব্য আইনে অর্ধডজন মামলা রয়েছে।

তিনি আরও জানান, নিহত পাপ্পুর বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা সদর থানাসহ বিভিন্ন থানায় মাদক ও অস্ত্রসহ ছয়টি মামলা রয়েছে।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত


চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

নিহত পাপ্পু হোসেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আকন্দবাড়ীয়া গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে।

পুলিশ জানায়, বুধবার দিবাগত রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার উজলপুর মাঠে একদল মাদক ব্যবসায়ী সীমান্ত থেকে মাদকদ্রব্য নিয়ে যাবে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। একসময় মাদকব্যাবসায়ীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় ও গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে ওই স্থান থেকে আবুল বাসার পাপ্পুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেলোয়ার হোসেন খান জানান, ঘটনাস্থল থেকে ৪টি তাজা বোমা, দেশীয় অস্ত্র, গুলি ও এক বস্তা মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত পাপ্পুর বিরুদ্ধে হত্যাসহ মাদকদ্রব্য আইনে অর্ধডজন মামলা রয়েছে।

তিনি আরও জানান, নিহত পাপ্পুর বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা সদর থানাসহ বিভিন্ন থানায় মাদক ও অস্ত্রসহ ছয়টি মামলা রয়েছে।
বিডিপ্রেস/আলী