BDpress

পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা মুন্সিগঞ্জের ৭৯ পরীক্ষার্থীর!

জেলা প্রতিবেদক

অ+ অ-
পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা মুন্সিগঞ্জের ৭৯ পরীক্ষার্থীর!
চলতি এসএসসি পরীক্ষায় মুন্সিগঞ্জের একটি কেন্দ্রে ৭৯ জন শিক্ষার্থী ২০১৮ সালের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সেখানকার এ ভি জে এম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে।

জানা গেছে, জেলার কে কে গভ. ইন্সটিটিউশন, উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও রামপাল এন বি এম উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ৭৯ জন পরীক্ষার্থী বাংলা প্রথম পত্রে পুরনো প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা দিয়েছে।
শনিবার অনুষ্ঠিত প্রথমদিন মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষা শেষে এ তথ্য জানা যায়।

জানা গেছে, পরীক্ষা শেষে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জেলা প্রশাসকের বাসভবন ঘেরাও করে। পরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এইচ এম রকিব হায়দার ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

কেন্দ্র সচিব ও এ ভি জে এম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শিউলি আক্তার জানান, দু’টি কক্ষে এরকম সমস্যা হয়েছে। কে কে গভ. ইন্সটিটিউশনের ৪০ জন, উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ২০ জন ও রামপাল এন বি এম উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯ জন পরীক্ষার্থী পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা দেয়। এটি কক্ষ পরিদর্শকের ভুল। ঘটনার পর জেলা প্রশাসক পরীক্ষায় তাদের আর ডিউটি দিতে নিষেধ করেছেন।

কেন্দ্র সচিব ও কে কে গভ, ইন্সটিটিউশনের প্রধান শিক্ষক মো. মনসুর রহমান বলেন, ‘সাংঘাতিক ও মারাত্মক একটি ভুল। যার কারণে ছেলেরা খুবই ক্ষতিগ্রস্ত। প্রায় ৮০ জন পরীক্ষার্থীকে পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে দেয়। কেন্দ্র সচিব ও কক্ষ পরিদর্শকের গাফিলতির কারণে এটা হয়েছে।’

মুন্সিগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আসমা শাহীন বলেন, ‘বিষয়টি কেন্দ্র কন্ট্রোলারকে জানিয়েছি। এটি কক্ষ পরিদর্শকের ভুল, তারা হল সুপার বা কেন্দ্র সচিবকে জানানোর কথা থাকলেও তারা জানায়নি। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিভাবকরা বলেন, পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছে ছেলেমেয়েরা। প্রথম পরীক্ষাতেই এরকম গণ্ডগোল। এ বিষয় নিয়ে তারা অনেক চিন্তিত।
বিডিপ্রেস/আলী


এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা মুন্সিগঞ্জের ৭৯ পরীক্ষার্থীর!


পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা মুন্সিগঞ্জের ৭৯ পরীক্ষার্থীর!

জানা গেছে, জেলার কে কে গভ. ইন্সটিটিউশন, উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও রামপাল এন বি এম উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ৭৯ জন পরীক্ষার্থী বাংলা প্রথম পত্রে পুরনো প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা দিয়েছে।
শনিবার অনুষ্ঠিত প্রথমদিন মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষা শেষে এ তথ্য জানা যায়।

জানা গেছে, পরীক্ষা শেষে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জেলা প্রশাসকের বাসভবন ঘেরাও করে। পরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এইচ এম রকিব হায়দার ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

কেন্দ্র সচিব ও এ ভি জে এম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শিউলি আক্তার জানান, দু’টি কক্ষে এরকম সমস্যা হয়েছে। কে কে গভ. ইন্সটিটিউশনের ৪০ জন, উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ২০ জন ও রামপাল এন বি এম উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯ জন পরীক্ষার্থী পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা দেয়। এটি কক্ষ পরিদর্শকের ভুল। ঘটনার পর জেলা প্রশাসক পরীক্ষায় তাদের আর ডিউটি দিতে নিষেধ করেছেন।

কেন্দ্র সচিব ও কে কে গভ, ইন্সটিটিউশনের প্রধান শিক্ষক মো. মনসুর রহমান বলেন, ‘সাংঘাতিক ও মারাত্মক একটি ভুল। যার কারণে ছেলেরা খুবই ক্ষতিগ্রস্ত। প্রায় ৮০ জন পরীক্ষার্থীকে পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে দেয়। কেন্দ্র সচিব ও কক্ষ পরিদর্শকের গাফিলতির কারণে এটা হয়েছে।’

মুন্সিগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আসমা শাহীন বলেন, ‘বিষয়টি কেন্দ্র কন্ট্রোলারকে জানিয়েছি। এটি কক্ষ পরিদর্শকের ভুল, তারা হল সুপার বা কেন্দ্র সচিবকে জানানোর কথা থাকলেও তারা জানায়নি। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিভাবকরা বলেন, পুরনো প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়েছে ছেলেমেয়েরা। প্রথম পরীক্ষাতেই এরকম গণ্ডগোল। এ বিষয় নিয়ে তারা অনেক চিন্তিত।
বিডিপ্রেস/আলী