BDpress

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রান উইন্ডিজের

ক্রীড়া ডেস্ক

অ+ অ-
টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রান উইন্ডিজের
শুক্রবার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্ক স্টেডিয়ামে সফরকারী ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয় স্বাগতিক উইন্ডিজ। ইংলিশদের ১৮২ রানের জবাবে গেইলরা অলআউট মাত্র ৪৫ রানে। যা কিনা সবমিলিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রান।

এর আগে ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩৯ রানে অলআউট হয়ে এ রেকর্ডে সবার ওপরে নেদারল্যান্ডস।

তবে আইসিসির পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে উইন্ডিজই এখন প্রথমে। এতদিন যা ছিলো নিউজিল্যান্ডের নামের পাশে। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রামেই ৬০ রানে অলআউট হয়েছিল কিউইরা। এই বিব্রতকর রেকর্ড থেকে তাদের মুক্তি দিল গেইল-শাইহোপ-হেটমায়াররা।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩২ রানে ৪ উইকেট হারালেও পঞ্চম উইকেটে স্যাম বিলিংস ও জো রুটের ৮২ এবং ষষ্ঠ উইকেটে বিলিংস ও উইলির ৬৮ রানের দুটি জুটি ইংল্যান্ডকে বড় সংগ্রহ এনে দিয়েছিল।

শেষ বলে আউট হওয়ার আগে ৪৭ বলে ১০ চার ও ৩ ছক্কায় ৮৭ রান করেন ম্যাচসেরা হওয়া বিলিংস। ৪০ বলে ৭ চারে ৫৫ রান করেন রুট। ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন উইলি।

উইন্ডিজের হয়ে অ্যালেন ২টি, কাটরেল, ব্র্যাথওয়েট ও ম্যাককয় একটি করে উইকেট লাভ করেন।

১৮৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে তৃতীয় ওভারে গেইল ও শাই হোপকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান ডেভিড উইলি। এরপর ড্যারেন ব্রাভো, জেসন হোল্ডার, নিকোলাস পুরাণ আর ফ্যাবিয়ান অ্যালেনকে ফিরিয়ে মিডল অর্ডার গুঁড়িয়ে দেন জর্ডান।

২২ রানে উইন্ডিজ যখন ৬ উইকেট হারিয়ে ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে তখন উঁকি দিচ্ছিল সর্বনিম্ন রানের লজ্জার মধ্যেই পড়ে কিনা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হেটমায়ার ও ব্রাফেটের ১০ ও দেবেন্দ্র বিশুর ৮ রানের ইনিংস উইন্ডিজকে বিশ্ব রেকর্ডের লজ্জা থেকে বাঁচালেও নিজেদের সর্বনিম্ন স্কোরের রেকর্ডটা নতুন করে লিখতে হয়েছে।

গত বছর করাচিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬০ রান ছিল দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের আগের সর্বনিম্ন। হেটমায়ার ও ব্রাফেট ছাড়া পুরো দলের ইনিংসে দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি আর কেউই। এ দুজন ছাড়া বাকিদের স্কোর পাশাপাশি দাঁড় করালে হবে টেলিফোন ডিজিট!

ইংলিশদের পক্ষে জর্ডান ৪টি, উইলি, আদিল রশিদ ও লিয়াম প্লাঙ্কেট ২টি করে উইকেট নেন।

আগামী ১১ মার্চ একই মাঠে হবে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ।
বিডিপ্রেস/আলী

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রান উইন্ডিজের


টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রান উইন্ডিজের

এর আগে ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩৯ রানে অলআউট হয়ে এ রেকর্ডে সবার ওপরে নেদারল্যান্ডস।

তবে আইসিসির পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে উইন্ডিজই এখন প্রথমে। এতদিন যা ছিলো নিউজিল্যান্ডের নামের পাশে। ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রামেই ৬০ রানে অলআউট হয়েছিল কিউইরা। এই বিব্রতকর রেকর্ড থেকে তাদের মুক্তি দিল গেইল-শাইহোপ-হেটমায়াররা।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩২ রানে ৪ উইকেট হারালেও পঞ্চম উইকেটে স্যাম বিলিংস ও জো রুটের ৮২ এবং ষষ্ঠ উইকেটে বিলিংস ও উইলির ৬৮ রানের দুটি জুটি ইংল্যান্ডকে বড় সংগ্রহ এনে দিয়েছিল।

শেষ বলে আউট হওয়ার আগে ৪৭ বলে ১০ চার ও ৩ ছক্কায় ৮৭ রান করেন ম্যাচসেরা হওয়া বিলিংস। ৪০ বলে ৭ চারে ৫৫ রান করেন রুট। ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন উইলি।

উইন্ডিজের হয়ে অ্যালেন ২টি, কাটরেল, ব্র্যাথওয়েট ও ম্যাককয় একটি করে উইকেট লাভ করেন।

১৮৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে তৃতীয় ওভারে গেইল ও শাই হোপকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান ডেভিড উইলি। এরপর ড্যারেন ব্রাভো, জেসন হোল্ডার, নিকোলাস পুরাণ আর ফ্যাবিয়ান অ্যালেনকে ফিরিয়ে মিডল অর্ডার গুঁড়িয়ে দেন জর্ডান।

২২ রানে উইন্ডিজ যখন ৬ উইকেট হারিয়ে ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে তখন উঁকি দিচ্ছিল সর্বনিম্ন রানের লজ্জার মধ্যেই পড়ে কিনা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হেটমায়ার ও ব্রাফেটের ১০ ও দেবেন্দ্র বিশুর ৮ রানের ইনিংস উইন্ডিজকে বিশ্ব রেকর্ডের লজ্জা থেকে বাঁচালেও নিজেদের সর্বনিম্ন স্কোরের রেকর্ডটা নতুন করে লিখতে হয়েছে।

গত বছর করাচিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬০ রান ছিল দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের আগের সর্বনিম্ন। হেটমায়ার ও ব্রাফেট ছাড়া পুরো দলের ইনিংসে দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি আর কেউই। এ দুজন ছাড়া বাকিদের স্কোর পাশাপাশি দাঁড় করালে হবে টেলিফোন ডিজিট!

ইংলিশদের পক্ষে জর্ডান ৪টি, উইলি, আদিল রশিদ ও লিয়াম প্লাঙ্কেট ২টি করে উইকেট নেন।

আগামী ১১ মার্চ একই মাঠে হবে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ।
বিডিপ্রেস/আলী