BDpress

বাংলা ইশারা ভাষা দিবস আজ

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
বাংলা ইশারা ভাষা দিবস আজ
দেশব্যাপী ‘বাংলা ইশারা ভাষা দিবস-২০১৯’ পালিত হচ্ছে বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি)। দিবসটি উপলক্ষে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে র‌্যালি, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘ইশারা ভাষা সকলের অধিকার’।

২০১২ সালের ২৬ জানুয়ারি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ৭ ফেব্রুয়ারিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বাংলা ইশারা ভাষা দিবস হিসেবে নির্ধারণ করা হয়। বিগত বছরগুলোর মতো এবারও সারাদেশে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় প্রবীণ হিতৈষী সংঘ রাজধানীর আগারগাঁও থেকে সমাজসেবা ভবন আগারগাঁও পর্যন্ত একটি র‌্যালি বের করবে। এ ছাড়া সকাল সাড়ে ১০টায় আগারগাঁওয়ে সমাজসেবা অধিদফতরের অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ নুরুল কবিরের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জুয়েনা আজিজ উপস্থিত থাকবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৬২ সালে প্রথম পিএইচপি সেন্টারের (শারীরিক প্রতিবন্ধীদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র) মাধ্যমে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, ও রাজশাহী বিভাগীয় শহরে প্রথম চারটি বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৬৪ সালে ফরিদপুর ও চাঁদপুরে এবং ১৯৮১ সালে সিলেট জেলায় নতুন করে আরও তিনটি শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়। বর্তমানে মোট আটটি বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় রয়েছে, যেখানে মোট আসন সংখ্যা ৭৫০টি। এ পর্যন্ত মোট ৫ হাজার ৬৯১ জন শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

বাংলা ইশারা ভাষা দিবস আজ


বাংলা ইশারা ভাষা দিবস আজ

২০১২ সালের ২৬ জানুয়ারি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ৭ ফেব্রুয়ারিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বাংলা ইশারা ভাষা দিবস হিসেবে নির্ধারণ করা হয়। বিগত বছরগুলোর মতো এবারও সারাদেশে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় প্রবীণ হিতৈষী সংঘ রাজধানীর আগারগাঁও থেকে সমাজসেবা ভবন আগারগাঁও পর্যন্ত একটি র‌্যালি বের করবে। এ ছাড়া সকাল সাড়ে ১০টায় আগারগাঁওয়ে সমাজসেবা অধিদফতরের অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ নুরুল কবিরের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জুয়েনা আজিজ উপস্থিত থাকবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৬২ সালে প্রথম পিএইচপি সেন্টারের (শারীরিক প্রতিবন্ধীদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র) মাধ্যমে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, ও রাজশাহী বিভাগীয় শহরে প্রথম চারটি বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৬৪ সালে ফরিদপুর ও চাঁদপুরে এবং ১৯৮১ সালে সিলেট জেলায় নতুন করে আরও তিনটি শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়। বর্তমানে মোট আটটি বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় রয়েছে, যেখানে মোট আসন সংখ্যা ৭৫০টি। এ পর্যন্ত মোট ৫ হাজার ৬৯১ জন শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।
বিডিপ্রেস/আলী