BDpress

হৃদযন্ত্র কাজ করছে, কথা বলছেন ওবায়দুল কাদের

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
হৃদযন্ত্র কাজ করছে, কথা বলছেন ওবায়দুল কাদের
কৃত্রিম সাপোর্ট ছাড়া সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের হৃদযন্ত্র কাজ করছে।

তার শ্বাসনালীর নল খুলে দেওয়া হয়েছে। তিনি এখন চিকিৎসক এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে পারছেন। আগের চেয়ে তার স্বাস্থ্যের উন্নতি হচ্ছে। শনিবার (৯ মার্চ) স্থানীয় সময় সকালে তার শ্বাসনালীর নল খোলা হয়েছে।

কাদেরের চিকিৎসায় গঠিত পাঁচ সদস্যের চিকিৎসক দলের সিনিয়র সদস্য কার্ডিও থোরাসিক সার্জন ডা. সিবাস্তান কুমার সামিকে উদ্ধৃত করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিওরোলজি বিভাগের প্রফেসর ডা. আবু নাসার রিজভী জানান, ওবায়দুল কাদের আগের দিনের তুলনায় আজ আরও ভালো আছেন।

এ ছাড়া কোনো ধরনের কৃত্রিম সাপোর্ট ছাড়া তার হৃদযন্ত্র কাজ করছে। তার রক্তচাপ স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। কিডনি স্বাভাবিকভাবে কাজ করছে এবং ইনফেকশন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলেও জানান ডা. রিজভী।

এ সময় ওবায়দুল কাদেরের পূর্ণ সুস্থতার জন্য দেশবাসীর দোয়া কামনা করেন তিনি।

শুক্রবার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে চিকিৎসার অগ্রগতির বিষয়ে ব্রিফ করেন ডা. সামি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদেরের সহধর্মিণী বেগম ইসরাতুন্নেসা কাদের, সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান ও ডা. আবু নাসার রিজভী। পরে ডা. রিজভী হাসপাতালের লবিতে সমবেতদের চিকিৎসাবিষয়ক অগ্রগতি অবহিত করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপি, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দীন হাজারী এমপি, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

নিয়মানুযায়ী শনিবার স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ডা. ফিলিপ কোহ ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার সর্বশেষ অগ্রগতির বিষয়ে ব্রিফ করবেন বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

গত রোববার সকালে শ্বাসকষ্ট নিয়ে ওবায়দুল কাদের ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে ভর্তি হলে এনজিওগ্রামে তার হৃৎপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে।

এর মধ্যে একটি ব্লক স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে সোমবার বিকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার আম্বুলেন্সে তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়।

সেদিন রাতেই একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা শুরু করেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা। মঙ্গলবার কাদেরের কিডনিতে কিছু জটিলতা এবং রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ে। সেগুলো নিয়ন্ত্রণে এলেই বাইপাস সার্জারি করার কথা ভাবছেন চিকিৎসকরা।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

হৃদযন্ত্র কাজ করছে, কথা বলছেন ওবায়দুল কাদের


হৃদযন্ত্র কাজ করছে, কথা বলছেন ওবায়দুল কাদের

তার শ্বাসনালীর নল খুলে দেওয়া হয়েছে। তিনি এখন চিকিৎসক এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে পারছেন। আগের চেয়ে তার স্বাস্থ্যের উন্নতি হচ্ছে। শনিবার (৯ মার্চ) স্থানীয় সময় সকালে তার শ্বাসনালীর নল খোলা হয়েছে।

কাদেরের চিকিৎসায় গঠিত পাঁচ সদস্যের চিকিৎসক দলের সিনিয়র সদস্য কার্ডিও থোরাসিক সার্জন ডা. সিবাস্তান কুমার সামিকে উদ্ধৃত করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিওরোলজি বিভাগের প্রফেসর ডা. আবু নাসার রিজভী জানান, ওবায়দুল কাদের আগের দিনের তুলনায় আজ আরও ভালো আছেন।

এ ছাড়া কোনো ধরনের কৃত্রিম সাপোর্ট ছাড়া তার হৃদযন্ত্র কাজ করছে। তার রক্তচাপ স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। কিডনি স্বাভাবিকভাবে কাজ করছে এবং ইনফেকশন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলেও জানান ডা. রিজভী।

এ সময় ওবায়দুল কাদেরের পূর্ণ সুস্থতার জন্য দেশবাসীর দোয়া কামনা করেন তিনি।

শুক্রবার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে চিকিৎসার অগ্রগতির বিষয়ে ব্রিফ করেন ডা. সামি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদেরের সহধর্মিণী বেগম ইসরাতুন্নেসা কাদের, সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান ও ডা. আবু নাসার রিজভী। পরে ডা. রিজভী হাসপাতালের লবিতে সমবেতদের চিকিৎসাবিষয়ক অগ্রগতি অবহিত করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপি, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দীন হাজারী এমপি, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

নিয়মানুযায়ী শনিবার স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ডা. ফিলিপ কোহ ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার সর্বশেষ অগ্রগতির বিষয়ে ব্রিফ করবেন বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

গত রোববার সকালে শ্বাসকষ্ট নিয়ে ওবায়দুল কাদের ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে ভর্তি হলে এনজিওগ্রামে তার হৃৎপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে।

এর মধ্যে একটি ব্লক স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে সোমবার বিকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার আম্বুলেন্সে তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়।

সেদিন রাতেই একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা শুরু করেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা। মঙ্গলবার কাদেরের কিডনিতে কিছু জটিলতা এবং রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ে। সেগুলো নিয়ন্ত্রণে এলেই বাইপাস সার্জারি করার কথা ভাবছেন চিকিৎসকরা।
বিডিপ্রেস/আলী