BDpress

চকবাজারে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু, নিহত বেড়ে ৭১

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
চকবাজারে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু, নিহত বেড়ে ৭১
রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টায় অগ্নিদগ্ধ জাকির হোসেন (৪৫) নামে আরও একজন মারা গেছেন। এ নিয়ে চুড়িহাট্টার অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭১ জনে।

শনিবার (২ মার্চ) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া (ইন্সপেক্টর) জানান, শনিবার সকালে ঢামেকের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন থেকে জাকির হোসেনের মৃত্যু হয়। জাকিরের শরীরের ৩৮ শতাংশ পোড়া ছিল।

এর আগে শুক্রবার রেজাউলের মৃত্যু হয়। তার শরীরের ৫১ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

চকবাজারে দগ্ধদের মধ্যে নয়জনকে এখানে ভর্তি করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে তিনজন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। দুজন এখনও বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে সেলিমের (৪৪) শরীরের ১৪ শতাংশ এবং মাহমুদুলের (৫২) শরীরের ১৩ শতাংশ পুড়েছে। আনোয়ার হোসেন ও সোহাগ নামে দু’জন মারা যান ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে।

চুড়িহাট্টায় ২০ ফেব্রুয়ারি অগ্নিকাণ্ডের পর ফায়ার সার্ভিস ৬৭টি লাশ উদ্ধার করে। এরমধ্যে ৪৮ জনের লাশ শনাক্ত করার পর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ। বাকিদের শনাক্ত করার জন্য তাদের সম্ভাব্য স্বজনদের ডিএনএ নমুনা নিয়েছে সিআইডি। লাশের ডিএনএ নমুনার সঙ্গে তা মিলিয়ে শনাক্ত হওয়ার পর হস্তান্তর করা হবে লাশগুলো।

এদিকে শুরুতে এ অগ্নিকাণ্ডের জন্য গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণকে শিল্পমন্ত্রী দায়ী করলেও তদন্তকারীরা এখন বলছেন, সিলিন্ডার বিস্ফোরণের আলামত তারা পাননি। গুদামের রাসায়নিক ও দাহ্য পদার্থ থেকে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে বলে এখন মনে করা হচ্ছে।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

চকবাজারে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু, নিহত বেড়ে ৭১


চকবাজারে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু, নিহত বেড়ে ৭১

শনিবার (২ মার্চ) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া (ইন্সপেক্টর) জানান, শনিবার সকালে ঢামেকের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন থেকে জাকির হোসেনের মৃত্যু হয়। জাকিরের শরীরের ৩৮ শতাংশ পোড়া ছিল।

এর আগে শুক্রবার রেজাউলের মৃত্যু হয়। তার শরীরের ৫১ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

চকবাজারে দগ্ধদের মধ্যে নয়জনকে এখানে ভর্তি করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে তিনজন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। দুজন এখনও বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে সেলিমের (৪৪) শরীরের ১৪ শতাংশ এবং মাহমুদুলের (৫২) শরীরের ১৩ শতাংশ পুড়েছে। আনোয়ার হোসেন ও সোহাগ নামে দু’জন মারা যান ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে।

চুড়িহাট্টায় ২০ ফেব্রুয়ারি অগ্নিকাণ্ডের পর ফায়ার সার্ভিস ৬৭টি লাশ উদ্ধার করে। এরমধ্যে ৪৮ জনের লাশ শনাক্ত করার পর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ। বাকিদের শনাক্ত করার জন্য তাদের সম্ভাব্য স্বজনদের ডিএনএ নমুনা নিয়েছে সিআইডি। লাশের ডিএনএ নমুনার সঙ্গে তা মিলিয়ে শনাক্ত হওয়ার পর হস্তান্তর করা হবে লাশগুলো।

এদিকে শুরুতে এ অগ্নিকাণ্ডের জন্য গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণকে শিল্পমন্ত্রী দায়ী করলেও তদন্তকারীরা এখন বলছেন, সিলিন্ডার বিস্ফোরণের আলামত তারা পাননি। গুদামের রাসায়নিক ও দাহ্য পদার্থ থেকে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে বলে এখন মনে করা হচ্ছে।
বিডিপ্রেস/আলী