BDpress

মাঝরাতে ঘুম ভাঙে যেসব অভ্যাসে

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
মাঝরাতে ঘুম ভাঙে যেসব অভ্যাসে
বেশি বা কম ঘুমানো-দুটিই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এছাড়া ঘুম না হওয়া, বার বার ঘুম ভেঙে যাওয়াও স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে। সুস্থ থাকতে নিয়মিত পর্যাপ্ত ঘুমানো প্রয়োজন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভাল ঘুম না হওয়া বা প্রতিদিন মাঝরাতে ঘুম ভাঙার পেছনে কিছু অভ্যাস দায়ী। এগুলো বদলে ফেললে ঘুম সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। যেমন-

১. ঘুমের সময় এলেই আমাদের শরীর থেকে মেলাটোনিন হরমোনের নিঃসরণ শুরু হয়। সাধারণত রাতেই এই হরমোন সক্রিয় ভাবে কাজ করে। ঘুমের সময় শুয়ে শুয়ে মোবাইল বা ল্যাপটপ ঘাঁটাঘাটি করলে এই হরমোনের নিঃসরণ বাঁধাপ্রাপ্ত হয়। তাই ঘুমের সময় এইসব কাজ-কর্ম থেকে দূরে থাকুন।

২. মানসিক চাপের কারণে ঘুম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আপনি যদি মানসিক চাপ বা দুশ্চিন্তা নিয়ে ঘুমোতে যান, তাহলে আপনার অবচেতন মনে ওই বিষয়গুলি জাগ্রত থাকে। তখন আপনার শরীর অবসন্ন হয়ে পড়লেও মন সজাগ থাকে। ফলে ঠিক মতো ঘুম হয় না। তাই মানসিক চাপ কাটাতে বা কমাতে রোজ মেডিটেশনের অভ্যাস করুন। এটি আপনার মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করবে।

৩. ঘুমানোর আগে মদ্যপান বা ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করুন।একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, মদ এবং নিকোটিন ম্যালাটোনিন নামের হরমোনের ক্ষমতা ও কার্যকারিতা হ্রাস করে। এই হরমোন ঘুমের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে মদ্যপান বা ধূমপানের অভ্যাস সাময়িক ভাবে আমাদের স্নায়ুগুলিকে শিথিল করে দিলেও মস্তিষ্কের কোষগুলিকে সক্রিয় করে দেয়। এ কারণে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে। সূত্র : জি নিউজ
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

মাঝরাতে ঘুম ভাঙে যেসব অভ্যাসে


মাঝরাতে ঘুম ভাঙে যেসব অভ্যাসে

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভাল ঘুম না হওয়া বা প্রতিদিন মাঝরাতে ঘুম ভাঙার পেছনে কিছু অভ্যাস দায়ী। এগুলো বদলে ফেললে ঘুম সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। যেমন-

১. ঘুমের সময় এলেই আমাদের শরীর থেকে মেলাটোনিন হরমোনের নিঃসরণ শুরু হয়। সাধারণত রাতেই এই হরমোন সক্রিয় ভাবে কাজ করে। ঘুমের সময় শুয়ে শুয়ে মোবাইল বা ল্যাপটপ ঘাঁটাঘাটি করলে এই হরমোনের নিঃসরণ বাঁধাপ্রাপ্ত হয়। তাই ঘুমের সময় এইসব কাজ-কর্ম থেকে দূরে থাকুন।

২. মানসিক চাপের কারণে ঘুম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আপনি যদি মানসিক চাপ বা দুশ্চিন্তা নিয়ে ঘুমোতে যান, তাহলে আপনার অবচেতন মনে ওই বিষয়গুলি জাগ্রত থাকে। তখন আপনার শরীর অবসন্ন হয়ে পড়লেও মন সজাগ থাকে। ফলে ঠিক মতো ঘুম হয় না। তাই মানসিক চাপ কাটাতে বা কমাতে রোজ মেডিটেশনের অভ্যাস করুন। এটি আপনার মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করবে।

৩. ঘুমানোর আগে মদ্যপান বা ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করুন।একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, মদ এবং নিকোটিন ম্যালাটোনিন নামের হরমোনের ক্ষমতা ও কার্যকারিতা হ্রাস করে। এই হরমোন ঘুমের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে মদ্যপান বা ধূমপানের অভ্যাস সাময়িক ভাবে আমাদের স্নায়ুগুলিকে শিথিল করে দিলেও মস্তিষ্কের কোষগুলিকে সক্রিয় করে দেয়। এ কারণে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে। সূত্র : জি নিউজ
বিডিপ্রেস/আলী